রাজন হত্যা

১২ জনের ফাঁসি

প্রকাশ : ০৯ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে চাঞ্চল্যকর রাজন (২৪) হত্যা মামলার রায়ে ১২ আসামিকে মৃত্যুদন্ডাদেশ দিয়েছেন টাঙ্গাইলের স্পেশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালত। গতকাল মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আদালতের বিচারক ওয়াহিদুজ্জামান সিকদার এ রায় ঘোষণা করেন। মৃত্যুদন্ড প্রাপ্তরা হলেন-টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার ভালকুটিয়া গ্রামের ছাইফুল, মোমিন, নিজাম, আবু বকর, হানু, বাবু, সিরাজ, ওহাব, আবদুুল মজিদ, মজনু, নুরুল ইসলাম ও মজিদ। এদের মধ্যে চার আসামি পলাতক রয়েছেন। এরা হলেন-আবদুুল মজিদ, মজনু, নুরুল ইসলাম ও মজিদ।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মুলতান উদ্দিন জানান, ২০১৪ সালের ১৩ এপ্রিল সকাল ৭টার দিকে দন্ডিত আসামিরা ভূঞাপুর উপজেলার ভালকুটিয়া গ্রামের লাল মিয়ার বাড়ির ঘরের বেড়া ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে। এরপর লাল মিয়ার ছেলে কলেজছাত্র রাজনকে (২৪) ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথায় কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে তাকে ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি ঘটলে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। পরে নিহত রাজনের বাবা লাল মিয়া বাদী হয়ে পরের দিন ১৯ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ তদন্ত শেষে ১২ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দায়ের করেন এবং সাত আসামিকে অব্যাহতি দেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে ১২ আসামির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত তাদের মৃত্যুদন্ডাদেশ প্রদান করেন।

রায় ঘোষণার পর আদালত প্রাঙ্গণে কান্নার রোল পড়ে যায়। এ সময় কথা হয় রাজনের বাবা ও মায়ের সঙ্গে। লাল মিয়া বলেন, ‘আমার ছেলে হত্যার বিচার পেয়েছি। এখন দ্রুত রায় কার্যকর হলে আমার সন্তানের আত্মা শান্তি পাবে। এর ফলে প্রমাণিত হলো অপরাধ করলে পার পাওয়া যাবে না।’ রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন টাঙ্গাইলের স্পেশাল পিপি অ্যাডভোকেট মুলতান উদ্দিন। আসামিপক্ষে ছিলেন শামীমুল আখতার।

"