রিমুভারেও ত্বক তরতাজা

প্রকাশ : ১৯ জুলাই ২০১৯, ০০:০০

রূম্পা দাস

অফিসের কাজ হোক বা কোনো অনুষ্ঠানে মেকআপ ছাড়া বাইরে বের হন না অনেকেই। এমনকি যারা মোটেই সাজগোজ পছন্দ করেন না তারাও আইলাইনার বা হালকা লিপস্টিকের রূপটান দিয়ে নেন। এ ছাড়া সকালবেলা বের হলে সানস্ক্রিন লাগানো তো জরুরি। ফলে বাইরে বের হওয়ার আগে না চাইতেই বেশকিছু প্রসাধনী ব্যবহার করা হয়েই যায় এবং এর বেশির ভাগই কৃত্রিম। ব্যস্ততার যুগে প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে রোজ রূপচর্চা বা মেকআপের সময় হয়তো অনেকেরই হয় না। কিন্তু দিনের শেষে মেকআপ রিমুভারের কাজটা যদি প্রকৃতির নানা উপাদান দিয়েই করা যায় তাহলে যেমন মেকআপ তোলা যায় সহজে, তেমনই ত্বকও সুরক্ষিত থাকে। এ বিষয় নিয়ে লিখেছেন রূম্পা দাস

 

তেল : ন্যাচারাল মেকআপ রিমুভারের তালিকায় প্রথমেই আসে তেলের নাম। নানা ধরনের তেলের মধ্যে রিমুভার হিসেবে নির্দ্বিধায় বেছে নিতে পারেন নারকেল, অলিভ, হোহোবা, সুইট আমন্ড জাতীয় তেল। যত গাঢ় মাশকারা বা লিপস্টিকই হোক, তেলের মাধ্যমে তা উঠবেই।

নারকেল তেল : এই তেল শুধু রান্নার জন্যই নয়, রূপচর্চার জন্যও উপকারী। নারকেল তেল আবার অনেক ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয় ক্যারিয়ার হিসেবে। তবে বাজার চলতি কম দামি নয়, নারকেল তেল কিনুন অর্গানিক এবং খাঁটি। সে ক্ষেত্রে হয়তো দামটা বেশি পড়বে। ছোট জারে করে রেখে দিতে পারেন এই তেল। মেকআপ তোলার জন্য হাতের তালুতে নিয়ে সারা মুখে হালকা বুলিয়ে নিলেই হলো।

সুইট আমন্ড অয়েল : নারকেল তেলের গন্ধ যারা সহ্য করতে পারেন না, তারা ব্যবহার করতে পারেন সুইট আমন্ড অয়েল। হালকা, সুগন্ধযুক্ত এই তেল কিন্তু মেকআপ তুলতে দারুণ কাজে দেয়। এ ছাড়া শেভ করার পরও ব্যবহার করতে পারেন এটি। এমনকি ওয়্যাক্সিংয়ের পরও কাজে দেয় সুইট আমন্ড অয়েল। তবে হাতের তালুতে করে নয়, কটন বলে বা প্যাডে সামান্য তেল নিয়ে মেকআপ তুলুন।

দুধ : ন্যাচারাল রিমুভারের ক্ষেত্রে তেলের পরই আসে দুধ। শরীরের জন্য তো বটেই, ত্বকের জন্যও দুধ অত্যন্ত উপকারী। হাজার হাজার বছর আগে রাজপরিবারের সুন্দরী নারীরা দুধে গা ডবিয়ে বসে থাকতেনÑ এ প্রমাণ পাওয়া গেছে বারবার। ফুলক্রিম মিল্কে থাকা ফ্যাট ও প্রোটিন ত্বকের ময়েশ্চার ফিরিয়ে আনে। এ ছাড়া অ্যাকনে, এগজিমা জাতীয় সমস্যা দূর করে ত্বক সুস্থ রাখে। এক বাটি দুধে এক চামচ আমন্ড অয়েল মিশিয়ে মেকআপ তুলতে পারেন।

শসা : শসার নানা গুণ সম্পর্কে আমরা অনেকেই ওয়াকিবহাল। নানা কৃত্রিম মেকআপ রিমুভার প্রডাক্টেও থাকে শসার নির্যাস। ত্বকের জ্বলুনি থেকে রক্ষা করে শসা। তাই একটি শসা মিহি করে বেটে নিন। সারা মুখে লাগিয়ে রাখুন সেটা। তারপর নরম ও শুকনো কাপড় দিয়ে আলত করে মুছে নিলে দেখবেন, সব মেকআপ উঠে গেছে। যদি মেকআপ খুব কড়া হয়, তা হলে কুরিয়ে রাখা শসার সঙ্গে মিশিয়ে নিতে পারেন সামান্য দুধ কিংবা আমন্ড অয়েল।

টক দই : রান্নাঘরের আর একটি উপকরণও মেকআপ তোলার উপযোগী। সানবার্ন হোক বা ত্বকের জ্বালা-পোড়া... সব কিছু তুলতেই সাহায্য করে দই। মেকআপ তোলার জন্য তুলোয় অল্প দই লাগিয়ে নিন। এবার সারা মুখে সেই দই লাগিয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। এর পরে ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুলেই দেখবেন সব মেকআপ উঠে গেছে।

 

 

"