৫০ মিটার এয়ার পিস্তল

এবার রুপা জিতলেন শাকিল

প্রকাশ : ১২ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

রোববার গোল্ড কোস্ট কমনওয়েথ গেমসে বাংলাদেশের প্রথম পদকটা এসেছিল আবদুল্লাহ হেল বাকির হাত ধরে। আসরের দ্বিতীয় পদকটাও এলো শ্যূটিং থেকে। তবে এবার রাইফেল নয়, পিস্তলের ইভেন্ট থেকে। কিন্তু পদকটা থাকল একই, রুপা। বাকির পর বাংলাদেশকে রৌপ্যপদক উপহার দিলেন শাকিল আহমেদ। কাল ৫০ মিটার এয়ার পিস্তলে দ্বিতীয় হয়েছেন এই শ্যূটার। ২০১৬ সালে এসএ গেমসে এই ইভেন্টেই স্বর্ণ জিতেছিলেন শাকিল।

কাল অবশ্য কখনোই শাকিলের স্বর্ণ জয়ের আশা জাগেনি। কারণ স্বর্ণ জেতা স্বাগতিক শ্যূটার ড্যানিয়েল রেফাকোলির পারফরম্যান্স ছিল বরাবরই নিখুঁত। তাই এই অস্ট্রেলিয়ানকে চ্যালেঞ্জটা সেভাবে ছুড়ে দিতে পারেননি শাকিল। শুরু থেকেই ধারাবাহিক অস্ট্রেলিয়ান শ্যূটার শেষ পর্যন্ত স্বর্ণপদক গলায় ঝোলালেন ২২৭.২ পয়েন্ট করে। দ্বিতীয় হওয়া বাংলাদেশি শ্যূটারের স্কোর ২২০.৫। এখানেও অবশ্য প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে পড়তে হয়নি শাকিলকে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফাইনাল শেষ করেছেন ২০১.১ পয়েন্টে। এই ইভেন্টে ব্রোঞ্জপদক পেয়েছেন ভারতীয় শ্যূটার ওমপ্রকাশ মিথারওয়াল।

রেফাকোলি অবশ্য বেশ অভিজ্ঞ। কয়েকবার খেলেছেন কমনওয়েলথ এবং অলিম্পিক গেমসে। কাল চেনা রেঞ্জে ট্রিগার চেপে অস্ট্রেলিয়ান শ্যূটার বোঝালেন অভিজ্ঞতা মূল্য। বেলমন্টে শেষ শটে স্কোর করলেন ৯.২। যেখানে ৮.৭ পয়েন্ট করে জিতলেন রুপা।

সোমবার ১০ মিটার এয়ার পিস্তলে অংশ নিয়েছিলেন শাকিল। কিন্তু সেদিন খুব বেশি ভালো করতে পারেননি। ফাইনালে উঠলেও ষষ্ঠ হয়ে প্রতিযোগিতা শেষ করেন। কিন্তু নিজের প্রিয় ইভেন্টে আর সেই সুযোগ হাতছাড়া করেননি কাল। যখন শেষ দিকের শটে ব্রোঞ্জ নিশ্চিত করলেন ভারতের শ্যূটার ওমপ্রকাশ, মুহূর্তেই টেলিভিশন ক্যামেরার ফোকাস ঘুরে গেল শাকিলের দিকে। পদক জয়ের মঞ্চে ওঠার পর ধারাভাষ্যকার বলছিলেন, ‘শাকিল, দ্য ন্যাশনাল হিরো অব হিজ কান্ট্রি।’

শাকিল বাছাইয়ে ৫৪৫ স্কোর গড়ে চতুর্থ হয়ে ফাইনালে ওঠেন। পঞ্চম শট পর্যন্ত ৪৫.৯ স্কোর নিয়ে পঞ্চম স্থানে ছিলেন। ১২ শট পর উঠে আসেন তৃতীয় স্থানে। ১৮ শট পরও ১৬৫.৮ স্কোর নিয়ে তৃতীয় স্থানেই ছিলেন। যদিও সোনাজয়ী রেফাকোলি শাকিলের চেয়ে বরাবরই এগিয়ে ছিলেন। আর শেষ দুই শটের আগে যেখানে রেফাকোলির স্কোর ছিল ২০৮.৭, সেখানে শাকিলের ২০২.২।

বাংলাদেশ অলিম্পিক অঙ্গনে সবচেয়ে সম্ভাবনার উৎস শ্যূটিং। কমনওয়েলথ গেমসে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা সাতটি পদক জিতেছেন এখান থেকে। কিন্তু এয়ার রাইফেল থেকেই ছিল সাফল্য। এবার পিস্তল ইভেন্টে পুনর্জন্ম হলো বাংলাদেশের। প্রায় ২৮ বছর আগে অকল্যান্ড কমনওয়েলথ গেমসে ১০ মিটার এয়ার পিস্তলে দেশকে সোনা এনে দিয়েছিলেন আতিকুর রহমান ও আবদুস সাত্তার। অবশেষে শাকিলের নিশানাভেদে ফের পিস্তলে এলো বড় কোনো সাফল্য।

কিন্তু পদকের জন্য মরিয়া ছিলেন না শাকিল। নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার লক্ষ্য ছিল তার। পদক জেতায় স্বাভাবিকভাবেই তৃপ্তির ঢেকুর তুললেন বাংলাদেশি শ্যূটার। শাকিল বলেছেন, ‘ভালো প্রস্তুতি নিয়ে এখানে এসেছিলাম। লক্ষ্য ছিল পদক না হোক, আমার যে স্কোরটা ছিল, সেটা করব। ১০ মিটার এয়ার পিস্তলেও আমার ভালো পারফরম্যান্স ছিল। কিন্তু ফাইনালের কথা আগে ভাগে কিছুই বলা যায় না। তারপরও চেষ্টা করেছিলাম। ৫০ মিটার পিস্তল আমার মূল ইভেন্ট; আশা করেছিলাম এখানে ভালো কিছু করব। এখানে যেটা চেয়েছি সেটাই করতে পেরেছি বাছাইপর্বেও, ফাইনালেও।’

 

ড্যানিয়েল রেফাকোলি

২২৭.২

শাকিল আহমেদ

২২০.৫

ওমপ্রকাশ মিথারওয়াল

২০১.১

"