মাঠের বাইরেও বিতর্কের ঝড়

প্রকাশ : ১৮ মার্চ ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

নিদাহাস ট্রফির সবচেয়ে পরিচিত দৃশ্য ‘নাগিন’ নৃত্য। বাংলাদেশ নেচেছে, নাচিয়েছে শ্রীলঙ্কাকেও। তবে লঙ্কানদের নৃত্যে ছিল তাচ্ছিল্য, এক ধরনের উসকানি। পরশু অলিখিত সেমিফাইনালে স্বাগতিকদের সেই নৃত্য ফিরিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। লঙ্কানদের দাঁতভাঙা জবাব দিয়ে থ্রিলার জয়ে টাইগাররা উঠেছে ফাইনালে। আজ তিন জাতির টুর্নামেন্টের শিরোপা লড়াইয়ে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ প্রতিবেশী ভারত।

অথচ ভারতের সঙ্গে ফাইনাল খেলার সম্ভাব্য সব প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিল স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। কলম্বোর রবিন রাউন্ডের ডু অর ডাই ম্যাচ সেটার আভাস দিয়েছে। লঙ্কান আম্পায়াররা দিয়েছেন অপেশাদারিত্বের পরিচয়। শেষ ওভারে ম্যাচ কর্তাদের বিতর্কিত সিদ্ধান্ত এবং স্বেচ্ছাচারিতাও রুখতে পারেনি অদম্য মাহমুদউল্লাহ, সাকিব, তামিমদের। এক বল অক্ষত রেখে ২ উইকেটের ¯স্নায়ুঠাসা জয় তুলে নিয়েছে টাইগাররা। বিশ^কাপে বাংলাদেশের প্রথম সেঞ্চুরিয়ান মাহমুদউল্লাহর ছক্কায় হলো বাজিমাত।

ফাইনালে উঠার লড়াইয়ের আগে অনুশীলনের উপযুক্ত পরিবেশ পায়নি বাংলাদেশ। প্রতিবাদ জানিয়ে সেদিন অনুশীলনই করেনি টাইগাররা। তাতেও লঙ্কা ম্যাচের প্রস্তুতিতে ঘাটতি পড়েনি। সেই ঘটনা অবশ্য অনেকটা আড়াল করে দিয়েছে পরশু ম্যাচ চলাকালীন স্বদেশ টানে আম্পায়ারদের নির্লিপ্ততা। শুধু ২২ গজে নয়, মাঠের বাইরেও তুমুল বিতর্কের জন্ম দিয়েছে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। আমন্ত্রিত অতিথিদের গাড়ির স্টিকারে তারা লিখে রেখেছে ‘শ্রীলঙ্কা-ভারত’ ফাইনাল। বোঝা-ই যাচ্ছে স্টিকার আগের থেকেই ছেপে রেখেছিল শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট (এসএলসি)। এবং অদ্ভুত বিষয় হচ্ছে সেসব স্টিকার বিলি করেছে তারা। সবকিছুর চিত্রনাট্য যেন আগে থেকেই সাজিয়ে রেখেছিল শ্রীলঙ্কা। কিন্তু বাংলাদেশ বড্ড বেরসিক। লঙ্কানদের আশার রোমাঞ্চে জল ঢেলে দিয়েছে।

স্টিকারের বিতর্কটি সামনে এনেছেন বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক ও বিসিবি পরিচালক নাইমুর রহমান দুর্জয়। পরশু রাতেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে গাড়ির স্টিকারের ছবিটি পোস্ট করেছেন এবং সেখানে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ‘হাস্যকর’ বলে। ছবিটি ৯ জনকে ট্যাগ করেছেন তিনি। দুর্জয়ের পোস্ট করা ছবিটি এখন ভাইরাল।

শুধু এই বিতর্কই নয়, নিদাহাস ট্রফির সবচেয়ে থ্রিলার ম্যাচটা ক্রিকেট বিশ^ মনে রাখবে আরো অনেক কারণে। ম্যাচে আইসিসির আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয়েছে বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ও তরুণ ক্রিকেটার নুরুল হাসান সোহানকে। অনেকটা গুরুপাপে লঘুদ- পেয়েছেন টাইগার দুই ক্রিকেটার। শাস্তি হিসেবে দুজনকেই ম্যাচ ফি ২৫ শতাংশ জরিমানা গুনতে হচ্ছে। পাশাপাশি এই মানিকজোড়ের নামের পাশে যুক্ত করা হয়েছে এক ডিমেরিট পয়েন্ট।

শেষ ওভারে বাংলাদেশের দরকার ছিল ১২ রান। স্ট্রাইকে ছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। এই সময় ইসুরো উদানার করা পরপর দুই বল বাউন্সার হলেও ‘নো’ বল ডাকেননি ম্যাচ আম্পায়ার। এখান থেকেই সূত্রপাত ঘটে মূল বিতর্কের। স্কয়ার লেগে আম্পায়ার ‘নো’ বল ডাকলেও আলোচনা করে তা আবার ফিরিয়ে নেয় তারা। পরে রান নিতে গিয়ে আউট হয়ে যায় স্ট্রাইকে থাকা মুস্তাফিজুর। ম্যাচের তখন নখ কামড়ানো উত্তেজনা। পরপর দুই বল বাউন্সার দিলেও কেন ‘নো’ বল ডাকা হলো না তা জানতে স্কয়ার লেগ আম্পায়ারের কাছে ছুটে যায় অপরাজিত ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ। দুই দলের খেলোয়াড়রা তখন কথার বিরোধে জড়িয়ে পড়েছে। তাতে যোগ দিলেন বেঞ্চে বসে থাকা বাংলাদেশি খেলোয়াড়রাও। প্রেমাদাসায় তখন ৩৫ হাজার দর্শক। তাদের চোখ ঘুরে গেল বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের দিকে। দৌড়ে এসে তিনি রিজার্ভ আম্পায়ারদের কাছে জানতে চাইলেন, নো বল না ডাকার কারণ। বিতর্কের এক পর্যায়ে তিনি ব্যাটিংয়ে থাকা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও রুবেল হোসেনকে মাঠ থেকে উঠে আসতে বলেন। ‘খবর’ নিয়ে মাঠে ঢুকা বাংলাদেশি খেলোয়াড় নুরুল হাসানও তখন বাক্বিত-ায় জড়িয়ে পড়েন থিসেরা পেরেরার সঙ্গে। তবে সব ছাপিয়ে উল্লেখযোগ্য হলো ¯œায়ুচাপ সামলে নিয়ে বাংলাদেশের জয়। শেষ দুই বলে বাংলাদেশের দরকার ছিল ৬ রান। মাহমুদউল্লাহর ছক্কায় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে টাইগাররা।

এখানেই বিতর্কের শেষ নয়। প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ঘটেছে আরেকটি অশোভন ঘটনা। শ্রীলঙ্কান পুলিশের সামনেই বাংলাদেশের সমর্থক শোয়েব আলীকে শারীরিকভাবে হেনস্থা করেছে শ্রীলঙ্কান সমর্থকরা। এছাড়া ম্যাচ জেতার পর বাংলাদেশের বিপক্ষে ড্রেসিংরুমে ভাঙচুরের অভিযোগ এনেছে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট। এমন অপেশাদার আচরণের বিষয়টি খতিয়ে দেখছে আইসিসি।

১৬ মার্চ কখনো বাংলাদেশ হারেনি। পরশু ছিল বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য শোকের দিন। ২০০৭ সালে মোটরবাইক এক্সিডেন্টে পরপারে চলে গিয়েছিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটার মানজারুল ইসলাম রানা। পরশু ছিল তার ১১তম মৃত্যু দিবস। বাংলাদেশ তখন বিশ^কাপ খেলার জন্য পোর্ট অফ স্পেনে। মানজারুল ইসলামের মৃত্যু সংবাদ ওইদিন কাঁদিয়েছিল মাশরাফির দলকে। বাংলাদেশও জিতেছিল পোর্ট অফ স্পেনের ম্যাচে। আজ বাংলাদেশ ফাইনালে খেলতে নামবে প্রতিপক্ষ ভারতের সঙ্গে। ট্রফি জিতে পুরনো হিসাবটা মিলাতে চায় টাইগাররা।

"