জাবিতে রংতুলিতে প্রতিবাদ

মন্ত্রণালয়ে ভিসির দুর্নীতির তথ্য

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০

জাবি প্রতিনিধি

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামকে অপসারণের দাবিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলন অব্যাহত রেখেছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। গতকাল শুক্রবার বিকালে আন্দোলনকারীরা ৬০ গজ দীর্ঘ কাপড়ে আঁকা ব্যঙ্গচিত্র নিয়ে মিছিল করেন। এই ব্যঙ্গচিত্রে উপাচার্যের বিরুদ্ধে ওঠা দুর্নীতির অভিযোগসহ বিভিন্ন বিষয় ব্যঙ্গাত্মকভাবে তুলে ধরা হয়। এ ছাড়া শনিবার শিক্ষার্থীরা হলে ঢোকার চেষ্টা করবেন বলে জানিয়েছেন। এদিকে উপাচার্যের বিরুদ্ধে ওঠা ‘আর্থিক কেলেঙ্কারির’ অভিযোগের বিষয়ে তথ্য-উপাত্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীদের মুখপাত্র অধ্যাপক রায়হান রাইন। তিনি বলেন, ‘শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবের সঙ্গে ও ইউজিসির সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হয়েছে। শিক্ষা সচিবের কাছে রাতের মধ্যেই এসব ডকুমেন্টের হার্ডকপি নিয়ে আমাদের প্রতিনিধি যাচ্ছে। আর পরবর্তীতে মহামান্য আচার্যের (রাষ্ট্রপতি) কার্যালয় এবং ইউজিসিতে এসব তথ্য পাঠানো হবে।’

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক খবির উদ্দিন বলেন, ছয় পাতার অভিযোগপত্র এবং সঙ্গে প্রায় ৭০ পাতার নথি সংযুক্ত করা হয়েছে। সেগুলো নিয়ে আন্দোলনকারী শিক্ষক অধ্যাপক তারেক রেজা ও খন্দকার হাসান মাহমুদ শিক্ষামন্ত্রীর একান্ত সচিব ড. আলিম খানের সঙ্গে সাক্ষাতের উদ্দেশে রাতে রওনা দিয়েছেন। তার কাছেই এই নথিগুলো জমা দেওয়া হবে।

নতুন কর্মসূচির বিষয়ে জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম পাপ্পু বলেন, ‘আমরা শনিবার (আজ) বিকাল ৪টায় পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের সামনে জড়ো হব। তারপর সেখান থেকে কাপড়ে আঁকা ব্যঙ্গচিত্র নিয়ে মিছিল করব। এরপর ডেইরি গেটে সেটা প্রদর্শন করা হবে। আমরা প্রশাসনকে দ্রুতই হল খুলে দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। আর কাল শনিবার (আজ) আমরা হলে ঢোকার চেষ্টা করব।’

জানা যায়, গতকাল সকাল থেকে আন্দোলনকারীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের সামনে জড়ো হন। শিক্ষার্থীরা ভবনটির সামনের সড়ক আটকিয়ে কাপড়ে বিভিন্ন ব্যঙ্গাত্মক লেখা ও চিত্র অঙ্কন করেন। পরে বিকাল ৪টার দিকে প্রায় ১০০ শিক্ষার্থী এই ব্যঙ্গচিত্র-সংবলিত কাপড় নিয়ে একটি মিছিল বের করেন। মিছিলটি কলা ও মানবিকী অনুষদ ভবনে গিয়ে শেষ হয়। মিছিল শেষে পরবর্তী কর্মসূচি ঠিক করতে আলোচনায় বসেন আন্দোলনকারীরা। পরে রাত পৌনে ৮টার দিকে কলা ও মানবিকী হল থেকে আরেকটি মিছিল নিয়ে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের সামনে বিক্ষোভ করেন তারা।

ব্যঙ্গচিত্র সম্পর্কে ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সভাপতি নজির আমিন চৌধুরী জয় বলেন, ‘আমরা আগেও ৩০ গজ দীর্ঘ কাপড়ে ব্যঙ্গচিত্র এঁকে ভিসির অনিয়ম, দুর্নীতি তুলে ধরেছি। কিন্তু সেটা ভিসিপন্থিরা ছিঁড়ে ফেলায় প্রতিবাদস্বরূপ এবার আমরা ৬০ গজ লম্বা কাপড়ে ব্যঙ্গচিত্র অঙ্কন করেছি। আমরা এই চিত্রকর্মের মাধ্যমে ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদ, ভিসির অপসারণ দাবি, ভিসির দুর্নীতিসহ তার নানা অনিয়মের চিত্র তুলে ধরেছি।’

ব্যঙ্গচিত্র অঙ্কনে অংশ নেওয়া প্রতœতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থী তানজিদা শহিদ বলেন, ‘আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিভাবক ভিসির চরিত্রকে চিত্রের মাধ্যমে তুলে ধরেছি। তার দুর্নীতি, সন্ত্রাসী কর্মকান্ড, নারী নিপীড়কদের প্রশ্রয়, শিক্ষাকে ব্যবসায় রূপান্তর করা ইত্যাদি অঙ্কিত হচ্ছে।’

"