এগিয়ে যেতে চায় উরুগুয়ে

প্রকাশ : ০৮ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

দুর্ভাগ্যই বলতে হবে উরুগুয়ের। পর্তুগালের বিপক্ষে দুর্দান্ত খেলা এডিনসন কাভানি ইনজুরি নিয়ে মাঠ ছাড়লেন। আর ফিরলেন না। ফিরলেন না ফ্রান্সের বিপক্ষে মহাগুরুত্বপূর্ণ কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচেও। মাঠ দাপিয়ে খেলা একজন কাভানির অভাব ফ্রান্সের বিপক্ষে খুব করে বোধ করেছে উরুগুয়ে। শেষ পর্যন্ত তারা ফ্রান্সের কাছে ২-০ ব্যবধানে হেরে ১৯৬৬ সালের পর আবার কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় নিয়েছে। তবে এখানেই থেমে থাকতে চায় না উরুগুয়ে। তারা সামনে এগিয়ে যেতে চায়।

যেমনটা বলেছেন উরুগুয়ের কোচ অস্কার তাবারেজ, ‘উরুগুয়ের মতো ঐতিহ্যবাহী ফুটবল খেলুড়ে একটি দেশ হেরে গেলে খারাপ লাগতেই পারে। তবে আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে হবে। এবারের বিশ্বকাপে এমন অনেক দল আছে যারা ফুটবলে এলিট শ্রেণির কিন্তু আগে-ভাগেই বিদায় নিয়েছে। আমি আমার খেলোয়াড়দের ম্যাচ শেষে বলেছি তোমরা গর্বিত হতে পারা। মাথা উঁচুতেই রাখ। আমার খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে খারাপ কিছু বলার মতো শব্দ ভান্ডার আমার কাছে নেই। তারা যথেষ্ট চেষ্টা করেছে। আপনারা দেখেছেন ফ্রান্সের গোল দুইটি সাধারণ গোল ছিল না। আমাদের গোলরক্ষক মুসলেরা প্রত্যেক ম্যাচেই ভালো খেলেছে। সে আমাদের খুবই গুরুত্বপূর্ণ একজন খেলোয়াড়।’

জয় পেলেও উরুগুয়ের প্রশংসা করতে ভোলেননি ফ্রান্সের কোচ দিদিয়ের দেশম। তবে তিনি মনে করেন তাদের জয়টা প্রাপ্য ছিল এবং তারা সেটা পেয়েছে, ‘আমাদের এমন একটি জয় প্রত্যাশিত ছিল। আমরা উরুগুয়ের মতো ভালো একটি দেশের বিপক্ষে খেলেছি, যারা সুন্দর ফুটবল উপহার দেয়। তবে আমরা তাদের চেয়ে ভালো ছিলাম এই ম্যাচে। আমাদের একটি তরুণ দল। তারা আগেও একসঙ্গে অনেক ম্যাচ খেলেছে। কিন্তু তাদের সামনে কঠিন পরীক্ষা ছিল এই ম্যাচটি। কারণ উরুগুয়ে ভালো দল।’

এই বিশ্বকাপে ৩৮০ মিনিট খেলেও গোল পাননি ফ্রান্সের তারকা অলিভার জিরোড। কিন্তু সেটা নিয়ে চিন্তিত নন কোচ দেশম। গোল না পেলেও জিরোড ফ্রান্সের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। দেশম বলেন, ‘এটা সত্য সে গোল পায়নি। আমি আবারও বলছি সে গোল পায়নি। কিন্তু তারপরও সে আমাদের দলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের খেলার ধরনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। সে এমবাপ্পের গোলে অ্যাসিস্ট করেছে। তার এমন সহায়তা আমাদের দরকার। সে খুবই ভদ্র ও উদার খেলোয়াড়। যখন কঠোর পরিশ্রমের প্রশ্ন আসে তখন সে কখনোই অভিযোগ কিংবা অনুযোগ করে না। সে অন্যদের মতো হয়তো প্রভাব বিস্তারকারী নয় কিন্তু দলের তাকে প্রত্যেক ম্যাচেই প্রয়োজন। দলের ভারসাম্য আনয়নে সে অনেক সহায়তা করছে। তার আশপাশে খেলা খেলোয়াড়রা উপকৃত হচ্ছে।’

উরুগুয়ের বিপক্ষে অসাধারণ এক গোল করেও উদ্যাপন করেননি ফ্রান্সের অ্যান্তনিও গ্রিজমান। উদ্যাপন না করে তিনি উরুগুয়ের একজনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। যিনি গ্রিজমানের পেশাদার ক্যারিয়ারের শুরুতে অনেক সাহায্য করেছেন। তাই উরুগুয়ে দেশটার প্রতিই তার আলাদা সম্মান রয়েছে। গ্রিজমান বলেন, ‘আমি গোলটি উদ্যাপন করিনি। কারণ যখন আমি আমার পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ার শুরু করি তখন একজন উরুগুইয়ান আমাকে অনেক সহায়তা করেছেন। তিনি আমাকে ফুটবলের ভালো ও খারাপ দিকটা বুঝিয়েছেন। সে কারণে উরুগুয়ে দেশটার প্রতি আমার আলাদা সম্মান রয়েছে। আমি আসলে আমার বন্ধুদের বিপক্ষে খেলছিলাম। সুতরাং সম্মানের জায়গা থেকে আমার মনে হয়েছে গোলটা উদ্যাপন না করাটাই শ্রেয়।’

"