মডরিচ বললেন

‘আমার ক্যারিয়ারের সেরা বছর’

প্রকাশ : ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

ব্রাজিল, জার্মানি, আর্জেন্টিনার মতো পরাশক্তিদের ভিড়ে ক্রোয়েশিয়া ফাইনাল খেলবে এমন ভাবনাটা খুব কম লোকই ভাবতে পেরেছিলেন। কিন্তু প্রায় একক নৈপুণ্যেই রাশিয়া বিশ্বকাপে মধ্যম শক্তির ক্রোয়াটদের ফাইনালে তুলেছিলেন অধিনায়ক লুকা মডরিচ। তার এক মাস আগে এই ৩২ বছর বয়সী রিয়াল মাদ্রিদকে এনে দিয়েছিলেন টানা তৃতীয় চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা। বিশ্বকাপটা অধরা থেকে গেলেও আসরের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার ‘গোল্ডেন বল’ জিতেছিলেন মডরিচ। এবার চ্যাম্পিনস লিগে দুর্দান্ত খেলারও স্বীকৃতি পেলেন ক্রোয়াট মিডফিল্ডার। সাবেক ক্লাব সতীর্থ ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে ৯০ পয়েন্টে হারিয়ে প্রথমবারের মতো উয়েফার সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন রিয়ালের ক্রোয়াট মিডফিল্ডার লুকা মডরিচ।

পরশু রাতে ফ্রান্সের মোনাকোতে বসেছিল উয়েফার অনুষ্ঠান। সেরা খেলোয়াড়ের মডরিচের প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন রিয়ালের সাবেক ও বর্তমান জুভেন্টাস ফরওয়ার্ড রোনালদো এবং মিসরের লিভারপুল ফরওয়ার্ড মোহাম্মদ সালাহ। ৩১৩ পয়েন্ট নিয়ে সবাইকে পেছনে ফেলেন মডরিচ। রোনালদো পেয়েছেন ২২৩ পয়েন্ট। ১৩৪ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় হয়েছেন সালাহ। পরের ৬ জন হচ্ছেন অ্যান্তনিও গ্রিজম্যান (৭২), লিওনেল মেসি (৫৫), কিলিয়ান এমবাপ্পে (৪৩), কেভিন ডি ব্রুইন (২৮), রাফায়েল ভারানে (২৩), ইডেন হ্যাজার্ড (১৫) ও সার্জিও রামোস (১২)। এই ১০ জনের মধ্যে ৪ জনই ২০১৭-১৮ মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ী রিয়ালের।

মডরিচকে হারাতে পারলে টানা তিনবার উয়েফা সেরার পুরস্কার উঠত রোনালদোর হাতে। তবে ২০১০ থেকে চালু পুরস্কারটি রোনালদো জিতেছেন সর্বোচ্চ তিনবার। দুইবার জিতেছেন আর্জেন্টাইন ফরওয়ার্ড মেসি। আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা ও ফ্রাঙ্ক রিভেরি জিতেছেন একবার করে।

উয়েফার সেরা পুরস্কারটি মডরিচ জেতায় সবচেয়ে বেশি আনন্দিত হয়েছেন তারই ক্রোয়াট সতীর্থ ইভান রাকিটিচ। বার্সেলোনা মিডফিল্ডার বন্ধুর প্রশংসা করে বলেন, ‘সে (মডরিচ) ভিন্ন ধাঁচের মেধাবী খেলোয়াড়। তার চারপাশে যারা থাকে তারাও উন্নতি করে। যখন সে মাঠে থাকে না তখনো তা দেখা যায়। লুকা ছাড়া মাদ্রিদ একেবারে ভিন্ন।’

মডরিচের সাবেক গুরু কোচ হোসে মরিনহো বলেন, ‘মডরিচকে থামানো সম্ভব নয়। কারণ সে খুব চালাক খেলোয়াড়। সে খুব দ্রুত ম্যাচ পড়তে পারে এবং জায়গা পরিবর্তন করে খেলতে পারে।’

যাকে নিয়ে বন্ধু ও কোচদের এত প্রশংসা সেই মডরিচ তেমন কিছুই বলেননি অনুষ্ঠানে। পুরস্কার প্রাপ্তির আনন্দের চেয়ে সাংবাদিকরা বারবার তাকে প্রশ্ন করেছেন সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে তার ভবিষ্যৎ নিয়ে। কারণ নতুন মৌসুম শুরুর আগ থেকে মডরিচকে দলে টানতে উদগ্রীব হয়ে আছে ইন্টার মিলান। তবে গুঞ্জনটাকে শেষ করে দিতে পারলেই যেন হাঁফ ছেড়ে বাঁচেন লুকা। তিনি বলেন, ‘আমি কেবল সুখি নই... আমি চূড়ান্তভাবে সুখি রিয়াল মাদ্রিদে। পরের বছরগুলোও আমি রিয়ালে থাকতে চাই। যতটা বেশি অর্জন করা সম্ভব আমি তার জন্য কাজ করছি। ঈশ্বরকে ধন্যবাদ যে আমি এখানে আছি। দলগত ও ব্যক্তিগতভাবে এটা আমার ক্যারিয়ারের সেরা বছর।’

 

"