তথ্য নিরাপত্তার দায় নিয়ে বন্ধ হচ্ছে গুগল প্লাস

প্রকাশ : ১০ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং প্ল্যাটফর্ম গুগল প্লাস বন্ধ করে দিচ্ছে এর মালিক প্রতিষ্ঠান গুগল। ব্যবহারকারীদের ডাটা উন্মুক্ত হয়ে যাওয়ার পর এমন পদক্ষেপ নিচ্ছে মার্কিন ওয়েব জায়ান্টটি। গুগলের পক্ষ থেকে বলা হয়, এর সফটওয়্যারের একটি ত্রুটির কারণে মানুষের ব্যক্তিগত তথ্য তৃতীয় পক্ষগুলো দেখার সুযোগ পেয়ে গেছে। এ ঘটনায় পাঁচ লাখের মতো ব্যবহারকারী আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন বলে জানিয়েছে গুগল।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদন মতে, গুগল এ বিষয়ে চলতি বছর মার্চেই জানত, কিন্তু সেসময় এ তথ্যটি চেপে গেছে। দৈনিকটিতে গুগলের অভ্যন্তরীণ একটি বার্তার উদ্ধৃতি প্রকাশ করা হয়। ওই খবর প্রকাশ করলে বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গেই নীতিনির্ধারকদের নজর টানবেÑ বার্তায় এমন কথা বলা হয়েছে। এখন অবশ্য গুগলের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছেÑ বিষয়টি সেসময় প্রকাশ করার মতো এত গুরুতর ছিল না।

আমাদের প্রাইভেসি অ্যান্ড ডাটা প্রটেকশন অফিস বিষয়টি যাচাই করেছে, কী ধরনের ডাটা এর সঙ্গে জড়িত, জানানোর জন্য আমরা কি সঠিকভাবে ব্যবহারহারকারীদের শনাক্ত করতে পারব কিনা, কোনো অপব্যবহারের প্রমাণ আছে কিনা আর কোনো ডেভেলপার বা কোনো ব্যবহারকারী এর জবাবে কোনো পদক্ষেপ নিয়েছেন কিনা এসব বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

২০১১ সালে গুগল প্লাস যাত্রা শুরু করে। দ্রুতই এটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকের সঙ্গে পাল্লা দিতে গুগলের ব্যর্থ চেষ্টা হিসেবে পরিচিত হয়ে ওঠে। কয়েক বছর ধরেই ধারণা করা হচ্ছিল এই প্ল্যাটফর্মটি শেষ অবধি বন্ধই করে দেওয়া হবে। এবার গুগল এই প্ল্যাটফর্ম একেবারেই বন্ধ করতে যাচ্ছে- এমনটাই বলা হয়েছে বিবিসির প্রতিবেদনে।

গুগলের পক্ষ থেকে বলা হয়, তারা বর্তমানে এই সফটওয়্যার ব্যবহারকারী ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য প্রাইভেট গুগল প্লাসচালিত নেটওয়ার্ক ব্যবহারের সেবা দেওয়া অব্যাহত রাখবে। গুগল প্লাস প্ল্যাটফর্মে কতটা ডাটা ব্যবহৃত হয় তা নিয়ে তথ্য জানাতে এত দিন অনিচ্ছুক ছিল গুগল। কিন্তু ডাটা উন্মুক্ত হয়ে যাওয়ার ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটি এ বিষয়ে তথ্য দিয়েছে। গুগলের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘গুগল প্লাস-এর ভোক্তাদের জন্য রাখা সংস্করণের ব্যবহারের মাত্রা আর সম্পৃক্ততা এখন খুবই কম : ৯০ শতাংশ গুগল প্লাস ব্যবহারকারীর বেলায় এই প্ল্যাটফর্ম ব্যবহারের সেশন পাঁচ সেকেন্ডেরও কম।’ এই খবর প্রকাশের পর গুগলের মূল প্রতিষ্ঠান অ্যালফাবেটের শেয়ারমূল্য ১.২৩ শতাংশ পড়ে যায়।

"