মশা নিধনে স্থানীয় সরকার বিভাগের সমন্বিত উদ্যোগ

প্রকাশ : ০৯ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

মশক নিধন অভিযান যথাযথ বাস্তবায়ন, সমন্বয় সাধন ও নিবিড় তদারকির জন্য ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রতিটি ওয়ার্ডে একজন করে ১২৯ জন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন কীটনাশক ক্রয়সংক্রান্ত ১০ সদস্যবিশিষ্ট কারিগরি কমিটি গঠন করেছে। স্থানীয় সরকার বিভাগও মশক নিধন ওষুধের কার্যকারিতা নিশ্চিতকরণে ৭ সদস্যবিশিষ্ট কারিগরি কমিটি গঠন করেছে। এ ছাড়া দেশব্যাপী মশক নিধন কার্যক্রম তদারকি আরো কার্যকর করার লক্ষ্যে স্থানীয় সরকার বিভাগে ১৬ জুলাই থেকে একটি নিয়ন্ত্রণ সেল খোলা হয়েছে। যুগ্ম সচিব পর্যায়ের ৮ কর্মকর্তাকে ৮টি বিভাগের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। নিয়ন্ত্রণ সেলের ফোন নম্বর ৯৫৭৩৬২৫। পাশাপাশি মন্ত্রণালয় ২৫ জুলাই থেকে মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা অভিযান শুরু করেছে।

দুই সিটি করপোরেশন ঢাকা শহরে এডিস মশার প্রজননস্থল শনাক্তকরণে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হচ্ছে। সিটি করপোরেশন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিনামূল্যে অ্যারোসল স্প্রে বিতরণের পাশাপাশি ঢাকা ছাড়ার প্রাক্কালে সব যানবাহনে কীটনাশক স্প্রে করছে। স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে মশক নিধন কার্যক্রম পরিচালনার জন্য এরই মধ্যে দেশের সিটি করপোরেশনগুলোর অনুকূলে ২১ দশমিক ৫০ কোটি ও পৌরসভাগুলোর অনুকূলে ৩০ কোটি টাকা থোক বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া স্থানীয় সরকার বিভাগ ও দুই সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাপ্তাহিক ছুটি ও সাধারণ ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

এদিকে বেইলি রোড ও আশপাশের এলাকায় গতকাল দুপুরে ডিএসসিসির মশক নিধন কার্যক্রম পরিদর্শনে যান স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এবং ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন। অনির্ধারিত এ অভিযানে ওই এলাকার বেশ কয়েকটি ভবন পরিদর্শন করেন তারা।

পরিদর্শনে বেইলি রোডে নির্মাণাধীন রূপায়ণ স্বপ্ন নিলয় টাওয়ারে এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে দক্ষিণ সিটি কপোরেশনের (ডিএসসিসি) ভ্রাম্যমাণ আদালত। বিষয়টি নিশ্চিত করেন ডিএসসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা উত্তম কুমার রায়। তিনি জানান, বেইলি রোডের একটি নির্মাণাধীন ভবনে এডিস মশার প্রজননস্থল ও লার্ভার সন্ধান মেলায় মন্ত্রী এবং মেয়রের উপস্থিতিতে ভবন কর্তৃপক্ষকে জরিমানা করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে তাৎক্ষণিক আদায়ও করা হয়।

সম্প্রতি নির্মাণাধীন ভবনে গিয়ে এডিস মশার লার্ভা ধ্বংসে অভিযান পরিচালনা শুরু করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কপোরেশন। এ ছাড়া নগরবাসীকে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগ সংক্রান্ত পরামর্শ দেওয়ার লক্ষ্যে ডিএসসিসি হটলাইন ০৯৬১১০০০৯৯৯ নম্বর চালু করেছে। কেউ ফোন করলে স্বাস্থ্যকর্মীরা সেই নাগরিকের বাসায় চলে যাবেন। এ ছাড়া ৬৭টি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। বিভিন্ন এলাকায় ৪৭৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যকর্মীরা অবস্থান করছেন।এক কলাম

"