সড়কে ঝরল নারী ও শিশুসহ ২৪ প্রাণ

* ফেনীতে পিকনিকের বাস উল্টে ৮ * আহত আরো শতাধিক

প্রকাশ : ১৬ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

ফেনীতে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে কক্সবাজারগামী পিকনিকের বাস উল্টে আটজন মারা গেছেন। এছাড়া ফরিদপুরের ভাঙ্গায় দুই বাসের সংঘর্ষে চালকসহ তিনজন ও সদরপুরে মোটরসাইকেল ধাক্কায় একজন, কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশার তিন যাত্রী, ময়মনসিংহের ফুলপুরে বাস-অটোরিকশার সংঘর্ষে শিশুসহ দুজন, গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীর গোপালপুর এলাকায় প্রাইভেট কারের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী, টাঙ্গাইলের সখীপুরে পিকআপ ভ্যানের চাপায় কলেজছাত্র, সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে যাত্রীবাহী তিনটি বাসের ত্রিমুখী সংঘর্ষে দুজন, ব?রিশালের বাবুগঞ্জে বাসচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী, ভোলায় মাহিন্দ্রচাপায় শিশু ও কক্সবাজারে যাত্রীবাহী বাসের চাপায় এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ১১৮ জন। ঈদুল আজহার চতুর্থ দিন গতকাল বৃহস্পতিবার এসব দুর্ঘটনা ঘটে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরÑ

ফেনী : ঈদের ছুটিতে আনন্দ ভ্রমণে ঢাকা থেকে কক্সবাজার যাচ্ছিলেন তারা। কিন্তু ফেনীর লেমুয়ায় গিয়ে সেই আনন্দ পরিণত হয় বিষাদে। তাদের বহন করা বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান সাতজন। আহত হয়েছেন আরো অন্তত ৩০ জন। গতকাল ভোর পৌনে ৬টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ফেনীর লেমুয়ায় ব্রিজের কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন বিক্রমপুরের অপু (৩৫), মিরপুরের ইকবাল (৩৮), মাদারীপুরের রিপন (৩০), নারায়ণগঞ্জের মুন্না খান (৩০), মিরপুরের শামীম (৩০), ছাগলনাইয়ার রাঁধানগর এলাকার শাহাদাত হোসেন (২৮) ও বিক্রমপুরের সুজন মিয়া। বাকি একজনের পরিচয় পাওয়া যায়নি। আহতদের মধ্যে সাতজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

মহিপাল হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির এসআই কাওসার বলেন, ঘটনাস্থলেই সাতজনের মৃত্যু হয়। আর হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরো একজন মারা যান। নারায়ণগঞ্জ থেকে কক্সবাজারের উদ্দেশে যাচ্ছিল প্রাইম পরিবহনের বাসটি। ফেনীর লেমুয়ায় পৌঁছলে বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। হতাহতদের মধ্যে একই পরিবারের ৯ জন সদস্য রয়েছেন। তারা ঈদের ছুটিতে কক্সবাজার ও বান্দরবান ভ্রমণে যাচ্ছিলেন।

ফরিদপুর : ফরিদপুরের ভাঙ্গা ও সদরপুর উপজেলায় পৃথক দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় চারজন নিহত হয়েছেন। গতকাল এসব দুর্ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে ভাঙ্গা উপজেলায় দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনজন ও সদরপুরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় একজন নিহত হন।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টায় ভাঙ্গার চৌরাস্তা থেকে ফরিদপুর শহরের দিকে যেতে ৫০০ গজ দূরে নওয়াপাড়া এলাকায় দুটি যাত্রীবাহী বাসের সংঘর্ষ হয়। এতে এক বাসের চালকসহ তিনজন মারা গেছেন। আহত হয়েছেন ৩১ জন। তাদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতরা হলেন ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার রামনগর গ্রামের ধলা ফকিরের ছেলে বাসের চালক রওশন ফকির (৪৫) ও রাজবাড়ী জেলার পাচুরিয়া গ্রামের লক্ষণ কুন্ডের স্ত্রী বাসের যাত্রী মিরা (৫৫)। এছাড়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অজ্ঞাত (৬০) এক ব্যক্তি মারা যান। ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার ওসি মো. আতাউর রহমান এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

অপরদিকে সদরপুর উপজেলার বাবুরচর কাচারি ডাঙ্গী এলাকায় বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় সত্তার মোল্যা (৪০) নামে এক কৃষক মারা গেছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন একজন। জানা গেছে, রাস্তা পারাপারের সময় একটি মোটরসাইকেল তাকে ধাক্কা দিলে গুরুতর আহত হন তিনি। পরে তাকে সদরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে তার মৃত্যু হয়।

সদরপুর থানার ওসি লুৎফর রহমান জানান, এই ঘটনায় মোটরসাইকেল চালক দেলোয়ার তালুকদার (৩০) নামে এক যুবক গুরুতর আহত হয়েছেন। তাকে উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশার তিন যাত্রী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো চারজন। বেলা ১১টার দিকে কিশোরগঞ্জ-ভৈরব মহাসড়কের কটিয়াদী উপজেলার আছমিতা ইউনিয়ন পরিষদের পাশে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন তোফাজ্জাল হোসেন, ওমর ও অটোচালক জামাল। আহতরা হলেন আবুদাল কাদের, পরিমল, গিয়াস উদ্দিন ও সিরাজ মিয়া। নিহতদের মধ্যে জামাল উদ্দিনের বাড়ি করিমগঞ্জ উপজেলার নিয়ামতপুর গ্রামে। অন্য দুজনের বাড়ি ইটনা উপজেলার জয়সিদ্ধি ইউনিয়নে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সকালে যাত্রীবোঝাই একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা কিশোরগঞ্জ থেকে কটিয়াদীর দিকে যাচ্ছিল।

অটোরিকশাটি আছমিতার ভিটাদিয়া এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই একজন নিহত হন। উদ্ধার করে বাকিদের বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক আরো দুজনকে মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া আহত চারজনকে কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ময়মনসিংহ : ফুলপুরের ইমাদপুর মসজিদের কাছে গতকাল বিকালে ঢাকা-হালুয়াঘাট সড়কে বাস-অটোরিকশার সংঘর্ষে শিশুসহ দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো পাঁচজন। তাদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত দুজন হলেন জায়েদ (৬) ও সিরাজুল ইসলাম (৪৫)। জায়েদ শেরপুরের কালীবাড়ী চেঙ্গুরিয়া গ্রামের আবদুল মালেকের ছেলে এবং সিরাজুল শেরপুর সদর উপজেলার শম্ভুগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা।

ফুলপুর থানার ওসি ইমরাত হোসেন জানান, ঢাকাগামী সোনার বাংলা পরিবহনের একটি বাস ও শেরপুরগামী সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে অটোরিকশাটি দুমড়ে-মুচড়ে গেলে ঘটনাস্থলেই শিশু জায়েদ মারা যায়। পরে আহতদের উদ্ধার করে ফুলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক সিরাজুল ইসলাম (৪৫), তামান্না (২৬), বেগম (৩৫), মালেকা (৩০) ও নিহত শিশুর মা কাজলী বেগমকে (৩৬) মমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পথে সিরাজুল মারা যান।

গোপালগঞ্জ : গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীর গোপালপুর এলাকায় প্রাইভেট কারের ধাক্কায় তুহিন মোল্লা (৩২) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। এতে গুরুতর আহত হয়েছেন তার স্ত্রী সাখি বেগম (২৫)। গতকাল দুপুরে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তুহিন জেলা সদর উপজেলার লতিফপুর ইউনিয়নের ঘোষেরচর উত্তরপাড়া গ্রামের আশরাফ মোল্লার ছেলে।

কাশিয়ানী থানার এসআই প্রকাশ সরকার জানান, কাশিয়ানীর ভাটিয়াপাড়া থেকে তুহিন তার স্ত্রী সাখিকে সঙ্গে নিয়ে মোটরসাইকেলে করে বাড়িতে ফিরছিলেন। পথে গোপালপুর এলাকায় বিপরীত দিকে থেকে আসা একটি প্রাইভেট কার তাদের মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে তুহিন নিহত এবং তার স্ত্রী গুরুতর আহত হন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে এবং আহত সাখিকে গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

সখীপুর (টাঙ্গাইল) : টাঙ্গাইলের সখীপুরে পিকআপ ভ্যানের চাপায় ইসতিয়াক আহমেদ (১৭) নামে এক কলেজছাত্র নিহত হয়েছেন। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সখীপুর-গোড়াই সড়কের বোয়ালী উত্তরপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। ইসতিয়াক আহমেদ পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের শাকিল আজাদের ছেলে। তিনি সরকারি মুজিব কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন।

সখীপুর থানার ওসি আমির হোসেন জানান, সকালে ইসতিয়াক আহমেদ মোটরসাইকেলযোগে সখীপুর থেকে নলুয়া যাওয়ার সময় বোয়ালী উত্তরপাড়া এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পিকআপ ভ্যান তাকে চাপা দিয়ে চলে যায়। এ সময় তিনি মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে গিয়ে রাস্তায় পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

সিরাজগঞ্জ : সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার কোনাবাড়ী এলাকায় যাত্রীবাহী তিনটি বাসের ত্রিমুখী সংঘর্ষে দুজন নিহত। এতে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৩০ জন। গতকাল বেলা পৌনে ৩টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা উদ্ধার অভিযান চালান।

ব?রিশাল : ব?রিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার নতুনহাট এলাকায় গতকাল দুপুরে বাসচাপায় অজ্ঞাতপরিচয় মোটরসাইকেল আরোহী (৩০) নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন অপর (৩২) এক আরোহী।

বাবুগঞ্জ থানার ও?সি দিবাকর চন্দ্র দাস জানান, দুপুরে উপজেলার নতুনহাট এলাকায় একটি বাস মোটরসাইকেলটিকে চাপা দেয়। এতে মোটরসাইকেলের দুই আরোহী গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে শেবা?চিম হাসপাতালে নিলে জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক আবুল হাসানাত রাসেল এক আরোহীকে মৃত ঘোষণা করেন। অপরজনকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।? ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ হাসপাতা?ল মর্গে রাখা হয়েছে।

ভোলা : ভোলার ব্যারিস্টার কাচারি বাজারে গতকাল দুপুরে মাহিন্দ্রচাপায় পারভেজ (৬) নামে এক শিশু নিহত হয়েছে। পারভেজ ভোলার সদর উপজেলার পূর্ব ইলিশা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ব্যারিস্টার কাচারি এলাকার মো. শাহাবুদ্দিনের ছেলে। স্থানীয়রা জানান, দুপুরের দিকে শিশুটি তার বাড়ি থেকে বিস্কুট কেনার জন্য বাজারে আসে। ওই সময় মাহিন্দ্র ইলিশা ফেরিঘাট থেকে যাত্রী নিয়ে ভোলার উদ্দেশে আসছিল। বাজারে অন্য একটি গাড়িকে সাইড দিতে গিয়ে শিশুটিকে চাপা দেয় মাহিন্দ্রটি। এতে শিশুটি আহত হলে তাকে সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

কক্সবাজার : কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কক্সবাজারের ঈদগাঁও-ইসলামাবাদ শাহ ফকির বাজার এলাকায় গতকাল দুপুরে যাত্রীবাহী হানিফ বাসের চাপায় এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। দুর্ঘটনায় ইজিবাইক (টমটম) চালকসহ আরো এক ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়েছেন। আহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। নিহত মোহাম্মদ কালু (৬২) কক্সবাজার সদরের ইসলামপুর ইউনিয়নের পূর্ব নাপিতখালী গ্রামের বাসিন্দা বলে নিশ্চিত করেছেন স্থানীয়রা। স্থানীয়দের সহযোগিতায় ঘাতক বাসটি জব্দ ও চালককে আটক করেছে ঈদগাঁও পুলিশ।

 

"