মিরপুরে বৃষ্টিভেজা লড়াই

প্রকাশ : ১৮ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রতিদিনই কোথাও না কোথায় উঠছে কালবৈশাখী ঝড়। বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ (বিসিএল) এখনো সেই ঝড়ের কবলে পড়েনি। তবে সেটার আগমনী বার্তাটা কম-বেশি আঁচ পাচ্ছে। এই যেমন কাল বৃষ্টির কবলে পড়েছে বিসিএলের পঞ্চম রাউন্ডের প্রথম দিনের ঢাকার ম্যাচটা। কাল দিনের প্রায় এক সেশন ভাসিয়ে নিয়ে গেছে বৃষ্টি। উত্তরাঞ্চল-পূর্বাঞ্চলের এই বৃষ্টিভেজা ম্যাচে প্রথম দিন সমান তালে লড়াই করল উত্তরাঞ্চল ও পূর্বাঞ্চল। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ৫ উইকেটে ২০৪ রান সংগ্রহ করেছে উত্তরাঞ্চল। আজ দ্বিতীয় দিন উইকেটে জহুরুল ইসলামের (৪৩) সঙ্গী আরিফুল হক (১৭)।

তবে পঞ্চম রাউন্ডের অন্য ম্যাচটা প্রায় একপেশেভাবেই এগোচ্ছে। প্রথম দিন শেষেই ম্যাচের লাগাম হাতে তুলে নিয়েছে মধ্যাঞ্চল। রাজশাহীতে দক্ষিণাঞ্চলকে ১৯১ রানে গুটিয়ে দেওয়ার পর প্রথম ইনিংসে বড় সংগ্রহের দিকে হাঁটছে মধ্যাঞ্চল। ২ উইকেটে ১৫৪ রান করেছে তারা। আজ সাদমান ইসলামের (৬৬*) সঙ্গে উইকেট ফের ব্যাটিংয়ে আসবেন মার্শাল (১৪*)।

দক্ষিণাঞ্চলের এমন দুর্দশার ইঙ্গিত ছিল না দিনের শুরুতে। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা দলকে দারুণ শুরু এনে দেন এনামুল হক ও ফজলে মাহমুদ রাব্বি। ৬৫ বলে দুইজনে গড়েন ৬৪ রানের জুটি। তবে দুইজনের কেউই বড় করতে পারেননি ইনিংস। আগের রাউন্ডে জোড়া সেঞ্চুরি করা তুষার ইমরানকে এবার ১৪ রানে ফিরিয়েছেন মোশাররফ। ১১৩ রানে ৪ উইকেট হারানোর ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন অধিনায়ক নুরুল হাসান ও মোহাম্মদ মিঠুন। কিন্তু ৩৬ রানের মধ্যে দক্ষিণাঞ্চল হারায় শেষ ৬ উইকেট। আগের রাউন্ডে ৬১ রানে ৪ উইকেট ছিল এবাদতের সেরা বোলিং। সাইফ হাসান ও সাদমান উদ্বোধনী জুটিতে তোলে ৪৭ রান। ৩০ রানে সাইফকে ফিরে জুটি ভাঙেন অফ স্পিনার নাঈম। দ্বিতীয় উইকেটে সাদমানের সঙ্গে আবদুল মজিদের জুটি ৮২ রানের। ৬ চারে ৪৪ রান করে আউট হন মজিদ। সাদমান দিন শেষ করেন অপরাজিত থেকে। ৯ চারে বাঁ-হাতি ওপেনার করেছেন ১০০ বলে ৬৬।

এদিকে বৃষ্টির কারণে কাল মিরপুরে ২৫ ওভার খেলা কম হয়েছে। সবুজ ঘাসে ছাওয়া উইকেটে টস জিতে ফিল্ডিং নেওয়া পূর্বাঞ্চলের প্রথম সাফল্য পেতে অপেক্ষা করতে হয় ত্রয়োদশ ওভার পর্যন্ত। বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান জুনায়েদ সিদ্দিককে বোল্ড করে ফেরান সোহাগ। শান্তর সঙ্গে দ্রুত জমে ওঠে ওপেনার মিজানুর রহমানের জুটি। সম্ভাবনাময় এই জুটিও ভাঙেন অফ স্পিনার সোহাগ। তাকে সুইপ করতে গিয়ে স্কয়ার লেগে আবু জায়েদের দারুণ ক্যাচে ফিরে যান মিজানুর। ৭৪ বলে খেলা তার ৪৬ রানের ইনিংসে চার ৫টি।

বৃষ্টির পর ফরহাদকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন।

তরুণ বাঁ-হাতি টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে খেলেছেন নিজের সব শট। শান্তকে ফিরিয়ে তার সঙ্গে অধিনায়ক জহুরুলের ৭৭ রানের জুটি ভাঙেন আশরাফুল। এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরে যাওয়ার আগে ১০৯ বলে ১১ চারে ৭৩ রানের চমৎকার এক ইনিংস খেলেন শান্ত। পরে ধীমান ঘোষকে এলবিডব্লিউ করে উত্তরাঞ্চলকে চাপে ফেলেন আশরাফুল। ১৬৬ রানে ৫ উইকেট হারানো দলকে টানছেন জহুরুল ও আরিফুল। দুইজনে দিনের বাকি সময়টুকু কাটিয়ে দেন নিরাপদে। তাদের ব্যাটে ২০০ পার হয় দলের সংগ্রহ। আশরাফুল ২২ রানে নেন ২ উইকেট।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

দক্ষিণাঞ্চল-মধ্যাঞ্চল

দক্ষিণাঞ্চল ১ম ইনিংস : ৪৯.৫ ওভার, ১৯১ (এনামুল ২৩, ফজলে রাব্বি ৪০, ইমরুল ২৬, তুষার ১৪, মিঠুন ১৮, নুরুল ২৮, মোসাদ্দেক ২১*; আবু হায়দার ০/৪০, শাকিল ২/৫০, এবাদত ৪/৩২, মোশাররফ ৪/৫৭)।

মধ্যাঞ্চল ১ম ইনিংস : ৩৫ ওভার, ১৫৪/২ (সাইফ ৩০, সাদমান ৬৬*, মজিদ ৪৪, মার্শাল ১৪*; নাঈম ১/৪৩, রাজ্জাক ১/৫১)।

উত্তরাঞ্চল-পূর্বাঞ্চল

উত্তরাঞ্চল ১ম ইনিংস : ৬৫ ওভার, ২০৪/৫ (মিজানুর ৪৬, শান্ত ৭৩, জহুরুল ৪৩*, আরিফুল ১৭*; সাইফ ১/৩২, আশরাফুল ২/২২)।

"