নিষিদ্ধ হচ্ছেন সাব্বির

মোসাদ্দেককে সতর্কবার্তা

প্রকাশ : ০২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সম্প্রতি শৃঙ্খলা ও নারীবিষয়ক ইস্যু নিয়ে তোলপাড় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। প্রথম প্রসঙ্গের সঙ্গে জড়িয়ে আছে সাব্বির রহমানের নাম। পরের ইস্যুতে বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে চলে এসেছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। জাতীয় দলের এই উঠতি তারকার সঙ্গে স্ত্রী সামিনা শারমীনের সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়েছে গত ১৬ আগস্ট। ১০ দিনের মধ্যে ময়মনসিংহের আদালতে বাংলাদেশ ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে মামলা করেন শারমীন। মোসাদ্দেকের বিরুদ্ধে যৌতুক ও নির্যাতনের অভিযোগ তুলেছেন তিনি।

এ বিষয়ে কাল উঠতি এই তরুণ ক্রিকেটারকে ডেকে পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। মোসাদ্দেককে ডেকে নিয়ে শুধু সতর্ক করে দিয়েছেন বিসিবিকর্তারা। তার বিরুদ্ধে মামলা আদালতে চলমান বিধায় কোনো শাস্তি দেয়নি দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা। কাল একই দিনে সাব্বিরকেও ডেকে পাঠিয়েছে বিসিবি। শুনানি শেষে এই ব্যাটসম্যানকে ৬ মাস আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বহিষ্কারের সুপারিশ করেছে বিসিবি শৃঙ্খলা কমিটি। যা পাঠানো হবে বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসানের কাছে। তিনি অনুমোদন দিলেই এটি কার্যকর হবে।

সাব্বিরের মতো আপাতত মোসাদ্দেকের কোনো শাস্তি সুপারিশ করেনি বিসিবির শৃঙ্খলা কমিটি। এই মুহূর্তে বিসিবি আসলে মোসাদ্দেককে শান্তি দিতেও পারে না। কেন পারে না, সেটির ব্যাখ্যা দিলেন বিসিবি পরিচালক ইসমাইল হায়দার মল্লিক, ‘মোসাদ্দেককে সতর্ক করা হয়েছে। ভবিষ্যতে নিজের কার্যকলাপ, চলাফেরা নিয়ে যেন সে সাবধান থাকে। যেহেতু ওর মামলাটা পারিবারিক, আদালতে নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত আমরা কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারি না।’

সতর্ক করার পাশাপাশি মোসাদ্দেককে তাই কিছু উপদেশও দিয়েছে বিসিবির শৃঙ্খলা কমিটি। বিসিবি পরিচালক বলেছেন, ‘সৈকতকে (মোসাদ্দেক) উপদেশ দিয়েছি। একজন জাতীয় দলের ক্রিকেটারকে কীভাবে চলা উচিত, এ নিয়ে কিছু নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে তাকে। সতর্ক করা হয়েছে ভবিষ্যতে যেন সংযত হয়ে চলে। ওর মামলাটা বিচারাধীন, আমরা কোনো সিদ্ধান্ত এখন নিতে পারি না। আদালত থেকে যা বলা হবে, সেটাই তার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।’

জানা গিয়েছিল সাব্বির-মোসাদ্দেকের সঙ্গে বিসিবির শৃঙ্খলা কমিটির শুনানিতে আসতে হবে নাসির হোসেনকেও। কিছুদিন আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিও বার্তা দিয়ে নাসিরের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন এক উঠতি মডেল। পরে দুইজনের একান্ত ব্যক্তিগত ফোনালাপের অডিও ছড়িয়ে পড়ে ইউটিউবে। এতে ভীষণ বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়ে বিসিবি।

শেষ অবধি নাসিরকে অবশ্য ডেকে পাঠায়নি বিসিবি। তবে পরে এই অলরাউন্ডারকে শুনানিতে ডাকার আভাস দিয়েছেন মল্লিক। তিনি বলেছেন, ‘পরে হয়তো ডাকা হতে পারে। চোটের কারণে সে ক্রিকেটের বাইরে আছে। একজন ক্রিকেটারের কী শাস্তি হতে পারে? আর্থিক কিংবা নিষেধাজ্ঞা। যেহেতু সে ইনজুরিতে পড়েছে তাই আমরা তাকে ডাকিনি।’

 

"