ভারত বিপজ্জনক খেলা খেলছে

পাকিস্তান

প্রকাশ : ০৭ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলসহ উপত্যকায় সেনা বাড়ানো এবং কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রীদের গৃহবন্দি করা নিয়ে উত্তপ্ত রাজনৈতিক পরিস্থিতির মধ্যে এ নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে পাকিস্তান। ‘ভারত বিপজ্জনক খেলা খেলছে। আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতার ক্ষেত্রে এর পরিণতি ভয়ংকর হবে’ বলে সতর্ক করেছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি। জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা তুলে নেওয়ার ভারতীয় পদক্ষেপকে ‘অবৈধ’ বলে নিন্দা জানিয়ে সক্রিয়ভাবে এর বিরোধিতা করার সংকল্প ব্যক্ত করেছে পাকিস্তান।

ভারতের বিরোধীদলগুলোর তুমুল আপত্তির মধ্যেই ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ গত সোমবার পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে রাষ্ট্রপতির আদেশে সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ রদ করার কথা জানান। সংবিধানের এ অনুচ্ছেদ বলেই ভারত শাসিত জম্মু ও কাশ্মীর এতদিন স্বায়ত্ত্বশাসনের বিশেষ মর্যাদা পেয়ে আসছিল।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকার তা বাতিল করে জম্মু ও কাশ্মীরে রাষ্ট্রপতির শাসন জারির পাশাপাশি ‘জম্মু ও কাশ্মীর সংরক্ষণ বিল’ নামে নতুন একটি প্রস্তাব পার্লামেন্টে উপস্থাপন করেছে। ফলে জম্মু-কাশ্মীর যে শুধু বিশেষ মর্যাদা খোয়াল তাই নয়, রাজ্যের স্বীকৃতিও এখন হারানোর পথে। সরকারের আনা বিলটি পাস হলে জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ কেন্দ্রশাসিত দুটি আলাদা অঞ্চল হবে। জম্মু ও কাশ্মীরে আইনসভা থাকবে, তবে লাদাখে তা থাকবে না।

?পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি বলেন, ‘পাকিস্তান মোদি সরকারের এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে এবং এ প্রচেষ্টা আটকাতে সম্ভাব্য সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’ ভারত কাশ্মীর নিয়ে জাতিসংঘ প্রস্তাবনা লঙ্ঘন করেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

গত সোমবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘ভারত এককভাবে কাশ্মীরের মর্যাদা বদলাতে পারে না। তাদের এ সিদ্ধান্ত মেনে নেবে না জম্মু-কাশ্মীরের মানুষ এবং পাকিস্তান। কাশ্মীরের রাজনৈতিক, কূটনৈতিক এবং নৈতিক বিকাশের জন্য পাকিস্তান লড়াই চালিয়ে যাবে।’ ভারতের পার্লামেন্টেও সরকারের সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধিতা হয়েছে এবং দেশটির কয়েকজন আইন বিশেষজ্ঞ একে সংবিধানের উপর আক্রমণ বলে বর্ণনা করেছেন।

 

"