কেন খাবেন অ্যালোভেরা

প্রকাশ : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

স্বাস্থ্য ডেস্ক

অ্যালোভেরা (Aloe Vera) বা ঘৃতকুমারী একটি রসাল ক্যাকটাস জাতীয় ভেষজ উদ্ভিদ। ৪ হাজার বছরেরও বেশি সময় ধরে মানবজাতির কল্যাণে এটি ব্যবহৃত হয়ে আসছে। উন্নত প্রযুক্তির ফলে বর্তমানে আরো ব্যাপক হারে বিভিন্নভাবে এর ব্যবহারের সুযোগ হয়েছে। তাজা অ্যালোভেরা ছাড়াও প্রসেস করা অ্যালোভেরা জেল (gel), Rym (juice), লোশন (lotion), সাবান ও তেল ইত্যাদি বিভিন্ন অবস্থায় এটি ব্যবহৃত হয়। মেয়েদের রূপচর্চায় এর কদর অনেক। তাই মেয়ে মহলে কমবেশি সবাই এর সম্পর্কে জানে। দুনিয়াব্যাপী ভেষজ উদ্ভিদ হিসেবে অ্যালোভেরা একটি পরিচিত নাম। পোড়া ঘায়ে এর ব্যবহার খুবই জনপ্রিয়। কোথাও পুড়ে গেলে অ্যালোভেরা গাছ থেকে একটি রসাল পাতা নিয়ে তার সবচেয়ে পুরু অংশের, দুই পাশের সবুজ খোসা ছড়িয়ে এবং নিংড়ে ভেতরের সামান্য জেল বের করতে হবে। এ জেল পোড়া অংশে লাগিয়ে আঙুল দিয়ে হালকাভাবে ঘষলে ব্যথা ক্রমেই সেরে যায়। দিনে দু-দুবার করে কয়েক দিন অ্যালোজেল মাখলে ঘা ধীরে ধীরে শুকিয়ে আসে এবং পোড়া চামড়া তার আগের রং ফিরে পায়। তেমনি চামড়ার কাটাছেঁড়া ও ঘষা খাওয়া (abrasion) নিরাময়ে এবং চামড়ায় র‌্যাশ (rash) হলেও অ্যালোভেরাতে বেশ উপকার হয়।

ত্বকের সৌন্দর্যচর্চায় অ্যালোভেরার কোনো বিকল্প নেই। অ্যালোজেলের ছোঁয়ায় ত্বক হয়ে ওঠে কোমল, মসৃণ, উজ্জ্বল ও টানটান। অ্যালোভেরায় আছে বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন ও ২০ প্রকার খনিজ পদার্থ। অ্যালোজেল এসব উপাদানসহ এতটাই সমৃদ্ধ যে, চামড়ার কোলাজেন (collagen) ও ইলাস্টিন (elastin) আঁশগুলো পুনর্গঠিত করে ত্বককে করে সুন্দর, শক্ত ও আকর্ষণীয়। অ্যালোজেল অক্সিজেন সরবরাহ বাড়িয়ে চামড়াকে উজ্জ্বল করে। অ্যালোজেল বার্ধক্য নিরোধক হিসেবে কাজ করে এবং বয়স ধরে রাখার কাজে ব্যবহৃত হয়। অ্যালোজেল ব্যবহারে মুখের ব্রণ (acne) ও দাগ (blemish) নির্মূল হয়।

অ্যালোভেরা তেল ব্যবহার করলে মাথায় চুলের পরিমাণ বেড়ে গিয়ে সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়। নিয়মিত অ্যালোভেরার রস (Aelo juice) পান করলে পেটের অনেক সমস্যা থাকে না। এটি কোষ্ঠকাঠিন্য দূরীকরণে অনেক কার্যকর।

অ্যালোভেরা একটি প্রয়োজনীয় ভেষজ উদ্ভিদ। বিভিন্ন উপকারে তা কাজে লাগে। আমাদের প্রত্যেকের বাসায় অন্তত একটি অ্যালোভেরা গাছ থাকা দরকার। একজন হিতকর বন্ধুর মতো বিশেষ সম্পদ হিসেবে নীরবে পাশে থেকে সাহায্য করবে। ইনডোর প্লান্ট হিসেবেও এটি একই সঙ্গে বাসার শোভাবর্ধন করতে পারে। এক কথায়, অ্যালোভেরার কোনো তুলনা নেই।

 

 

"