ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ৩০ হাজার

* কলেজছাত্রসহ আরো দুজনের মৃত্যু * বগুড়ার এমপির ছেলেমেয়ে আক্রান্ত

প্রকাশ : ০৮ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

রাজধানীসহ সারা দেশে ছড়িয়ে পড়া ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়াল। ঈদুল আজহার ছুটিতে এই রোগ আরো ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে সরকারও এই রোগ নিয়ন্ত্রণে নানা পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে। তবুও প্রতিদিনই বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা; প্রতিদিনই ঘটছে মৃত্যু। ঢাকায় গতকাল তিতুমীর কলেজের এক ছাত্রসহ দুজনের মৃত্যু হয়েছে। সরকারের স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, বছরের শুরু থেকে গতকাল বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ৩২ হাজার ৩৪০ জন মানুষ এ রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এদের মধ্যে ৮ হাজার ৭০৭ জন বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। চিকিৎসা শেষে ছাড়পত্র পেয়েছেন ২৩ হাজার ৬১০ জন। এর আগে গত সোমবার সকাল ৮টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সারা দেশে মশাবাহিত এই জ্বর নিয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন ২ হাজার ৩৪৮ জন। এছাড়া গতকাল ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা স্বাস্থ্য অধিদফতর ২৩ জন জানালেও গণমাধ্যমে এর বেশি মৃত্যুর খবর এসেছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর বলছে, বর্তমানে রাজধানীর ৩৮টি সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৫ হাজার ৩৮৯ জন ডেঙ্গু রোগী। আর ঢাকার বাইরের বিভিন্ন জেলার হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৩ হাজার ৩১৮ জন।

পুরো জুলাই মাসে সারা দেশে ১৬ হাজার ২২৩ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসাপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। আর আগস্ট মাসের প্রথম ছয় দিনেই হাসপাতালে গেছেন ১৫ হাজার ৮৭৯ জন ডেঙ্গু রোগী।

ঢাকা বিভাগেই সবচেয়ে বেশি ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। গতকাল এই বিভাগের হাসপাতালগুলোতে ভর্তি হয়েছেন ২৯৯ জন। এছাড়া চট্টগ্রাম বিভাগে ১৮৭ জন, খুলনা বিভাগে ১৮৬ জন, রাজশাহী বিভাগে ১২৮ জন, বরিশাল বিভাগে ১৫৯ জন, ময়মনসিংহ বিভাগে ৬৯ জন, রংপুর বিভাগে ৯১ জন এবং সিলেট বিভাগে ৩৪ জন।

আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও জেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যে বিস্তারিত প্রতিবেদনÑ

ঢাকা : ডেঙ্গু রোগে প্রাণ হারালেন ঢাকার সরকারি তিতুমীর কলেজের এক ছাত্র। ইউনাইটেড হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল বিকালে মেহেদী হাসান নামে অর্থনীতির স্নাতকোত্তরের এই শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়।

ওই হাসপাতালের আইসিইউতে দায়িত্বরত স্টাফ নার্স কাজী শ্যামলী বলেন, ডেঙ্গু নিয়ে সোমবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে ভর্তি হন মেহেদী। তার অবস্থা সংকটাপন্ন ছিল। ডাক্তাররা জানিয়েছেন, তার প্লাটিলেট কমে ১৭ হাজারের নিচে চলে এসেছিল। কুমিল্লার মুরাদনগরের ছেলে মেহেদী কলেজ সংলগ্ন শহীদ আক্কাসুর রহমান আঁখি ছাত্রাবাসের ২০১ নম্বর কক্ষে থাকতেন।

এছাড়া ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আরো একজনের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম আওলাদ হোসেন (৩২)। তিনি মুন্সীগঞ্জ সদরের তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। এদিকে, এই হাসপাতালে নতুন ১৬২ জন ভর্তি হয়েছেন।

গত মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে আওলাদকে ঢামেকে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল ভোরে তার মৃত্যু হয়। এ নিয়ে ঢামেক হাসপাতালে এ পর্যন্ত ডেঙ্গুজ্বরে মারা যাওয়া মানুষের সংখ্যা ১৮ হলো।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রতিবেদন অনুসারে, ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে নতুন ভর্তি হওয়া রোগীদের মধ্যে মিটফোর্ড হাসপাতালে ১৩৮ জন, শিশু হাসপাতালে ৪৪ জন, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ৯৭ জন ভর্তি হয়েছেন।

এছাড়াও বারডেম হাসপাতালে ২৫ জন, বিএসএমএমইউতে ৩৫ জন, রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালে ৪২ জন, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৩৯ জন, পিলখানা বিজিবি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৮ জন, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ৪৫ জন, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ১১০ জন ভর্তি হয়েছেন।

বগুড়া : বগুড়া-৪ (নন্দীগ্রাম-কাহালু) আসনের সংসদ সদস্য মোশারফ হোসেনের এক ছেলে ও এক মেয়ে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে। তাদের ঢাকায় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

সংসদ সদস্য মোশারফ জানান, তার ১২ বছর বয়সি মেয়ে মায়িশা আক্তার রোজা এবং তিন বছরের ছেলে মোসাবির হোসেন সামিদ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে। প্রথমে তাদের জ্বর হলে ঢাকার ইবনে সিনা হাসপাতালে ডেঙ্গু পরীক্ষা করান। রিপোর্টে তাদের ডেঙ্গু পজিটিভ আসে। চিকিৎসকদের পরামর্শে তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে, তাদের সুস্থতা কামনা করে কাহালু উপজেলা বিএনপির আয়োজনে রেলওয়ে স্টেশন মসজিদে দোয়া মাহফিল হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : জেলায় গতকাল প্রথম ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্ত শিশুর নাম মো. সাদ বিন এজাজ প্রকাশ আয়ান। সে আখাউড়া পৌর এলাকার মসজিদ পাড়ার এজাজ আহমেদের ছেলে। তিনি স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে কর্মরত। বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মো. শওকত হোসেন।

পরিবারের লোকজন জানিয়েছে, গত কয়েক মাসের মধ্যে তাদের বাড়ির কেউ ঢাকা যাননি কিংবা তাদের বাড়িতে ঢাকা থেকে কেউ আসেনি। যে কারণে আখাউড়াতেই মশার কামড়ে সে আক্রান্ত হয়েছে।

কেশবপুর (যশোর) : কেশবপুরে গতকাল আরো তিনজন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। তারা হলেন উপজেলার সাতাইশকাটি গ্রামের ছায়রুন্নেছা (৪৫), ভোগতী গ্রামের নূর মোহাম্মদের ছেলে নূর আলম (৩৫) ও গৌরীপুর গ্রামের আবদুর রহমানের ছেলে রাজু আহম্মদ (২০)। তিনজনই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন।

পাবনা : ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ১৮ জন ভর্তি হয়েছেন। গতকাল দুপুর পর্যন্ত চিকিৎসা নিয়েছেন ১২৮ জন। এ ছাড়া বেসরকারিভাবে আরো প্রায় শতাধিক রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন।

রংপুর : রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ১৯০ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছে। এদের মধ্যে ১০৯ জন চিকিৎসাসেবা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন। হাসপাতালে এখনো ৮০ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছে। এর মধ্যে চার শিশু, ১১ নারী, ৬৪ পুরুষ রয়েছেন।

সিরাজগঞ্জ : আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে ডেঙ্গু রোগী। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরো ২৩ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে বর্তমানে সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন হাসপাতালে গতকাল বেলা ১১টা পর্যন্ত পর্যন্ত ৬৬ জন রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছে। সব মিলিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত ১৪৩ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে।

টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলের বিভিন্ন হাসপাতালে নতুন করে ২৪ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছে। সব মিলিয়ে টাঙ্গাইলে চিকিৎসাধীন ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৩ জনে। এদিকে জেলার বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে ৮০ জন রোগী চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ত্যাগ করেছেন। আর ২৪ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

টুঙ্গিপাড়া (গোপালগঞ্জ) : বৃদ্ধি পাচ্ছে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। বর্তমানে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১০ জন। তারা টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, টুঙ্গিপাড়া উপজেলার চারজন, চিতলমারী উপজেলার দুজন ও নাজিরপুর উপজেলার চারজনসহ মোট ১০ জন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। গত ৫ আগস্ট পর্যন্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ছিল তিনজন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি চলে গেছে তিনজন।

"