নির্বাচনের আগে সাইবার হামলার কবলে যুক্তরাজ্যের বিরোধী দল

প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

সাধারণ নির্বাচনের মাত্র কয়েক সপ্তাহ আগে সাইবার হামলার কবলে পড়ার কথা জানিয়েছে যুক্তরাজ্যের বিরোধী দল লেবার পার্টি। মঙ্গলবার দলটির এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, তাদের ডিজিটাল প্ল্যাটফরমকে লক্ষ্য করে বড় ধরনের সাইবার হামলা চালানো হয়েছে। এতে কয়েকটি ক্ষেত্রে নির্বাচনী প্রচারণার গতি কমে গেলেও কোনও গোপনীয় তথ্য বেহাত হয়নি বলে দাবি করেন তিনি। তবে যুক্তরাজ্যের নিরাপত্তা সংস্থাগুলো আগেই নির্বাচনী প্রচারণার সময়ে রাশিয়া ও অন্যদেশগুলোর সাইবার হামলার ঝুঁকির বিষয়ে সতর্ক করে দেয়।

দীর্ঘ টানাপড়েন আর অনিশ্চয়তার পর সম্প্রতি ব্রেক্সিট চুক্তির বিষয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)-জনসন সমঝোতা হলেও ব্রিটিশ পার্লামেন্টে তা অনুমোদন পায়নি। ২৮ অক্টোবর ইইউয়ের পক্ষ থেকে ব্রেক্সিট কার্যকরের পূর্বনির্ধারিত সূচি ৩১ অক্টোবর থেকে ৩ মাস বাড়িয়ে ২০২০ সালের ৩১ জানুয়ারি নির্ধারণ করা হয়। ইউরোপীয় ইউনিয়নের ওই প্রস্তাবে সোমবার আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মতি জানান বরিস জনসন। ২৯ অক্টোবর ব্রিটিশ এমপিরা আগাম নির্বাচনে জনসনের প্রস্তাবে সায় দেন। ফলে আগামী ১২ ডিসেম্বর দেশটির জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ১৯২৩ সালের পর ডিসেম্বরে এটিই হবে প্রথম নির্বাচন।

এই নির্বাচনে ভোটারদের আকৃষ্ট করতে অনলাইনে প্রচার শুরু করে দেশটির প্রধান রাজনৈতিক দলগুলো। এই প্রচার শুরুর পরই রাশিয়া ও অন্য দেশের সাইবার হামলার ঝুঁকি নিয়ে সতর্ক করে দেয় দেশটির নিরাপত্তা সংস্থা।

মঙ্গলবার লেবার পার্টির মুখপাত্র এক বিবৃতিতে জানান, তাদের ডিজিটাল প্ল্যাটফরমকে লক্ষ্য করে বড় আকারের সাইবার হামলা চালানো হয়েছে। এই হামলার বিষয়ে দেশটির জাতীয় সাইবার সিকিউরিটি সেন্টারকে অবহিত করা হয়েছে বলে জানানো হয় এতে। বিবৃতিতে

বলা হয়েছে, হামলায় কয়েকটি ক্ষেত্রে প্রচারণার গতি ধীর হলেও পরে তা ঠিক করা হয়েছে। তবে এই হামলার জন্য নির্দিষ্ট কাউকে দায়ী করা হয়নি।

সাইবার হামলাকে অত্যন্ত গুরুতর আখ্যা দিয়ে লেবার নেতা জেরেমি করবিন বলেছেন, সোমবার এই হামলা শুরুর পর তাদের দলের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সফলভাবে তা ঠেকিয়ে দিতে সক্ষম হয়। তিনি বলেন, ‘তবে এ থেকে আগামী নির্বাচনে কোন সব বিষয়ের মুখোমুখি হতে হবে তার ইঙ্গিত পাওয়া যায়। সার্বিকভাবে এটা নিয়ে আমি খুবই চাপ অনুভব করছি।’

"