অস্ত্র ও হত্যার পৃথক মামলায় ১৩ জনের যাবজ্জীবন

প্রকাশ : ০৭ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

খুলনায় ব্যবসায়ী আলতু মোল্লা হত্যা মামলায় ১০ আসামিকে এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২২ অস্ত্র মামলায় তিনজনের যাবজ্জীবন কারাদ-ের আদেশ দিয়েছেন আদালত। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরÑ

খুলনা ব্যুরো : খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার পদ্মবিলা গ্রামের ব্যবসায়ী আলতু মোল্লা হত্যা মামলায় ১০ আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদ- দিয়েছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার খুলনার জননিরাপত্তা বিঘœকারী অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক বিশেষ দায়রা জজ মো. সাইফুজ্জামান হিরো এ আদেশ দেন। এ সময় অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় দুই আসামিকে খালাস দেওয়া হয়। দ-প্রাপ্তরা হলো পদ্মবিলা গ্রামের আবুল কাশেম, কুববাত মুনশি, ফারুক মোল্লা, মঞ্জুরুল শিকদার, মো. ইরান, আবু তালেব, হুমায়ুন খাঁ, কবির মোল্লা এবং সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার আবদুল গফফার ও খলিলুর রহমান। খালাসপ্রাপ্ত দুজন হলো হাবিব ও মিঠুন।

জননিরাপত্তা বিঘœকারী অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আরিফ মাহমুদ লিটন জানান, ২০০৬ সালের ১৭ ডিসেম্বর দিঘলিয়ার পদ্মবিলা মাঠে গলা কাটা অবস্থায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আলতু মোল্লার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এর এক সপ্তাহ আগে থেকে নিখোঁজ ছিলেন তিনি। এ ঘটনায় ১৮ ডিসেম্বর নিহত আলতুর ভাইয়ের ছেলে আলমগীর হোসেন মোল্লা বাদী হয়ে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করে দিঘলিয়া থানায় মামলা করেন। দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০০৮ সালের ২৬ মে ১২ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দিঘলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ফজলুল কবীর।

তিনি জানান, প্রায় ১১ বছর মামলা চলার পর গতকাল মঙ্গলবার আদালত ১০ জনের যাবজ্জীবন কারাদ- ও প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় দুজনকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২২ অস্ত্র মামলায় তিনজনের যাবজ্জীবন কারাদ-ের আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-২-এর বিচারক এবং অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. শওকত আলী দুই আসামির উপস্থিতিতে এ রায় দেন। এ মামলার অপর আসামি মোহাম্মদ ওসমান আলী পলাতক রয়েছে।

দ-প্রাপ্তরা হলো জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুর ইউনিয়নের গোপালনগর গ্রামের মৃত আয়েনউদ্দিনের ছেলে মো. শাহ আলম (৪৫), শাহবাজপুর ইউনিয়নের তেলপুটি লম্বাপাড়ার মো. দুলুর ছেলে আবুল কালাম (৩৮) ও চট্টগ্রাম মহানগরীর বোয়ালখালী থানার মৃত নুরুল হকের ছেলে মোহাম্মদ ওসমান আলী (৩২)।

অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর আঞ্জুমান আরা জানান, ২০১৬ সালের ২৪ অক্টোবর চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার শঙ্করবাটি মহল্লার তেনু ম-লপাড়ার শাহিন কাদিরের বাড়িতে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে একটি বস্তা থেকে ২২টি পিস্তল, ৪৫টি ম্যাগাজিন ও ১৩৬ রাউন্ড গুলি এবং ২৯টি ছাগল উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় উপ-পুলিশ পরিদর্শক আবদুল করিম বাদী হয়ে চারজনকে আসামি করে নবাবগঞ্জ সদর মডেল থানায় অস্ত্র আইনে মামলা করেন।

তিনি আরো জানান, বাড়িভাড়া নিয়ে ছাগলের ব্যবসার আড়ালে তিনজন অস্ত্র ব্যবসা করতেন বলে পুলিশ তদন্তে বেরিয়ে আসে। পরে ২০১৭ সালের ২২ এপ্রিল আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন তৎকালীন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক (গোয়েন্দা) হামিদুর রশিদ ও মাহবুব আলম। সাক্ষ্য-প্রমাণাদি শেষে মঙ্গলবার দুপুরে বিচারক ওই রায়ে দ-িত করেন। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় এ মামলার অপর আসামি সাইফুল ইসলামকে বেকসুর খালাস দেন আদালত।

 

 

"