পুড়ছে পৃথিবীর ‘ফুসফুস’

আবহাওয়াকে দুষলেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট

প্রকাশ : ২৫ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

‘পৃথিবীর ফুসফুস’খ্যাত পৃথিবীর বৃহত্তম রেইনফরেস্ট অ্যামাজনের দাবানল ঠেকাতে সামরিক বাহিনী মোতায়েন করছে ব্রাজিল। দেশটির প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনারো সেনাবাহিনীকে অ্যামাজনের প্রাকৃতিক সম্পদ, আদিবাসীদের আবাসস্থল ও সীমান্ত এলাকায় গিয়ে জঙ্গলের রেকর্ডসংখ্যক দাবানল নেভানোর নির্দেশ দিয়েছেন। ইউরোপীয় দেশগুলো থেকে প্রবল চাপের পরই এমন পদক্ষেপ নিলেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট।

পাশাপাশি দাবানলকে নিষেধাজ্ঞা জারির ‘অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করা যায় না’ উল্লেখ করে অ্যামাজন নিয়ে বিভিন্ন দেশের প্রতিক্রিয়ার সমালোচনা করেন বোলসোনারো। এর আগে অ্যামাজনের দাবানল নেভাতে কার্যকরী ব্যবস্থা না নিলে দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোর সঙ্গে বড় একটি বাণিজ্য চুক্তি বাতিল করার ঘোষণা দিয়েছিল ফ্রান্স ও আয়ারল্যান্ড। গণমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

এছাড়া ব্রাজিল থেকে মাংস আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়টি ইউরোপীয় ইউনিয়নকে (ইইউ) আমলে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ইইউ কাউন্সিলের বর্তমান প্রেসিডেন্ট ফিনল্যান্ডের অর্থমন্ত্রী। প্রতি ছয় মাস পরপর ইইউ সদস্য রাষ্ট্রগুলোর মধ্য থেকে একটি দেশ ইইউ কাউন্সিলের প্রেসিডেন্টের পদটি পায়।

স্থানীয় সময় গত শুক্রবার টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে অ্যামাজনের দাবানল নেভাতে সশস্ত্রবাহিনী মোতায়েনের ঘোষণা দেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনারো।

বোলসোনারো বলেন, ‘আমি নিজে একজন সেনা হয়ে অ্যামাজন জঙ্গলকে ভালোবাসতে শিখেছি এবং আমি অ্যামাজনকে রক্ষা করতে চাই।’

ব্রাজিল প্রেসিডেন্টের ভাষণের ভাষাকে বিবিসির প্রতিবেদনে অস্পষ্ট বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে ভাষণে অ্যামাজনের সংরক্ষিত এলাকা, আদিবাসীদের আবাসস্থল ও সীমান্ত অঞ্চলে সেনা মোতায়েনের বিষয়টি নির্দিষ্ট করে জানিয়েছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট।

ব্রাজিলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ফার্নান্দো আজেভেদো সেনা মোতায়নের বিষয়টি তদারকি করবেন বলে জানান বোলসোনারো। প্রাথমিকভাবে গতকাল শনিবার থেকে এক মাসের জন্য অ্যামাজনে সেনা মোতায়েন করা হবে বলে জানান ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট।

গত শুক্রবারের টেলিভিশন ভাষণে অ্যামাজন সংরক্ষণে ব্রাজিলের অঙ্গীকারকে প্রশ্নবিদ্ধ করে যারা ‘ভিত্তিহীন তথ্য’ ছড়াচ্ছে, তাদের সমালোচনা করে বোলসোনারো জানান, নিজেদের বেশির ভাগ বনাঞ্চলকে রক্ষা করার মতো ‘আধুনিক আইনি ব্যবস্থা’ ব্রাজিলের রয়েছে।

বোলসোনারো বলেন, ‘আমাদের মনে রাখতে হবে ওই অঞ্চলে (অ্যামাজনে) ২ কোটিরও বেশি ব্রাজিলিয়ান বসবাস করে। কেবল সুরক্ষা নয়, (অ্যামাজনে) উন্নয়ন কর্মকা- পরিচালনার সুযোগ দিতে হয় আমাদের।

এছাড়া অ্যামাজনে দাবানলের হার ১৫ বছর ধরে গড়পড়তা একই রকম রয়েছে বলেও জানান ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট।

বোলসোনারো বলেন, ‘প্রতি বছরের মতো এখন উষ্ণ ও শুষ্ক মৌসুম চলছে। এ সময় বাতাসের বেগ বেশি থাকে। প্রতি বছরই এ সময়টায় দাবানল লাগে। উষ্ণতম বছরগুলোতে দাবানল লেগেই থাকে।’

ব্রাজিলের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা দ্য ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর স্পেস রিসার্চ জানিয়েছে, এ বছরের প্রথম আট মাসে অ্যামাজনে ৭৫ হাজারের বেশি দাবানলের ঘটনা রেকর্ড করা হয়েছে। এর মধ্যে গত সপ্তাহেই ১০ হাজারটি আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে।

 

"