রকস্টার ক্রিস ব্রাউনের বাড়িতে ধর্ষিতা যুবতী বিতর্ক হলিউডে

প্রকাশ : ১২ মে ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মার্কিন রকস্টার ক্রিস ব্রাউনের বাড়িতে লাগাতার ধর্ষিতা হয়েছিলেন তিনি। গত বুধবার লস এঞ্জেলেস পুলিশ ডিপার্টমেন্ট বা এলএপিডিতে এই অভিযোগ দায়ের করেছেন এক যুবতী। নির্যাতিতার অভিযোগ, গত বছর ২৩ ফেব্রুয়ারি ওয়েস্ট হলিউডের একটি নাইট ক্লাবে গিয়েছিলে তিনি। সেখানে ক্রিস ব্রাউন, তার বন্ধু তথা র‌্যাপ গায়ক লোয়েল গ্রিসম জুনিয়র ওরফে ইয়ং লো এবং ক্রিসের এক বান্ধবীর সঙ্গে পরিচয় হলে তাদের সঙ্গে একটি রেকর্ডিং স্টুডিওতে গিয়েছিলেন তিনি। স্টুডিওতে পৌঁছতেই তার সেলফোন কেড়ে নেন ক্রিসরা। ফোন ফেরত পেতে হলে যুবতীকে নিজের বাড়িতে যেতে বলেন ক্রিস। যুবতীর অভিযোগ, ক্রিসের বাড়ি যেতেই তাকে বন্দি করে ফেলেন ক্রিস, লোয়েল এবং তাদের বান্ধবী। তিনি বাধা দিলেও তার সঙ্গে যৌন সংসর্গ করে লোয়েল এবং তার বান্ধবী। তারপর তাকে আটকে রেখে লাগাতার ধর্ষণ করে লোয়েল। তিনি পালানোর চেষ্টা করলে ক্রিস তাকে বন্দুক উঁচিয়ে ভয় দেখান।

যুবতীর আরো অভিযোগ, ক্রিসের বাড়িতে অনেক যুবতীকে তিনি দেখেছেন, যারা প্রত্যেকেই কোকেন এবং মারিজুয়ানায় আচ্ছন্ন। ক্রিসের কাছে প্রচুর আগ্নেয়াস্ত্রও রয়েছে বলে অভিযোগ তার। যুবতীর মা মেয়ের ফোনে না পেয়ে এলএপিডিতে অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ যুবতীর সেলফোনের টাওয়ার লোকেশন ট্র্যাক করে ক্রিসের বাড়িতে সেটির সন্ধান পায়। কিন্তু পুলিশ সেখানে তল্লাশি চালাতে গেলে ক্রিস তাদেরকেও বন্দুক নিয়ে হুঁশিয়ারি দেন। পরে কোনোক্রমে ওই যুবতী ক্রিসের বাড়ি থেকে পালিয়ে গিয়ে পুলিসে ক্রিস এবং লোয়েলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। তার শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে। যুবতীর আইনজীবী গ্লোরিয়া অলরেড বলেছেন, গত বছর ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে এলএপিডি। তার মক্কেল রীতিমতো আতঙ্কিত বলেও জানান অলরেড। অন্যদিকে, ক্রিসের আইনজীবী মার্ক গেরাগস, সব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বলেছেন, ক্রিসের মতো বড় গায়কের বিরুদ্ধে বদনাম ছড়াতেই এই ষড়যন্ত্র। অলরেড তার কাছে মামলা নিষ্পত্তির জন্য ১৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দাবি করেছেন বলেও পাল্টা অভিযোগ করেছেন গেরাগস।

 

"