বিমান বিধ্বস্তের দায় স্বীকার করেছে ইরান

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৮০ আরোহী নিয়ে ইউক্রেনীয় বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার কারণ হিসেবে মানবীয় ভুলের স্বীকারোক্তি এসেছে ইরানের কাছ থেকে। গত বুধবার তেহরানে যাত্রীবাহী ওই উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্র দাবি করে আসছিল, ইরানের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতই এর কারণ। তখন ইরানের কর্মকর্তারা তা ডাহা মিথ্যা বলে উড়িয়ে দিয়ে বলছিলেন, যান্ত্রিক ত্রুটিতেই দুর্ঘটনায় পড়ে ওই উড়োজাহাজটি।

কিন্তু গতকাল শনিবার ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে প্রচারিত এক বিবৃতিতে মানবীয় ভুলের কথা স্বীকার করা হয় বলে রয়টার্স জানিয়েছে। এতে বলা হয়, বিমানটি স্পর্শকাতর সামরিক স্থাপনার খুব কাছ দিয়ে উড়ছিল এবং মানবীয় ভুলের কারণে এটি বিধ্বস্ত হয়েছে। এর দায় সংশ্লিষ্টদের নিতে হবে। যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যে প্রবল উত্তেজনা চলার মধ্যে ইরাকে দুটি মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে তেহরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ঘণ্টা দুয়েক পর ইউক্রেনীয় উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হয়।

উড়োজাহাজটি মার্কিন বিমান নির্মাতা কোম্পানি বোয়িংয়ের তৈরি ছিল। যাত্রীদের অধিকাংশই ছিল ইরান ও কানাডার নাগরিক। বিমান বিধ্বস্তের পর পারিপার্শ্বিক ঘটনা বিশ্লেষণ করে যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতকেই দায়ী করেন। কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেন, ইরানের ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপণযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে বিমানটি ভূপাতিত হয়েছে বলে গোয়েন্দা সূত্রের তথ্য। তবে এটি ভুলবশত ঘটে থাকতে পারে। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনও কানাডার প্রধানমন্ত্রীর মতো একই কথা বলেন। তাদের সন্দেহের জবাবে ইরানের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের প্রধান গত শুক্রবার বলেছিলেন, বিমানটিতে যে ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাত লাগেনি, এ বিষয়ে তিনি নিশ্চিত।

 

"