গেইল-সরফরাজ অগ্নিপরীক্ষা আজ

প্রকাশ : ৩১ মে ২০১৯, ০০:০০

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বিশ্বকাপে ৫০০ রানের একটি মনস্তাত্ত্বিক চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছে ক্রিস গেইলের ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আজ চ্যালেঞ্জের প্রথম ম্যাচ। প্রতিপক্ষ সরফরাজের পাকিস্তান। কিন্তু উইন্ডিজের এই চ্যালেঞ্জকে তুরি মেরে উড়িয়ে দিয়েছেন পাকিস্তান অধিনায়ক। বরং উচ্চকণ্ঠেই বলেছেন, বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের মাটিতে পাকিস্তান নতুন করে নিজেদের প্রমাণ করবে। আজই বিশ্বকাপের ময়দানে ব্যাটে-বলের লড়াইয়ে নেমে পড়ছে পাকিস্তান। গতকাল মাঠের অনুশীলন শেষে সরফরাজ বলেছেন, ‘ইংল্যান্ডের মাটিতে পাকিস্তানের অতীত রেকর্ড খুব ভালো। আমাদের এখানে খেলতে খুব ভালো লাগে। কারণ এখানে উইকেট দারুণ হয়। এই ধরনের উইকেটে আমরা খেলতে পছন্দ করি। বোলার এবং ব্যাটসম্যান, দুজনের ক্ষেত্রেই বাড়তি সুবিধা রয়েছে।’ পাশাপাশি, ইংল্যান্ডের সমর্থনকেও একটা ইতিবাচক বলে সরফরাজ আরো বলেছেন, ‘এখানে আমাদের প্রচুর সমর্থক। দেশের মতোই মনে হয়। যেটা মাঠে বাড়তি প্রেরণা দেয়।’

উইন্ডিজের মতোই পাকিস্তানের প্রথম ম্যাচেই অগ্নিপরীক্ষা। কারণ প্রস্তুতি ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৪২১ রান তুলে গেইলরা বিশ্বকাপকে চমকে দিয়েছেন। যা দেখে আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে, বিশ্বকাপে কোনো টিম যদি ৫০০ রান করে ফেলতে পারে তা হলে সেটা হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজই। গতকাল অনুশীলন থেকে হোপ বলেছেন, ‘৫০০; আমায় জিজ্ঞাসা করেন যে, আমরা পারব কি না। তা হলে বলব, হ্যাঁ আমরাই পারব। কারণ, আমাদের টিমে ১০ নম্বর পর্যন্ত ব্যাটসম্যান রয়েছে।’

পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি নিজের দেশকে বাজি ধরে বলেছেন, ‘ওয়ানডেতে যেকোনো সময়, যেকোনো টিম যে কাউকে হারিয়ে দিতে পারে। আমাদের টিমও সেভাবেই অনেক অঙ্ক বদলে দিতে পারে। নিজেদের দিনে আমরা যেকোনো টিমকে হারিয়ে দিতে পারি।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে অলরাউন্ডারের সংখ্যা প্রচুর। ফলে বল বা ব্যাট হাতে, যে কেউ ম্যাচ জিতিয়ে দিতে পারেন। ক্যারিবিয়ানদের দাপট সদ্য দেখেছে আইপিএল। কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে আন্দ্রে রাসেল প্রায় সব অবিশ্বাস্য ম্যাচই জিতিয়ে দিয়েছিলেন। সঙ্গে আবার রয়েছেন ব্যাটিং দাবনখ্যাত ক্রিস গেইল। এই দুজন যদি সেরা ফর্মে থাকেন তা হলে পাকিস্তান বোলারদের কপালে কিন্তু দুঃখ আছে। আর এখানেই চ্যালেঞ্জ আমির-ওয়াহাব রিয়াজ-হাসান আলিদের।

কিন্তু মজার হলো পাকিস্তান এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ দুটো টিমই খুব অনিশ্চিয়তায় ভরা। কবে তারা দারুণ খেলবে, কবে চরম ব্যর্থ হবে, দুটো টিমই জানে না। বিশ্বকাপের আগে ইংল্যান্ডের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে পাকিস্তান। কিন্তু পাক ব্যাটসম্যানরা ৩৫০ রান করেছিলেন, এটাও মাথায় রাখতে হবে।

পাকিস্তান-উইন্ডিজ ম্যাচ নটিংহ্যামের টেন্টব্রিজে। অনেকের মতেÑ ম্যাচটি হতে পারে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ; ফের হতে পারে সাদামাটাও। পাকিস্তান আজ নিজেদের শক্তি প্রদর্শন করতে পারে কি না এই নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে। কারণ গত ১০টি ওয়ানডে ম্যাচে হেরেছে পাকিস্তান। বিশ্বকাপের প্রস্তুতিমূলক ম্যাচেও ভালো যায়নি পাকিস্তান। বৃষ্টির কারণে বাতিল হয়েছে বাংলাদেশের বিপক্ষের ম্যাচটি। এসব সত্ত্বেও বিম্বকাপে পাকিস্তানের ভালো করার সম্ভাবনা বয়েছে। রয়েছে ইতিহাসও। ২০১৭ সালের আইসিসি চ্যাম্পিয়ন ট্রফিতে তরুণদের দল নিয়ে বেশ ভালো করেছিল পাকিস্তান। তাই এ বিশ্বকাপেও চমক হয়ে দাঁড়াতে তারুণ্যনির্ভর অবিশ্বাস্য পাকিস্তান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ এই আলোÑ এই আঁধারিতে ঢাকা পড়ছে। তাদের অনেক ভালো করার যেমন দুঃসাহসী-তা-বী ব্যাটিং লাইনআপ আছে; আবার আছে পাহাড় ধসের মতো বালির টিবিও। সুতারাং গেইল-সরফরাজদের অগ্নিপরীক্ষাটা জমবে বেশ।

 

"