রোনালদোর মহাতারকা হয়ে ওঠা

প্রকাশ : ১২ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

২০০২-০৩ সালে পেশাদার লিগ শুরু করেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। পর্তুগালের ক্লাব স্পোর্টিং সিপির হয়ে মাত্র ২৫ ম্যাচ খেলেন সেবার। সেখানে থাকতেই রোনালদো নজরে পড়েন স্যার আলেক্স ফার্গুসনের। তিনি ১৭.১০ মিলিয়ন পাউন্ড ফি দিয়ে ছো মেরে স্পোর্টিং সিপি থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে নিয়ে আসেন পর্তুগালের তরুণ ফুটবলার রোনালদোকে। ২০০৩ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত ম্যানইউর হয়ে ১৯৬ ম্যাচ খেলেন তিনি। গোল করেন ৮৪টি।

এরপর রিয়াল মাদ্রিদ তাকে সেই সময়ে রেকর্ড ৮৪.৬ মিলিয়ন পাউন্ডে দলে ভেড়ায়। সেই থেকে টানা ৯ বছর তিনি রিয়ালের হয়ে খেলেন। রোনালদোর প্রতিভার বিকাশটুকু এখানেই হয়। বড় তারকা তিনি বার্নাব্যুর ঘাস মাড়িয়েই হয়ে ওঠেন। রিয়ালের হয়ে এমন কোনো শিরোপা নেই যা তিনি জিতেননি। হয়ে উঠেছেন ইতিহাসের অন্যতম সেরা ফুটবলার। রিয়ালের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা। উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে গোলের রাজা। অবশেষে ৯ বছরের সম্পর্ক ছিন্ন করে তিনি যোগ দিয়েছেন ইতালিয়ান সিরি’আ লিগের ক্লাব জুভেন্টাসে। এমন সময়ে চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাক ৯ বছরে রিয়ালে রোনালদোর অর্জন ও রেকর্ডগুলোতে।

ব্যক্তিগত অর্জন : লিওনেল মেসির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ব্যালন ডি’অর ও গোল্ডেন বুট জিতেছেন রোনালদো। হয়েছেন ফুটবল ইতিহাসে যৌথভাবে সবচেয়ে বেশি ব্যালন ডি’অর জয়ী ফুটবলার (পাঁচবার)। চারবার জিতেছেন গোল্ডেন বুট। ছয়বার উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন। তিনবার জিতেছেন পিচিচি অ্যাওয়ার্ড।

রিয়ালের হয়ে রোনালদোর যত শিরোপা জয় : রিয়ালের হয়ে প্রায় সব কিছুই জিতেছেন তিনি। চারটি উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপা জিতেছেন (টানা তিনবার)। দুইটি লা লিগার শিরোপা জিতেছেন। দুইটি কোপা ডেল রে জিতেছেন। তিনটি ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ জিতেছেন। তিনটি উয়েফা সুপার কাপের শিরোপা ঘরে তুলেছেন এবং দুইটি সুপারকোপা ডি এস্পানার শিরোপা জিতেছেন।

রিয়ালের হয়ে গোলের রেকর্ড : রিয়ালের হয়ে রোনালদো গড়ে প্রত্যেক ম্যাচে একের অধিক গোল করেছেন। ২০০৯ থেকে ২০১৭-১৮ মৌসুম পর্যন্ত তিনি রিয়ালের হয়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় ৪৩৮ ম্যাচ খেলেছেন। গোল করেছেন রেকর্ড ৪৫১টি। যেখানে ম্যাচ প্রতি তার গড় গোল ১.০৩টি। লা লিগায় তিনি ৩১২ গোল করেছেন। ২২টি গোল করেছেন কোপা ডেল রেতে। সুপার কোপা ডি এস্পানাতে করেছেন ৪টি গোল। ইউরোপিয়ান সুপার কাপে করেছেন ২টি গোল। ছয়টি করেছেন ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপে। আর উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে করেছেন ১০৫টি গোল। রিয়ালের ইতিহাসে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা : রোনালদো রিয়াল মাদ্রিদের কিংবদন্তি রাউল গঞ্জালেসের ৩২৫ গোলের রেকর্ড ভেঙে ৪৫১ গোল করেছেন। হয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের ইতিহাসে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা। তার এই গোলের রেকর্ড আর কেউ ভাঙতে পারেন কিনা সেটা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে।

চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা : রিয়ালে যোগ দেওয়ার আগে তিনি ম্যানইউর হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে ১৫টি গোল করেছিলেন। এরপর রিয়ালের হয়ে করেন ১০৫ গোল। সব মিলিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে তার গোলসংখ্যা ১২০টি। যা লিওনেল মেসির চেয়ে ২০টি বেশি। এছাড়া ছয়বার তিনি চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন। এক আসরে সর্বোচ্চ ১৭ গোল করারও নজির স্থাপন করেছেন তিনি।

তার গোলগুলো যেভাবে এসেছে : রিয়ালের হয়ে রোনালদোর করা ৪৫১ গোলের ২৪৬টি এসেছে ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে। তার মোট গোলের ৮৫.৮ শতাংশ এসেছে ডি-বক্স এরিয়ার মধ্য থেকে। ৪৫১ গোলের মধ্যে উন্মুক্তভাবে তিনি করেছেন ৩৩৮টি গোল। ৩৪টি করেছেন ফ্রি-কিক থেকে এবং ৭৯টি গোল করেছেন পেনাল্টি কিক থেকে। আবার ৪৫১ গোলের মধ্যে ৭০টি করেছেন হেডে। ২৯৮টি করেছেন ডান পায়ে। ৮২টি করেছেন বাম পায়ে। একটি করেছেন শরীরের অন্যান্য অংশ দিয়ে।

যেসব দল ও গোলরক্ষককে রোনালদো ভুগিয়েছেন : স্প্যানিশ লা লিগার ক্লাবগুলোর মধ্যে রোনালদো সবচেয়ে বেশি ২৭ গোল করেছেন সেভিয়ার বিপক্ষে। ২৩টি করেছেন গেটাফের বিপক্ষে। ২২টি অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে। ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় তিনি সবচেয়ে বেশি গোল করেছেন জুভেন্টাসের বিপক্ষে ১০টি। স্প্যানিশ লা লিগায় গোলরক্ষক গোর্কা ইরাইজোজ রোনালদোর সবচেয়ে বেশি ১৭টি গোল হজম করেছেন। দিয়েগো লোপেজ, ক্লাউদিও ব্রাভো ও জাভি ভারাস প্রত্যেকে ১৫টি করে গোল হজম করেছেন। স্পেনের বাইরে জিয়ানলুইজি বুফন, জন উইল্যান্ড ও ম্যানুয়েল নয়্যারকে রোনালদোর সবচেয়ে বেশিবার পরাস্ত করেছেন।

"