পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ আলোচনার সুযোগ নেই : উ. কোরিয়া

প্রকাশ : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

জাতিসংঘে নিযুক্ত উত্তর কোরীয় রাষ্ট্রদূত কিম সং জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনায় আর পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ বিষয় নিয়ে কোনো কথা হবে না। আর খুব দীর্ঘ আলোচনারও এখন আর দরকার নেই। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা যায়।

গত বছর পারমাণবিক পরীক্ষা বন্ধ এবং আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা না চালানোর ঘোষণা দেয় উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হয় একটি পারমাণবিক স্থাপনা। এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে ভিয়েতনামে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের বৈঠক কোনো চুক্তি ছাড়াই শেষ হয়। নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা প্রশ্নে অসম্মতির প্রেক্ষাপটে গত ফেব্রুয়ারিতে কিম জং উন ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যকার হ্যানয় সম্মেলন ভেঙে যাওয়ার পর এ আলোচনা প্রক্রিয়া স্থবির হয়ে পড়ে। এ ক্ষেত্রে উত্তর কোরিয়ার ওপর আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা শিথিল করার বিনিময়ে পিয়ংইয়ং তাদের পরমাণু কর্মসূচি পরিত্যাগে আগ্রহী। এ বছরের শেষ নাগাদ নতুন দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে ওয়াশিংটনকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে আসছে পিয়ংইয়ং। তবে একই সঙ্গে তারা একের পর এক তাদের বিভিন্ন ধরনের অস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছে।

এক বিবৃতিতে কিম সং বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে টেকসই সংলাপের প্রস্তাব আসলে প্রক্রিয়া বিলম্বিত করার একটি কৌশল ছিল। এতে করে তারা নিজেদের স্বার্থ হাসিল করেছে। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের দীর্ঘ আলোচনার প্রয়োজন নেই। আর পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে আলোচনা আর হচ্ছে না।

গত মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছিল সামনের বছর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে সামনে রেখে যুক্তরাষ্ট্র উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সংলাপ টেনে নিয়ে যাচ্ছে।

২০১৮ সালের জুন থেকে ডোনাল্ড ট্রাম্প ও কিম জং উন তিনবার বৈঠকে বসেছেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত কার্যকরী কোনো ফল আসেনি। বরং একাধিকবার বাকযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছেন দুই নেতা। গত জুলাইয়ের শেষদিকে প্রথমবারের মতো ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করে উত্তর কোরিয়া। সর্বশেষ ৩১ অক্টোবর ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালায় পিয়ংইয়ং। চলতি বছরে এটি দেশটির ১২তম ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা।

 

"