বার্নাব্যুতে আজ মহাযুদ্ধ

রিয়াল মাদ্রিদ পিএসজি * পোর্তো-লিভারপুল

প্রকাশ : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০

সাহিদ রহমান অরিন

এ এক এমন যুদ্ধ, যার ক্ষণগণনা শুরু হয়েছে ড্র-পরবর্তী সেকেন্ড থেকে! এ এক এমন মহারণ, যার সাক্ষী হতে দর্শকদের গুণতে হয়েছে ২৫ লাখ টাকা! এ এক এমন দ্বৈরথ, যার জন্য যোদ্ধাদের নিতে হয়েছে বিশেষ প্রস্তুতি। রিয়াল মাদ্রিদ-প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি) ম্যাচ বলে কথা। বছরের শ্রেষ্ঠ লড়াই তো বটেই, ফুটবলবোদ্ধাদের মতে মৌসুমের ‘বিগেস্ট ব্লকবাস্টার’ এটি। চ্যাম্পিয়ন লিগের মহামর্যাদার যে লড়াইয়ের উত্তাপটা উনুনে দিয়াশলাই ঠুকানোর আগেই আঁচ করা যাচ্ছিল, সেই আগুন আজ নেভানোর পালা।

দলীয় শ্রেষ্ঠত্বকে ছাপিয়ে ব্যক্তিগত গরিমার বিষয়টাও যেখানে জড়িত, তখন ভ্যালেন্টাইন’স নাইটেও কেউ কারো প্রতি ভালোবাসার হাত বাড়িয়ে দেবে না, এ কথা বলাই বাহুল্য। নক আউট পর্বের প্রথম লেগটা মঞ্চস্থ হতে যাচ্ছে সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে। হোম অ্যাডভানটেজ থাকায় সবাই রিয়ালকেই এগিয়ে রাখার কথা। কিন্তু লস ব্ল্যাঙ্কোসদের পারফরমেন্স বলছে ভিন্ন কথা। মৌসুমজুড়ে খুবই বাজে অবস্থা রিয়ালের। কী হোম, কী অ্যাওয়ে- জয়টা এখন আর মুড়ি-মুড়কির মতো ধরা দেয় না জিদান শিষ্যদের। লা লিগা শিরোপা ধরে রাখার সম্ভাবনা শেষ হয়ে গেছে অনেক আগেই। বিদায় নিয়েছে কোপা ডেল রে’র কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেও। এখন চ্যাম্পিয়নস লিগই ভরসা। এই প্রতিযোগিতার শেষ ষোলতেও গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে পা রাখতে পারেনি ইউরোপসেরারা। পিএসজির গল্পটা এর ঠিক উল্টো। রিয়াল যেখানে লিগেই হেরে বসেছে চারবার, সেখানে উনাই এমেরির দল পুরো মৌসুমে হেরেছে মোটে তিনটি ম্যাচ! যার একটাতে আবার দর্শক হয়ে ছিলেন সেরা তারকা নেইমার।

তবে চ্যাম্পিয়নস লিগ যে সম্পূর্ণ ভিন্ন এক ভুবন! ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে সে কথাই মনে করিয়ে দিলেন এই ভুবনের সর্বোচ্চ গোলদাতা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তার লক্ষ্যে অবিচল। বেশ আত্মবিশ্বাসের সুরেই বললেন, ‘আমার এখনো অনেক কিছু জয় করা বাকি। আমাকে হয়তোবা এ জন্য অনেক কিছু ত্যাগ করতে হবে। আমি এ জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত।’ পিএসজিকে সমীহ করলেও আজকের ধ্রুপদী লড়াইয়ে নিজের দলকেই এগিয়ে রাখলেন সিআরসেভেন, ‘পিএসজিকে অনেক শ্রদ্ধা করি। চমৎকার একটি ইউনিট নিয়ে আমাদের বিপক্ষে খেলতে নামছে তারা। কিন্তু আমরা ঐক্যবদ্ধ। অভিজ্ঞতার বিচারে আমরাই শক্তিশালী দল।’ মৌসুমের শুরুতে নিজেকে হারিয়ে খুঁজলেও সোসিয়েদাদের বিপক্ষে সর্বশেষ ম্যাচ দিয়ে বীরদর্পে হাজির হয়েছেন রোনালদো। হয়তো সে কারণেই এমন আত্মবিশ্বাসের সুরে মুখ নাড়িয়েছেন রিয়াল প্রাণভোমরা। তবে পর্তুগিজ যুবরাজের যুক্তি মানতে নারাজ এড্রিয়েন রাবিয়েট। সংবাদ সম্মেলনে পিএসজির প্রতিনিধি হয়ে আসা এই ইতালিয়ান সেন্ট্রাল মিডফিল্ডারের দাবি, ‘মানছি, ওরা (রিয়াল) অভিজ্ঞতার বিচারে আমাদের চেয়ে শক্তিশালী। কিন্তু মানসিক দিক থেকে আমরা অনেক এগিয়ে। যে কোনো পরিস্থিতি থেকে ম্যাচে ফেরার ক্ষমতা আছে পিএসজির। এবার আমরা অনেক পরিণত একটা দল।’

দু’দলই তাদের সহজাত ৪-৩-৩ ফর্মেশন দিয়েই একাদশ সাজাবে। আক্রমণভাগে বিবিসি (বেল-বেনজেমা-ক্রিশ্চিয়ানো) ত্রয়ীর বিপরীতে এমসিএন (এমবাপ্পে-কাভানি-নেইমার) ত্রিফলার টক্করটা যে সেয়ানে-সেয়ানে হবে, সেটা বোধহয় না বললেও চলে। তবে রক্ষণভাগে খানিকটা পিছিয়ে আছে রিয়াল। নিষেধাজ্ঞার কারণে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মাঠে নামা হচ্ছে না রাইট ব্যাক দানি কারভালের। ইনজুরির কারণে দর্শক হয়ে থাকতে হবে সেন্ট্রার ডিফেন্ডার জেসাস ভ্যালেজোকেও। চোট ভোগাচ্ছে প্যারিসিয়ান্সেরও। ইনজুরিকে সঙ্গী করেই মাদ্রিদের বিমানে চড়েছিলেন এডিনসন কাভানি, থিয়াগো মোত্তা এবং লেভিন কুরজাওয়া। পরের দু’জনের মাঠে নামা নিয়ে রয়েছে সংশয়। তবে কাল অনুশীলন শেষে নিজেকে ফিট ঘোষণা করেছেন কাভানি। মোত্তা-কুরজাওয়ার অনুপস্থিতিতে সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে আজ শুরুর একাদশে দেখা যেতে পারে আর্জেন্টাইন উইঙ্গার আনহেল ডি মারিয়াকে।

দু’দলের শেষ ছয় দেখাতে অবশ্য আলাদা করা যায়নি কাউকে। দুটি করে জয়-পরাজয় আর সমান সংখ্যক ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে দুই ফুটবল পরাশক্তি রিয়াল-পিএসজি। তবে আজ ফল দেখতে মুখিয়ে থাকবে গোটা ফুটবল বিশ্ব। দুই অভিজাত ফুটবল পরাশক্তির লড়াইয়ে শেষ হাসিটা কে হাসবে, তার জবাব মিলবে আজ রাতেই।

"