বিশ্ব এখন করোনার ছোবলে মৃত্যুপুরী

এক দিনেই আক্রান্ত ২ লাখের বেশি

প্রকাশ : ০৯ জুলাই ২০২০, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনাভাইরাসের ছোবলে বিশ্ব এখন মৃত্যুপুরী। গেল ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে। ক্রমে সেটা বৈশ্বিক মহামারির রূপ নিয়ে ছড়িয়ে পড়ে। চীন দুই মাসের মধ্যে তাদের দেশে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। ইউরোপের অনেক দেশেও তিন থেকে চার মাসের মধ্যে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে এনেছে। সে তুলনায় এশিয়া ও আমেরিকা মহাদেশের বেশির ভাগ দেশে সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি বেশি দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে। বিশ্বজুড়ে এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এখন ১ কোটি ২০ লাখ। মৃতের সংখ্যা ৫ লাখ ৪৮ হাজার ছাড়িয়েছে। তবে সাড়ে ৬৯ লাখের বেশি রোগী এরই মধ্যে সুস্থ হয়েছেন।

করোনাভাইরাসের তথ্য দেওয়া ওয়ার্ল্ডোমিটার বলছে, দুই দিন আগে আক্রান্তের হার কিছুটা কমলেও নতুন করে ২ লাখের ঘর অতিক্রম করল আক্রান্তের সংখ্যা। বিশ্বব্যাপী এক দিনেই ২ লাখ ৭ হাজার ৭৫২ জন মানুষের দেহে করোনা সংক্রমণ পাওয়া গেছে। আর মারা গেছেন ৫ হাজার ৫১২ জন। অর্থাৎ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ২০ লাখ ৮৮ জনে। আর মৃত্যু বেড়ে হয়েছে ৫ লাখ ৪৮ হাজার ২০৩ জন।

অথচ দুই দিন আগে আক্রান্ত ছিল এক দিনে ১ লাখ ৭১ হাজার ৭৩৬ জন। আর মৃত্যু ৩ হাজার ৫৭৩ জনের। কিন্তু দুই দিন পর তা আবার বেড়ে গেল।

বিশ্বে সর্বাধিক করোনা আক্রান্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। ৫৫ হাজার ৪৪২ জন মানুষের দেহে এদিন করোনা শনাক্ত হয়। যা দুই দিন আগে ছিল ৫০ হাজার ৫৮৪ জনে। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ৯৭ হাজার ৮৪ জন। আর নতুন করে ৯৯৩ জন নিয়ে মৃত্যু বেড়ে হয়েছে ১ লাখ ৩৩ হাজার ৯৯৪ জন। যদিও সাড়ে ১৩ লাখের বেশি ভুক্তভোগী সুস্থ হয়ে বেঁচে ফিরেছেন।

শুধু নিউইয়র্কেই আক্রান্ত ৪ লাখ সাড়ে ২৩ হাজার। যেখানে ৩২ হাজার ২৯২ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে। সংক্রমণে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ শহর ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনা রোগীর সংখ্যা ২ লাখ ৮৭ ছাড়িয়ে গেছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ৫৬৩ জনের।

সংক্রমণ আশঙ্কাজনকহারে দীর্ঘ হয়েই চলেছে টেক্সাসে। এ শহরে আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ১৯ হাজার পেরিয়েছে। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ২ হাজার ৮২৩ জনের। ফ্লোরিডায় সংক্রমণ ২ লাখ ১৪ হাজারের কাছাকাছি। এরই মধ্যে সেখানে ৩ হাজার ৮৪১ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনায়।

নিউ জার্সিতে করোনার শিকার ১ লাখ ৭৭ হাজারের বেশি মানুষ। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ১৫ হাজার ৩৫২ জনের। ইলিনয়সে ১ লাখ সাড়ে ৪৯ হাজার মানুষের দেহে ভাইরাসটির সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৭ হাজার ২৭৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ম্যাসাসুয়েটসসে ১ লাখ ১০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে সংক্রমিতের সংখ্যা। যেখানে ৮ হাজার ২১৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন। অ্যারিজোনায় করোনাক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৫ হাজারের বেশি। এর মধ্যে না ফেরার দেশে সেখানকার ১ হাজার ৯২৭ জন মানুষ।

সংক্রমণ লাখ ছুঁয়েছে জর্জিয়ায়। এখন পর্যন্ত সেখানে করোনার শিকার হয়েছেন ১ লাখ ৪৭০ জন মানুষ। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৮৯৯ জনের।

দেশটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের ধারণা এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে অন্তত ২০ মিলিয়ন (দুই কোটি) মানুষ করোনার শিকার হয়েছেন। দেশটির দ্য সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) বলছে, প্রকৃত তথ্য হলো প্রকাশিত সংখ্যার অন্তত ১০ গুণ বেশি মানুষ করোনার ভয়াবহতার শিকার।

করোনা আক্রান্তের দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে ব্রাজিল। ২৪ ঘণ্টায় ব্রাজিলে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪৮ হাজার ৫৮৪ জনের দেহে। এই সংখ্যাটি দুই দিন আগে ছিল ২১ হাজার ৪৮৬ জনে। ব্রাজিলে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এখন ১৬ লাখ ৭৪ হাজার ৬৫৫ জন। আর এক দিনে ১ হাজার ৩১২ জন নিয়ে মৃত্যু হয়েছে ৬৬ হাজার ৮৬৮ জনের। এদিকে, ব্রাজিলে প্রেসিডেন্ট জেয়ার বলসোনারোও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। প্রেসিডেন্ট নিজেই এটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, তার জ্বর এসেছে এবং গায়ে ব্যথা অনুভব করছেন। নিউইয়র্ক টাইমস পত্রিকা জানিয়েছে, শুধু বলসোনারোই নন তার কয়েকজন সহকারীও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। গত শনিবার জেয়ার বলসোনারো যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সে দেশে মার্কিনদূতের এক ভোজসভায় যোগ দিয়েছিলেন।

তৃতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে মেক্সিকোতে। উত্তর আমেরিকার দেশটিতে এ সময় মারা গেছে ৪৮০ জন। সবমিলিয়ে মেক্সিকোতে এ পর্যন্ত ৩১ হাজার ১১৯ জন করোনায় মারা গেছে। আর আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৬১ হাজার ছাড়িয়ে গেছে দেশটিতে।

?দৈনিক সর্বাধিক মৃত্যুর তালিকায় চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে ভারত। সেখানে নতুন করে ৪৭৯ জন করোনায় মারা গেছে। এ সময় আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ২৩ হাজার বেশি মানুষ। সবমিলিয়ে দেশটিতে মৃত্যু হয়েছে ২০ হাজার ৬৫৩ জনের। আর আক্রান্ত হয়েছে ৭ লাখ ৪৩ হাজারের বেশি মানুষ।

এদিকে বৈশ্বিক মৃত্যুর তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে থাকা যুক্তরাজ্যে নতুন করে ১৫৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে এ পর্যন্ত ৪৪ হাজার ৩৯১ জন করোনায় মারা গেছে। আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ৮৬ হাজারের বেশি মানুষ।

এছাড়া বৈশ্বিক সংক্রমণের দিক দিয়ে চতুর্থ অবস্থানে থাকা রাশিয়ায় নতুন করে মারা গেছে ১৯৮ জন ও আক্রান্ত হয়েছে ৬ হাজার ৩৬৮ জন। সবমিলিয়ে দেশটিতে মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যা যথাক্রমে ১০ হাজার ৪৯৪ ও ৬ লাখ ৯৪ হাজার ২৩০।

মৃত্যু সাড়ে ৫ হাজার

যুক্তরাষ্ট্র : ১,৩৩,৯৯৪

ব্রাজিল : ৬৬,৮৬৮

যুক্তরাজ্য : ৪৪,৩৯১

ইতালি : ৩৪,৮৯৯

মেক্সিকো : ৩২,০১৪

ভারত : ২০,৬৮৫

ইরান : ১২,০৮৪

 

"