তাঁদের মিস করবে রাশিয়া বিশ্বকাপ

প্রকাশ : ১৪ জুন ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

আজ শুরু বহুল প্রতীক্ষিত রাশিয়া বিশ্বকাপ। কয়েক ঘণ্টা পর থেকেই শুরু হয়ে যাবে ৩২ দলের ফুটবল মহাযজ্ঞ। এই রঙ্গমঞ্চে দেখা যাবে রোনালদো, নেইমার, মেসিদের মেসির মতো বিশ্বমানের ফুটবলারদের পায়ের জাদু। কিন্তু এই বিশ্বকাপে দেখা যাবে নাÑ এমন তারকার সংখ্যাও নেহাত কম নয়। তাদের মধ্যে কেউ ইনজুরির শিকার হয়ে ছিটকে গেছেন বিশ্বকাপ থেকে। কোনো কোনো তারকার দেশ আবার টিকিট পায়নি রাশিয়ার বিশ্বমঞ্চের। আবার যেসব দল টিকিট পেয়েছে সেই দেশের তারকা-ই এবারের আসরে থাকবেন দর্শক সারিতে। দেখে নেওয়া যাক এমন সব তারকা ফুটবলারকে।

জøাতান ইব্রাহিমোভিচ : মনে করা হয়েছিল দেশের হয়ে বিশ্বকাপে কামব্যাক করবেন জøাতান ইব্রাহিমোভিচ। সমর্থকদের মধ্যে সে আশা বাড়িয়ে দিয়েছিলেন খোদ ইব্রা নিজেই। কিন্তু সুইডেন বিশ্বকাপের টিকিট কাটলেও কোচের পরিকল্পনার অংশ ছিলেন না তিনি। শেষ পর্যন্ত সুইডেনের কিংবদন্তি জানিয়ে দেন বিশ্বকাপে খেলা হচ্ছে না তার।

অ্যালেক্সিস সানচেজ : আর্তুলো ভিদালের মতো বিশ্বকাপ খেলা হচ্ছে না চিলের অন্যতম সেরা ফরোয়ার্ড অ্যালেক্সিস সানচেজের।

আরিয়েন রোবেন : এবারের বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের বলি হয়েছে আধুনিক ফুটবলের জনক নেদাল্যান্ডসও। ডাচরা রাশিয়ার মূলপর্বে জায়গা না পাওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই দর্শক কাতারে চলে গেছেন বায়ার্ন মিউনিখের অন্যতম সেরা মিডফিল্ডার আরিয়েন রোবেন।

গ্যারেথ বেল : ৫৮ বছরের আক্ষেপ ঘুচিয়ে দুই বছর আগে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে জায়গা করে নিয়েছিল ওয়েলস। ওই আসরে সেমিফাইনালেও পৌঁছে গিয়েছিল যুক্তরাজ্যের অঙ্গরাজ্যটি। তাদের এই রূপকথার সারথি ছিলেন গ্যারেথ বেল। বাছাইপর্বে শেষ ম্যাচে বেলবিহীন ওয়েলসের স্বপ্নভঙ্গ হয়। ফলে সে দেশের সর্বকালের সেরা ফুটবলার তথা রিয়াল মাদ্রিদের অন্যতম প্রধান অস্ত্রকে দেখা যাবে না রাশিয়ার মঞ্চে।

জিয়ানলুইজি বুফন : বিশ্বকাপের পর অবসর নেবেন বলে জানিয়েছিলেন ইতালির প্রবাদপ্রতিম গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি বুফন। কিন্তু সুইডেনের কাছে হেরে বিশ্বকাপে যোগ্যতা অর্জন করতেই ব্যর্থ হয় তার দল চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইতালি। চোখের জলে অবসর নেন ৩৯ বছরের বুফন। যদিও অবসর ভেঙে আবারও তিনি ফিরে এসেছেন জাতীয় দলে।

সার্জিও রোমেরো : আর্জেন্টিনার হয়ে দুটি বিশ্বকাপ এবং তিনটি কোপা আমেরিকা খেলা দেশের সেরা গোলরক্ষক সার্জিও রোমেরোকে ছাড়াই বিশ্বকাপ অভিযানে নামতে হবে মেসিদের। হাঁটুর ইনজুরির কারণে গোটা টুর্নামেন্ট থেকেই ছিটকে গেছেন এই তারকা গোলরক্ষক।

মারিও গোটশে : চার বছর আগে তার একমাত্র ও জয়সূচক গোলেই চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল জার্মানি। অথচ সেই মারিও গোটেশেরই এবার জায়গা হলো না জার্মানদের বিশ্বকাপ দলে। চোট এবং অফ ফর্মে প্রায় গোটা মৌসুমেই হতাশায় কেটেছে তার। এ কারণে জার্মানির প্রাথমিক দলেও তাকে রাখেননি কোচ জোয়াকিম লো।

দ্যানি আলভেজ : এবারের বিশ্বকাপের অন্যতম ফেভারিট দল ব্রাজিলকে নামতে হবে রক্ষণভাগের তারকা দ্যানি আলভেজকে ছাড়াই। ফ্রেঞ্চ কাপের ফাইনালে হাঁটুর চোট নিয়ে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেছেন পিএসজির এই ডিফেন্ডার।

ড্যানিয়েল কারভাহাল : বড় টুর্নামেন্টের আগে চোট পাওয়া যেন অভ্যাস হয়ে গেছে ড্যানিয়েল কারভাহালের। চোটের জন্য ২০০৬ ইউরো বিশ্বকাপে খেলতে পারেননি স্পেনের এই ডিফেন্ডার। সদ্য বিদায়ী মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে চোট পেয়ে চোখের জল নিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি।

দিমিত্রি পায়েত : ২০১৬ সালে দুর্দান্ত একটা ইউরো কাটানোর পর পায়েতকে নিয়ে স্বপ্ন দেখতে শুরু করে গোটা ফ্রান্স। কিন্তু ইউরোপা লিগের ফাইনালে হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট দর্শক হয়ে থাকতে হবে পায়েতকে।

করিম বেনজেমা : ২০১৫ সালের অক্টোবরের পর থেকে একবারের জন্যও দেশের হয়ে খেলেননি করিম বেনজেমা। রিয়াল মাদ্রিদের এই তারকা জানিয়েছিলেন, দিদিয়ের দেশম যত দিন ফ্রান্সের কোচ থাকবেন তত দিন তিনি জাতীয় দলে সুযোগ পাবেন না।

"