নাদালের মহাকাব্যিক জয়

প্রকাশ : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

মহাকাব্যিক ম্যাচ বোধহয় একেই বলে। ফ্ল্যাশিং মিডোর নাভিশ্বাস উঠা গরমের মধ্যে টানা ৪ ঘণ্টা ৪৯ মিনিট পরীক্ষা দিতে হলো দুই প্রতিদ্বন্দ্বীকে। এ যেন ‘বিনা যুদ্ধে নাহি দেব সূচাগ্র মেদিনী’ অবস্থা। কোর্টের একপ্রান্তে পুরুষ এককের নাম্বার ওয়ান বাছাই রাফায়েল নাদাল। আর অন্য প্রান্তে র‌্যাঙ্কিংয়ের চার বাছাই অস্ট্রেলিয়ান তারকা ডমিনিক থিয়েম। অবশেষে আর্থার অ্যাশ স্টেডিয়ামে ৫ সেটের ঘাম ঝরানো গেমটিতে জিতে ইউএস ওপেনের সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন নাদাল। স্প্যানিশ তারকা কোয়ার্টার ফাইনালে ০-৬, ৬-৪, ৭-৫, ৬-৭ (৪-৭), ৭-৬ (৭-৫) গেমে হারিয়েছে ২৫ বছর বয়সী থিয়েমকে।

১৭টি গ্রান্ড স্লামের মালিক নাদাল অবশ্য প্রথম সেটে ০-৬ গেমে হেরেছে। পরে পিছিয়ে পড়েও স্বরূপে ফিরে আসেন স্প্যানিশ তারকা। দ্বিতীয় সেটে ৬-৪ ও তৃতীয় সেটে ৭-৫ গেমে জয় পায় এই ৩২ বছর বয়সী তারকা। চতুর্থ সেটে আবারো ঘুরে দাঁড়ান থিয়েম। জয় পান টাইব্রেকে। পঞ্চম সেটের জয় নির্ধারণী ম্যাচে থিয়েমকে টাইব্রেকে হারান নাদাল।

জয়ের পরপরই কোর্টে লাফিয়ে উঠে আনন্দ প্রকাশ করেন নাদাল। ইউএস ওপেনের এই আসরে এখন পর্যন্ত এটিই সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী ম্যাচ। জয়ের পর তারই প্রতিফলন ছিল ৩টি ইউএস ওপেন জয়ীর কণ্ঠে, ‘অসম্ভব ভোগা ভুগেছি। এটা একটা ধ্রুপদী ম্যাচ।’

শুক্রবার ফাইনালে উঠার লড়াইয়ে নাদাল মুখোমুখি হবে তিন নাম্বার বাছাই আর্জেন্টিনার হুয়ান মার্টিন ডেল পোত্রোর বিপক্ষে। কোয়ার্টার একটি গ্রান্ড স্লামের মালিক পোত্রো কাল হারিয়েছেন ৬-৭ (৫-৭), ৬-৩, ৭-৬ (৭-৪), ৬-২ গেমে হারিয়েছেন জন মার্কিন টেনিস তারকা জন ইসনারকে।

ইউএস ওপেনে এবার টেনিস তারকাদের লড়তে হচ্ছে গরমের বিপক্ষেও। আসরের শুরুতেই নিউইয়র্কের তীব্র তাপমাত্রার কারণে অবসরে চলে গিয়েছিলেন পাঁচ টেনিস তারকা। দুই দিন আগে সুইস মহাতারকা রজার ফেদেরারও বাদ পড়ার পেছনে দোষারোপ করেছেন দাবদাহকে। কালকেও সেই বিশেষ প্রতিপক্ষ গরমকে সামাল দিতে তৃতীয় ও চতুর্থ সেটের পর ১০ মিনিট করে বিশ্রাম নিতে হয়েছে পোত্রো ও ইসনারকে। ৩৮ ডিগ্রি তাপমাত্রায় জয়ের পর পোত্রো তো মজা করে বলেই দিলেন, ‘আমার গোসল হয়ে গেছে।’

মেয়েদের এককে জয়রথ ছুটে চলেছে মার্কিন কন্যা সেরেনা উইলিয়ামসের। সরাসরি সেটে ২৩টি গ্রান্ড স্লামের মালিক সেরেনা সরাসরি সেটে ৬-৪ ও ৬-৩ গেমে হারিয়েছে ৮ নাম্বার বাছাই ক্যারোলিনা প্লিসকোভাকে। এই টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হলেই ২৪টি গ্রান্ড স্লামের মালিক অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি মার্গারেট কোর্টের রেকর্ডে ভাগ বসাবেন ৩৬ বছর বয়সী সেরেনা। ফ্ল্যাশিং মিডোর ফাইনালে উঠার পথে সেরেনা মুখোমুখি হবেন ১৯তম বাছাই লাটভিয়ার আনাস্তাসিজা সেভাস্তোভার বিপক্ষে।

ফ্ল্যাশিং মিডোর লড়াইয়ে নয়বারের মধ্যে মোট ছয়বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে সেরেনা। তবে গত আসরে কন্যা অলিম্পিয়াকে জন্ম দিতে গিয়ে অংশগ্রহণ করেননি তিনি। এর আগে ২০১০ সালে পায়ের পাতায় চোটের কারণে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন। তবে এবার সপ্তম ইউএস ওপেন জয়কে পাখির চোখ করছেন সেরেনা। আর তা যদি হয় নারী এককে সর্বোচ্চ ইউএস ওপেন জয়ীদের সিংহাসনে বসবেন এই সাবেক নাম্বার ওয়ান বাছাই।

"