ঈদে কাশ্মীর উপত্যকাবাসীর জন্য মোদি সরকারের ভাবনা

প্রকাশ : ০৯ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

‘সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে। আপনাদের নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব আমাদের।’ গত বুধবার দক্ষিণ কাশ্মীরের শোপিয়ান এলাকার বাসিন্দাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এভাবেই তাদের আশ্বস্ত করেন ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল।

গত বুধবার পর্যন্ত টানা তৃতীয় দিনের মতো জম্মু-কাশ্মীরে বহাল ছিল কেন্দ্রীয় সরকারের জরুরি অবস্থা। ভারতীয় গণমাধ্যম দ্য হিন্দুর এক প্রতিবেদনে সরকারের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, কাশ্মীর উপত্যকায় কেন্দ্রীয় সরকারের এমন কড়া বিধিনিষেধ খুব সহসাই শেষ হচ্ছে না। তবে আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে কাশ্মীরবাসীকে ১২ আগস্ট নাগাদ মোদি সরকার কিছুটা স্বস্তি উপহার দিতে পারে বলে জানান ওই সরকারি কর্মকর্তা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘এ বিষয়ে বিস্তারিত এ মুহূর্তে বলতে পারছি না। তবে ঈদ উপলক্ষে কাশ্মীরের জনগণকে স্বস্তি দিতে সরকারের কিছু পরিকল্পনা রয়েছে।’ এছাড়া জম্মু ও কাশ্মীরের পুলিশকে ‘নিরস্ত্রীকরণ’ করার কোনো পরিকল্পনা কেন্দ্রীয় সরকারের নেই বলেও জানান ওই কর্মকর্তা।

গত সোমবার পার্লামেন্টে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ’র হাতে ধরা একটি ফাইলের ছবি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই কাশ্মীর উপত্যকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নিরস্ত্রীকরণ বিষয়ে আলোচনার সূত্রপাত হয়।

ওই ফাইলে লেখা ছিল, ‘পোশাকধারী সদস্যদের একটি অংশের সহিংসভাবে অবাধ্য আচরণ করার আশঙ্কা’। গত সোমবার অমিত শাহকে একটি ‘অতি গোপনীয়’ নথি হাতে পার্লামেন্টে ঢুকতে দেখা যায়।

গত বুধবার ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল কাশ্মীর উপত্যকার নিরাপত্তা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে যান। তিনি সেখানকার আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেন। জম্মু ও কাশ্মীর অঞ্চলের টেলিফোন লাইন ও ইন্টারনেট সেবা বন্ধ করে রাখা হয়েছে।

ফলে ভারতের অন্য কোনো রাজ্যের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছেন না কাশ্মীর উপত্যকার মানুষ।

কাশ্মীর উপত্যকা সফরকালে অজিত দোভাল স্থানীয় জনগণকে বলেন, ‘সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে। আপনাদের নিরাপত্তার দেখভাল করার দায়িত্ব আমাদের।’ এছাড়া কাশ্মীর উপত্যকা অঞ্চলের সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্স (সিআরপিএফ) ও জম্মু-কাশ্মীরের প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন অজিত দোভাল। এ সময় তিনি এ উপত্যকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখায় সিআরপিএফ ও প্রশাসনের ভূমিকার প্রশংসা করেন।

 

 

"