বর্ষায় ত্বকের পরিচর্যা

প্রকাশ | ২১ জুন ২০১৯, ০০:০০

জীবনযাপন ডেস্ক

ঋতু বদলের ধারায় বাংলার প্রকৃতিতে এখন বর্ষা। ‘নীল নবঘনে আষাঢ় গগনে তিল ঠাঁই আর নাহিরে...’ রবিঠাকুরের এই গানে বর্ষার যে চিত্রকল্প চিত্রিত হয়েছে, বাস্তবতা যেন তা-ই। রুম ঝুম বৃষ্টি কার না ভালো লাগে। যদিও গ্রীষ্মের অসহনীয় তাপের ধকল এখনো কমেনি। তার পরও বর্ষায় ফিরে পায় জীবনের অন্য এক গতি। তবে মনে রাখতে হবে, বৃষ্টির পানি ব্রণ, র‌্যাশসহ চুলের বেহালের জন্য দায়ী। তাই এ সময়টিতে নারী-পুরুষ উভয়ের কিছু সাবধানতা অবলম্বন জরুরি।

প্রথমত. মেকআপ নিয়ে মেয়েদের নানা ঝক্কি পোহাতে হয়। সেক্ষেত্রে ত্বকের অবস্থা শুষ্ক নাকি ময়েশ্চারপূর্ণ তা বোঝার চেষ্টা করতে হবে। এ ছাড়া যেসব বিষয়ে সাবধান থাকবেনÑ

চোখ ও মুখের মেকআপে সাবধান থাকতে হবে। অতিরিক্ত মেকআপ ধুয়ে বিদঘুটে দেখাতে পারে। আর্দ্রতায় ত্বক তৈলাক্ত হয়। তাই ক্রিমনির্ভর ফাউন্ডেশন ব্যবহার এড়িয়ে চলুন। এ ক্ষেত্রে পাউডারনির্ভর ফাউন্ডেশন বেছে নিন। ঠোঁট এবং গালে তরল বা পেনসিলের ব্যবহারে মেকআপ করুন। লিপস্টিকের ক্ষেত্রে উজ্জ্বল রঙের ম্যাট ফিনিশ বেছে নিন।

দ্বিতীয়ত. বর্ষায় উষ্কখুষ্ক চুল বড় সমস্যা। এ মৌসুমে বড় বেশি হাইড্রোজেন বন্ধন তৈরি হয়, যা চুলকে ভেজা করে দেয়। এর সমাধানে নারী-পুরুষ উভয়ই যা করবেনÑ

রাতে হেয়ার সেরাম ব্যবহার করুন। পরদিন সকালে শ্যাম্পু দিয়ে চুল পরিষ্কার করুন। ডিপ কন্ডিশনিং হেয়ার মাস্ক লাগিয়ে নিন। এটি ২০ মিনিট চুলে রেখে ধুয়ে ফেলুন। বাড়তি সেরামের ব্যবহারে ফিনিশিং দিন। সপ্তাহে তিনবার এ পদ্ধতি অবলম্বন করুন।

তৃতীয়ত. বৃষ্টির মৌসুমে সূর্যের অত্যাচার কমে যায়। তাই এ সময় সানস্ক্রিন লোশন কম ব্যবহার করাই ভালো। ছেলেমেয়েরা তাদের ত্বকের অবস্থা বুঝে এই টিপসগুলো মেনে চলতে পারে।

তৈলাক্ত ত্বক : হালকা উষ্ণ পানিতে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ফ্রন্ট অ্যাসিডসহ ক্লিনজার ব্যবহার করুন। লোমকূপের গোড়া বন্ধ করতে এরপর ঠান্ডা পানি ব্যবহার করুন। ৪. পানিনির্ভর ময়েশ্চার ত্বকে লাগান। ভিটামিন ‘এ’ রয়েছে এমন ময়েশ্চার রাতে ব্যবহার করুন। সপ্তাহে তিনবার স্ক্রাব ব্যবহার করুন।

সাধারণ ত্বক : উষ্ণ পানিতে ত্বক ধুয়ে ফেলুন। এ ধরনের ত্বকে সাধারণ ফেসওয়াশ ব্যবহার করতে পারেন। উষ্ণ পানি ব্যবহারের পর ঠান্ডা পানি দিয়ে আবারও মুখ ধুয়ে ফেলবেন। এসপিএফ৩০ রয়েছে এমন জেলনির্ভর সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। প্রতি রাতে ত্বক ক্লিনজার বা ফেসওয়াশ দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

শুষ্ক ত্বক : উষ্ণ পানিতে মুখ ধুতে হবে। আবারও ঠান্ডা পানি ব্যবহার করুন লোমকূপের গোড়া সংকুচিত করে নিতে। ক্রিম রয়েছে এমন ময়েশ্চার ব্যবহার করুন। রাতে হালকা ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে ভারী ময়েশ্চার ব্যবহার করুন। ৩০ এসপিএফ সমৃদ্ধ সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন।

ভিন্ন ধাঁচের ত্বক : যাদের ত্বকে তৈলাক্ত ও শুকনো ভাব রয়েছে, তাদের যা করতে হবেÑ

উষ্ণ পানিতে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এমন ক্লিনজার ব্যবহার করুন, যাতে খুব বেশি ফোম উৎপন্ন হয় না। এবার ঠান্ডা পানিতে মুখ ধুয়ে ফেলুন। জেলনির্ভর অথবা হালকা ময়েশ্চারপূর্ণ লোশন ব্যবহার করুন। লোশনভিত্তিক সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে পারেন, যার এসপিএফ কমপক্ষে ৩০। রাতে একই ক্লিনজার দিয়ে মুখ ধুয়ে ক্রিমপূর্ণ ময়েশ্চার লাগিয়ে নিন। তথ্য : সংগ্রহ

 

 

"