এশিয়া কাপের দলে মুমিনুল

সাকিব ফিট : দাবি কোচের

প্রকাশ : ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

এশিয়া কাপের বাকি এক সপ্তাহ। অথচ এমন সময় সাকিব আল হাসানের ইনজুরি নিয়ে এক তরফা নাটকই হলো। সাকিব নিজেও নিজের ফিটনেসের বড় একটা ঘাটতির কথা জানিয়েছে। তবে বাংলাদেশ কোচ স্টিভ রোডস বললেন অন্য কথা। এশিয়া কাপে খেলার জন্য সাকিব যথেষ্ট ফিট আছেন বলে দাবি করলেন ইংলিশ কোচ।

সাকিবকে নিয়েই ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। কাল এই তালিকায় আরো একজনের নাম যুক্ত করেছেন নির্বাচকরা। তিনি মুমিনুল হক সৌরভ। আয়ারল্যান্ড সফরে ‘এ’ দলের সিরিজে দুর্দান্ত পারফর্ম করার পরও চূড়ান্ত দল থেকে বাদ দেওয়া হয়েছিল তাকে। সেই মুমিনুলকে আবার ডেকে পাঠিয়েছেন নির্বাচকরা।

সাকিবের ইনজুরি নিয়ে বিপাকে আছেন বিসিবি। সাকিবের ২টি সাক্ষাৎকারে দুই রকম কথায় আরো বিব্রত বোর্ড। বিসিবি পরিচালক জালাল ইউনুস বলেছেন, ‘দল ঘোষণার সময়ও সাকিব আমাদের কিছু বলেনি। তবে সে যদি নিজেকে পুরোপুরি ফিট না মনে করে তাহলে আমাদের জানাতে পারে। সাকিব যদি খেলতে না চায় তাহলে সে খেলবে না।’

সাবিক অভিজ্ঞ ক্রিকেটার এবং এই রকম সময় কী করতে হয় তা সে ভালো করেই জানেন বলে মনে করেন ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। কাল সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে সাকিবের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সেই আমরা জিততে পেরেছিলাম। আমারও মনে হয় সাকিব যথেষ্ঠ ফিট আছে। তবে আমাদের কিছু করার নেই। সিদ্ধান্তটা তাকেই নিতে হবে। আমি নিশ্চিত সে খেলবে এবং ১০০ ভাগ দিয়েই খেলবে।’

মাশরাফির পাশেই সংবাদ সম্মেলন কক্ষে বসা ছিলেন বাংলাদেশ কোচ রোডস। অধিনায়কের বলা কথার আগেই ইংলিশ কোচ দাবি করেছেন এশিয়া কাপ খেলার জন্য সাকিব যথেষ্ঠ ফিট। টাইগার কোচ বলেছেন, ‘আমি বিশ্বাস করি না যে সে ২০-৩০ ভাগ ফিট। আমার মনে হয় সে আরো বেশি ফিট আছে। আমি বলব খেলার জন্য যথেষ্ঠ ফিট আছে সাকিব।’

সাকিবের দল থাকা কতটা জরুরি সেটাও বললেন রোডস, ‘এশিয়া কাপ বাংলাদেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এটা ঠিক সাকিব শতভাগ ফিট নন, কিন্তু এই অবস্থায় যদি ক্যারিবীয় সিরিজের মতো কিছু করতে পারে সেটা বাংলাদেশের জন্য বড় পাওয়া। সে ৬০ অথবা ৭০ ভাগ ফিট থাকলে আমরা তার কাছ থেকে ভালো ক্রিকেট আশা করতে পারি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর শেষে দেশে ফিরেই পুণ্যভূমি সৌদি আরবে হজ করতে গিয়েছিলেন সাকিব। আপাতত তিনি আছেন যুক্তরাষ্ট্রে। সেখান থেকেই দুবাইতে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তাই দেশের মাটিতে টাইগারদের ৯ দিনের অনুশীলন ক্যাম্পে ছিলেন না তিনি। অনুশীলনে সাকিবের অনুপস্থিতি কোনো সমস্যা হবে না বলেই মনে করেন অধিনায়ক মাশরাফি।

অবশ্য সাকিবের এশিয়া কাপে খেলা নিয়ে আগে থেকেই ছিল সংশয়। তার পরিবর্তীত হিসেবে মুমিনুল হককে বিকল্প হিসেবে ভেবে রেখেছিলেন নির্বাচকরা। শেষ অবধি সাকিবকে নিয়েই দল চূড়ান্ত করেছিলেন নির্বাচকরা। এশিয়া কাপের আগে সাকিব অস্ত্রোপচার না করানোর সিদ্ধান্ত নেওয়ায় কপাল পুড়েছিল মুমিনুলের। সাকিব নয়, এবার মুমিনুলের ভাগ্য খুলে দিয়েছে নাজমুল হোসেন শান্তর ইনজুরি। ২০১৫ সালের পর আবারও জাতীয় দলে ফিরলেন মুমিনুল হক।

শান্তর হাতে চোট থাকা সত্ত্বেও তাকে দলে রেখে দিয়েছেন নির্বাচকরা। ভবিষ্যতে পরিণত ক্রিকেটার তৈরি করার জন্যই তাকে দলে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন।

"