বিশ্বে মৃত ৩৯ হাজার, আক্রান্ত ৮ লাখ

নতুন মৃত্যুপুরী স্পেন

কঙ্গোর সাবেক প্রেসিডেন্টের প্রাণহানি * মিয়ানমারে প্রথম মৃত্যু

প্রকাশ : ০১ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনার ধাক্কায় বিপর্যস্ত পুরো বিশ্ব। ইউরোপে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা এখন স্পেনের। কারণ ইতালির পরই স্পেন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ৯১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ হাজার ৭১৬ জনে। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৭ হাজার ৯৫৬ জন। এর মধ্যে ১৬ হাজার ৭৮০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৮৪৬ জন। এ ছাড়া স্পেনে বর্তমানে ৬৩ হাজার ৪৪০ জন আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন। তাদের মধ্যে ৫৮ হাজার ২২৯ জনের অবস্থা সাধারণ। বাকি ৫ হাজার ২৩১ জনের অবস্থা গুরুতর এবং যাদের অধিকাংশই আইসিইউতে রয়েছেন।

এদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৮ হাজার ৭৬৯। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ৩ হাজার ৭১৬ জন। এই ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮ লাখ ১ হাজার ৬৪ জন। এর মধ্যে ১ লাখ ৬৫ হাজার ৩৮৭ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬১ হাজার ৫০ জন।

স্পেনে কার্যত নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। এ মহামারি ঠেকাতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে দেশটির সরকার। কিন্তু এখন আবার বাজারও নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না কর্তৃপক্ষ। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ও এর সরবরাহ ব্যবস্থা পুরোটাই এখন কালোবাজারিদের দখলে। সবকিছুর দাম আকাশছোঁয়া। বেশি টাকা দিয়েও মিলছে না সুরক্ষাসামগ্রী মাস্ক, গ্লাভস ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার।

অবৈধ মজুদ গড়ে তুলেছেন ব্যবসায়ীরা। গত সপ্তাহেই মাদ্রিদের একটি ফ্যাক্টরি থেকে দেড় লাখ মাস্ক উদ্ধার করে দেশটির পুলিশ বাহিনী। পরে সেগুলো সাধারণ মানুষের মধ্যে বিলিয়ে দেওয়া হয়।

দেশজুড়ে লকডাউন পরিস্থিতির মধ্যেও কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে বেশি বেশি লাভ করছেন অসাধু ব্যবসায়ীরা। তাদের দৌরাত্ম্যে দিশাহারা সাধারণ মানুষ। তাদের ডাকাত ও দস্যু বলে অভিহিত করছেন অনেকেই। বলছেন, দিনেদুপুরে ডাকাতি করছেন ব্যবসায়ীরা।

মিয়ানমারে প্রথম করোনা আক্রান্ত একজনের মৃত্যু : প্রথমবারের মতো মিয়ানমারে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। তার বয়স ৬৯ বছর। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার আগে থেকে তিনি ক্যানসারে ভুগছিলেন। গতকাল মঙ্গলবার ইয়াঙ্গুনের একটি হাসপাতালে মৃত্যু হয় তার। মিয়ানমারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে উদ্ধৃত করে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা এসব তথ্য জানিয়েছে।

মিয়ানমারে এ পর্যন্ত ১৪ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। সে দেশের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আক্রান্তদের বেশির ভাগই বিদেশফেরত। গতকাল মারা যাওয়া ব্যক্তিও সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়া থেকে ফিরেছেন। সেখানে ক্যানসারের চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। গত ১৪ মার্চ অস্ট্রেলিয়া থেকে দেশে ফেরার পথে সিঙ্গাপুরেও বিরতি নিয়েছিলেন তিনি।

করোনায় কঙ্গোর সাবেক প্রেসিডেন্টের মৃত্যু : করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন কঙ্গোর সাবেক প্রেসিডেন্ট জ্যাকিস জোয়াকিম ইয়োম্বি অপাঙ্গো। মৃত্যুর সময় তিনি ফ্রান্সে অবস্থান করছিলেন। সেখানেই তিনি করোনা আক্রান্ত হন। মৃত্যুর সময় তার বয়স ছিল ৮১ বছর। বার্তা সংস্থা এএফপিকে তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে পরিবার। জ্যাকিস জোয়াকিম ১৯৭৭ সালে কঙ্গোর ক্ষমতায় আসেন। তিনি ছিলেন কঙ্গো ব্রাজাভাইল পার্টির প্রধান। ১৯৭৯ সালে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়।

তিনি দীর্ঘদিন ফ্রান্সে বসবাস করে আসছিলেন। করোনা আক্রান্ত হলে তাকে রাজধানী প্যারিসের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই তিনি মারা যান বলে জানিয়েছেন তার ছেলে। ভাইরাস সংক্রমিত হওয়ার আগেও তিনি অসুস্থ ছিলেন।

 

"