পদত্যাগ নাকি অব্যাহতি?

প্রকাশ : ২১ মার্চ ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

অনেকদিন ধরেই গুঞ্জনটা বাতাসে উড়ছিল। অবশেষে গুঞ্জনটা মাটিতে নেমে এলো সত্যি হয়ে। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সঙ্গে সম্পর্কটা শেষ হয়ে গেল সহকারী কোচ রিচার্ড হ্যালসলের। টাইগারদের কোচ হিসেবে আর থাকছেন না জিম্বাবুইয়ান এই কোচ। বাবার অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছে পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন তিনি। বিসিবিও তার পদত্যাগপত্রটি গ্রহণ করেছেন। হ্যালসলের পদত্যাগের খবরটি নিশ্চিত করেছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী।

হ্যালসলের পদত্যাগ প্রসঙ্গে বিসিবি প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘রিচার্ড আনুষ্ঠানিকভাবে তার বাবার অসুস্থতার কারণ জানিয়ে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। বোর্ড তার সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান জানিয়ে পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছে।’

হ্যালসলের পদত্যাগের মধ্য দিয়ে সাবেক হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের সহকারীর বিদায়ও নিশ্চিত হলো। হাথুরুসিংহে থাকতে ফিল্ডিং কোচ থেকে সহকারী কোচ পদে উন্নীত হয়েছিলেন হ্যালসল। পরে ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের পরই ছুটিতে গিয়েছিলেন তিনি। নিদাহাস ট্রফিতে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে ছিলেন না হ্যালসল। তাই প্রধান কোচের সন্ধানে থাকা বিসিবিকে এখন খুঁজতে হবে নতুন ফিল্ডিং কোচও।

সদ্য সমাপ্ত ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে ছুটিতে ছিলেন হ্যালসল। সেই ছুটি স্বেচ্ছায় নাকি বাধ্য করা হয়েছে তা নিয়ে ছিল জোর গুঞ্জন। এরই মধ্যে কাল হ্যালসলের পদত্যাগ পত্র গ্রহণের কথা জানায় বিসিবি।

২০১৪ সালের শেষের দিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বাংলাদেশের ফিল্ডিং উপদেষ্টা হিসেবে কাজ শুরু করেন হ্যালসল। সেই সফর শেষে তাকে ফিল্ডিং কোচের দায়িত্ব দেয় বিসিবি। ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে পদোন্নতি পান হ্যালসল। তাকে করা হয় প্রধান কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহের সহকারী। দায়িত্ব পান ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত। গত বছর শেষের দিকে প্রধান কোচের দায়িত্ব থেকে সরে যান হাথুরুসিংহে। এবার গেলেন হ্যালসলও। এক বিবৃতিতে তিনি জানান, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সঙ্গে কাটানো সময় তিনি কখনও ভুলবেন না।

হ্যালসলকে নিয়ে বাংলাদেশ দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের অসন্তুষ্টি বেশ কিছুদিন ধরেই ছিল ‘ওপেন সিক্রেট’। মাশরাফি বিন মুর্তজার টি-টোয়েন্টি থেকে অবসরে তার ভূমিকা, নানা সময়ে তামিম ইকবালের সঙ্গে টানাপোড়েন, মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে টিম ম্যানেজমেন্টের দূরত্ব, এমন আরও অনেক কিছুতে হ্যালসলের জোর ভূমিকার অভিযোগ আছে।

এই সময়ে বরাবরই বোর্ড ছিল হ্যালসলের পাশে। তবে শেষের দিকে নানা কর্মকা-ে বোর্ডও তার ওপর বিরক্ত বলে শোনা যাচ্ছিল।

ক্রিকেটার-বোর্ড, দুই পক্ষের আস্থা হারিয়ে ফেলেছেন বলেই তাকে বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠানো হয়েছে, এমন গুঞ্জন ছিল। বিসিবির কয়েকটি সূত্রের ধারণা ছিল, ছুটিতে থাকা এই ইংলিশ কোচকে আর ফেরানো হবে না।

"