অবসরের আগে কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন কুক

প্রকাশ : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

একটি সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য টানা ৬ মাস চিন্তাভাবনা করতে হয়েছে অ্যালিস্টার কুককে। ইংলিশ ব্যাটসম্যানের সিদ্ধান্তটা যে কী তা এরই মধ্যে জেনে গেছেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। টেস্ট ক্রিকেটে এক যুগ অতিবাহিত করার পর অবসরের ঘোষণা দিয়েছেন কুক। ৭ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়া ইংল্যান্ড বনাম ভারতের পঞ্চম টেস্টের পর সাদা জার্সিতে আর দেখা যাবে না ৩৩ বছর বয়সী ব্যাটসম্যানকে। অবসরের সিদ্ধান্ত নিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন বলে সতীর্থদের জানিয়েছেন কুকি।

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিকে বিদায় জানিয়েছেন অনেক আগে। বাকি ছিল কেবল টেস্ট। কিন্তু এই বছর নিজের স্বরূপটা তেমন দেখাতে পারেননি কুক। ২০১৮ সালে তার গড় মাত্র ১৮.৬২। যা কুকের ক্যারিয়ারের সঙ্গে সম্পূর্ণ বেমানান। কুক ফুরিয়ে গেছেন বলেও অনেক সমালোচক আওয়াজ তুলেছিল। আওয়াজটা বেশি আর বাড়তে দেননি ইংলিশদের এই সাবেক অধিনায়ক। সতীর্থদের তিনি বলেন, ‘সিদ্ধান্তটি নিতে গিয়ে আমি কান্নায় ভেঙে পড়েছিলাম। অন্যদিনের চেয়ে এদিন আমি বেশি কান্না করেছি।’

অবসরের ঘোষণার দিতে গিয়ে আবেগআপ্লুত হয়েছিলেন কুক। গত রোববার চতুর্থ টেস্টে জয়ের পর কুক সতীর্থদের বলেন, ‘ম্যাচের শেষে আমি বলেছিলাম, এটি খুব ভালো খবর বা কারো জন্য আনন্দের সংবাদও। কিন্তু আমি আমার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছি। আমি শুধু আর একটি ম্যাচ খেলব। পর মুহূর্তে চারদিকে পিনপতন নীরবতা নেমে এসেছিল। তখন মঈন আলী কিছু বলে উঠে। কিন্তু এরপরই সবাই হেসে উঠে।’

আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণার আগে অবসরের কথাটা কুক সাউদাম্পটনে চতুর্থ টেস্ট চলাকালীন ইংলিশ অধিনায়ক জো রুট এবং কোচ ট্রেভর বেইলিসকে জানিয়ে দিয়েছিলেন। অবসরের সিদ্ধান্ত নিতে গিয়ে কতটুকু মানসিক চাপে ছিলেন তার বর্ণনা দিতে গিয়ে কুক বলেন, ‘গত ৬ মাস ধরে আমি আমার মনকে বুঝিয়েছি যে, অবসর নিতে যাচ্ছি।’ কুকের টেস্ট অভিষেক ঘটে ২০০৬ সালে। ভারতের বিপক্ষে নাগপুরের টেস্টে ৪ হাঁকিয়েই আন্তর্জাতিক টেস্টে রানের খাতা খুলেন তিনি। এরপর পেরিয়ে গেছে ১২ বছর। মাঝখানে অসুস্থতার কারণে একবারই দল থেকে বাদ পড়েছেন তিনি।

"