সালমান শাহর মৃত্যু রহস্য নিয়ে ফেসবুকে তোলপাড় : ‘সালমান শাহ খুন হইছে’!

কে এই রুবি

প্রকাশ : ০৮ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

‘সত্য কখনো চাপা থাকে না। এবার রুবি নিজ মুখে শিকার করলেন সালমান শাহ আত্মহত্যা করে নাই’-শিরোনামের একটি ভিডিও গতকাল ইউটিউবে প্রকাশের পর তা ফেসবুকসহ অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ঝড় তুলেছে। ‘সালমান শাহ আত্মহত্যা করে নাই, সালমান শাহ খুন হইছে। আমার হাজব্যান্ড করাইছে এটা আমার ভাইরে দিয়ে, এটা সামিরার (সালমানের স্ত্রী) ফ্যামিলি করাইছে। আর সব ছিল চায়নিজ মানুষ।’ প্রকাশিত

ভিডিওতে এমন দাবি করলেন রুবি নামের এক নারী।

জানা গেছে, সালমান শাহ? ওই নারীকে আন্টি ডাকতেন। রুবির বিউটি পার্লার ছিল। সালমান ও সামিরার সঙ্গে তার বেশ ভালো সম্পর্ক ছিল। সালমান মারা যাওয়া পর অনেকের মতো রুবিকেও পুলিশ সন্দেহ করে। কিন্তু ঘটনার সঙ্গে তার সংশ্লিষ্টতার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। সালমান মারা যাওয়ার পর থেকে রুবি বিদেশে আছেন। এর আগে অনেকবার দাবি করেন, সালমানের মৃত্যুর ব্যাপারে কিছু জানেন না তিনি। তবে ভিডিওতে তিনি আতঙ্কের কথা বলছেন। রুবি জানান, জীবন হারানোর আশঙ্কায় আছেন তিনি। তার দাবি, সালমান শাহকে যে হত্যা করা হয় তার প্রমাণ তার কাছে আছে। তাই তাকেও মেরে ফেলা হতে পারে। কেন খুন করা হতে পারে রুবিকে? তার ভাষ্যে, ‘কারণ আবার (সালমানের মৃত্যুরহস্য) কেস ওপেন হইছে।’

ঢাকাই ছবির অমর নায়ক সালমান শাহ। তার স্বল্পসময়ের ক্যারিয়ারে অভাবনীয় সাফল্য যেমন গল্প হয়ে আছে ইন্ডাস্ট্রিতে, তেমনি তার অকালমৃত্যুও রহস্যের মিথ হয়ে আছে। ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর নিজ বাসভবনের শোয়ার ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় সালমানের মরদেহ। ঘটনাটি আত্মহত্যা হিসেবে বিবেচনায় নিয়ে পুলিশ অপমৃত্যুর মামলা করলে তাতে আপত্তি জানায় পরিবার। এরপর সালমানের স্ত্রী সামিরা হক, চলচ্চিত্র প্রযোজক ও ব্যবসায়ী আজিজ মোহাম্মাদ ভাইসহ ১১ জনকে সালমান শাহর মৃত্যুর জন্য দায়ী করে হত্যা মামলা দায়ের করে সালমানের পরিবার। অন্য অভিযুক্তরা হলেন সামিরার মা লতিফা হক লুসি, রিজভী আহমেদ ওরফে ফরহাদ, সহকারী নৃত্যপরিচালক নজরুল শেখ, ডেভিড, আশরাফুল হক ডন, রাবেয়া সুলতানা রুবি, মোস্তাক ওয়াইদ, আবুল হোসেন খান ও গৃহকর্মী মনোয়ারা বেগম।

এই মামলা নিয়ে গত ২১ বছর ধরে জিইয়ে আছে রহস্য। এখনো নিশ্চিত হওয়া গেল না সত্যি সালমান শাহ আত্মহত্যা করেছিলেন নাকি তাকে খুন করা হয়েছিল। এরই মধ্যে আমেরিকা প্রবাসী নারী রাবেয়া সুলতানা রুবির ভিডিওটি সালমানের মৃত্যুর রহস্যের নতুন মোড় সৃষ্টি করে। সেখানে তিনি দাবি করেছেন, সালমান শাহ আত্মহত্যা করেননি। তাকে খুন করা হয়েছিল। সেই খুনের সঙ্গে জড়িত সালমানের স্ত্রী ও তার বাড়ির লোকজন। খুনের সঙ্গে আরো জড়িত রুবির ছোট ভাই ও তার স্বামী। ভিডিও বার্তায় রুবি অনুরোধ করেন সালমান শাহের মা নীলা চৌধুরীকে, তিনি যেন সালমান খুনের মামলাটি পুনরায় তদন্তের ব্যবস্থা করেন। রুবি নিজে এই খুনের সাক্ষ্য দেবেন।

এরই মধ্যে এই ভিডিও ভাইরাল হয়ে গেছে অনলাইনে। সালমানভক্তরা নিজেদের ওয়ালে ভিডিওটি শেয়ার করে সালমানের মৃত্যুর আসল রহস্য উদ্ঘাটন করতে সরকার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অনুরোধ করেন। পাশাপাশি আলোচিত হচ্ছে ভিডিও প্রকাশকারী রাবেয়া সুলতানা রুবির নাম। সবাই জানতে চাইছেন কে এই রুবি? কেন এত দিন পর তিনি এভাবে মুখ খুলতে বাধ্য হলেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এই রুবি সালমান খুনের মামলার ৭ নম্বর আসামি। রাবেয়া সুলতানা ওরফে রুবি থাকতেন সালমানের ফ্ল্যাটে অর্থাৎ ইস্কাটন প্লাজার উত্তর পাশের ভবনে। তিনি রাজনীতিবিদ, সাবেক মন্ত্রী আবদুর রশিদের মেয়ে। প্রয়াত ক্যাপ্টেন জামিল ছিলেন তার স্বামী। জিয়াউর রহমান মারা যাওয়ার পর যে ১৩ জন সেনা কর্মকর্তাকে ফাঁসির কাষ্ঠে ঝোলানো হয় তার স্বামী ছিলেন তাদের একজন। বর্তমানে এক চীনার সঙ্গে সংসার করছেন। ক্যাপ্টেন জামিলের সংসারে জন্ম নেওয়া ছেলে ভিকিকে নিয়ে ৩১ বছর আগে তিনি এই চীনাকে বিয়ে করেন। সালমানের মৃত্যুর পর বেশ কয়েক বছর পর তিনি আমেরিকায় পাড়ি দেন। সেখানেই স্বামী-সন্তান নিয়ে বাস করছেন তিনি। ঢাকায় তিনি মে-ফেরার নামক একটি বিউটি পার্লারের স্বত্বাধিকারী ছিলেন। তার স্বামী চীনা নাগরিক, সাংহাই রেস্টুরেন্টের মালিক জন চেন রুবির ভাই রুমিকে দিয়ে সালমানকে খুন করিয়েছেন বলে অভিযোগ। সেই রুমিকেও পরে খুন করা হয়েছে।

এই লিংকে দেখুন রুবির ভিডিও বার্তাটি : https://www.facebook.com/salmanshahsritisangshad/videos/1542252665848690/

"