পাবনায় খেলা নিয়ে সংঘর্ষে ১১ জন গুলিবিদ্ধ

প্রকাশ : ১২ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০

পাবনা প্রতিনিধি

পাবনা সদরের চর ঘোষপুর মধ্যপাড়া এলাকায় ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় মালিথা ও মুনশি পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষে ১১ গুলিবিদ্ধসহ ২১ জন আহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার এ ঘটনা ঘটে। পাবনা সদর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ১১ গুলিবিদ্ধসহ ২১ জন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল শুক্রবার সকালে মহম্মদ আলী মালিথার পরিবারের ছেলেরা বাড়ির পাশে মাঠে ফুটবল খেলছিল। এ সময় প্রতিবেশী হাবিবুর মুনশির ছেলেরা তাদের ফুটবল খেলতে বাধা দেয়। সে

সময় ঘটনাটি মালিথা পরিবার মুনশি পরিবারের অভিভাবকদের জানালে উভয় পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ সময় উভয় পরিবারের মধ্যে বেশ উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এ সময় মুনশি পরিবারের লোকজন অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে মালিথা বাড়িতে হামলা চালায়। মালিথা পরিবারের দাবি, হামলাকারী হাবিবুর মুনশি, কায়েম মুন্সি তার ছেলে সাব্বির, ভাতিজা সজীব, সোহাগসহ ১৫-২০ জন সদস্য দলবদ্ধভাবে তাদের ওপর হামলা এবং গুলি ছোড়ে। হামলায় গুলিবিদ্ধ হয় একই পরিবারের ১০ জন। তারা হলেন পরিবারের প্রধান মোহম্মদ আলী মালিথা, তার ছেলে মিজানুর রহমান মালিথা, আনিসুর রহমান মালিথা, গোলাম মোস্তফা, মোকাদ্দেস মালিথা, রুহুল আমিন, আজমত, রনি মালিথা, শাহাবাহ, নিলুফার ইয়াসমিন ও হামিন নামে এক প্রতিবেশী শিশু।

ঘটনার বিষয়ে আহত শিশু সাহাবাজের বাবা আরিফুল ইসলাম বলেন, সামান্য ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে এত বড় কিছু ঘটবে আমরা ভাবতেই পারিনি। আমার শিশুবাচ্চা তাকেও গুলি করেছে সন্ত্রাসীরা। মুনশি পরিবারের সদস্যরা এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও মাদক কারবারি। তাদের ভয়ে এলাকার সাধারণ মানুষ মুখ খুলে না। এর আগেও তারা আমাদের পরিবারের সদস্যদের মারপিট করেছে। আমরা ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি প্রশাসনের কাছে।

পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত ইন্টার্ন চিকিৎসক ডা. সাফিনা আক্তার সিমা জানান, শুক্রবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত মোট ১১ জন গুলিবিদ্ধ ব্যক্তিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে তিনজন নারী রয়েছে, যার মধ্যে একজনের চোখে আঘাত লেগেছে। আর মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে আরো তিনজন। যারা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তাদের সবার গায়ে গুলিবিদ্ধ ছিল। তাদের সবাইকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। আহত রোগীদের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কেউ নেই।

পাবনা সদর থানার ওসি নাছিম আহম্মেদ বলেন, শুক্রবার সকালে পাবনা চরঘোষপুর এলাকায় বাচ্চাদের ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে একটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন। তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। তবে থানায় এখনো কোনো পক্ষ লিখিত অভিযোগ দেয়নি। ঘটনার বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে বলেও জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

 

"