ভেনিজুয়েলায় নিষেধাজ্ঞা

আরো কঠোর ব্যবস্থার ডাক বোল্টনের

প্রকাশ : ০৮ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভেনিজুয়েলা সরকারের ওপর বিস্তৃত পরিসরে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপরই দেশটির প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর ওপর আরো কঠোর আন্তর্জাতিক ব্যবস্থার ডাক দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন।

তিনি বলেন, ব্যবস্থা নেওয়ার এখনই সময়। ভেনিজুয়েলায় শান্তিপূর্ণ গণতান্ত্রিক উত্তরণ ত্বরান্বিত করতে যুক্তরাষ্ট্র সক্রিয়ভাবে মাদুরোকে অর্থনৈতিকভাবে বিচ্ছিন্ন করে ফেলার ব্যবস্থা নিচ্ছে।

বিবিসি জানায়, সোমবার রাতে ট্রাম্প ভেনিজুয়েলায় নিষেধাজ্ঞা-সংক্রান্ত একটি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেন। এ নিষেধাজ্ঞার আওতায় যুক্তরাষ্ট্রে ভেনিজুয়েলা সরকারের সব সম্পত্তি জব্দ করা হবে এবং সব ধরনের লেনদেন নিষিদ্ধ করা হবে।

বিবিসি জানায়, ট্রাম্পের নতুন এ নিষেধাজ্ঞার কারণে অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি বিপদে পড়তে হবে মাদুরো সরকারকে। ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোকে পদত্যাগে বাধ্য করতে চাপ বাড়ানোর নতুন এ কৌশল অবলম্বন করেছে ওয়াশিংটন।

যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের প্রায় ৫০টি দেশ প্রেসিডেন্ট হিসেবে মাদুরোকে স্বীকৃতি দেয় না। বেশির ভাগ পশ্চিমা দেশও ওই তালিকায় রয়েছে।

বরং তারা বিরোধী দলের (ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি) নেতা হুয়ান গুইদোকে সমর্থন দিয়েছেন, যিনি গত জানুয়ারিতে নিজেকে ভেনিজুয়েলার অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন। ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা আরোপের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়ে মঙ্গলবার ভেনিজুয়েলার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র এরই মধ্যে অবৈধভাবে ভেনিজুয়েলার সামনে অর্থনীতি, অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক প্রতিবন্ধকতা তৈরি করা শুরু করেছে।

 

 

"