এইচএসসির ফল প্রকাশ

পাসে এগিয়ে মেয়েরা জিপিএ ৫-এ ছেলেরা

প্রকাশ : ১৮ জুলাই ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফলে পাসের হারের দিক দিয়ে ছাত্রদের চেয়ে ছাত্রীরা এগিয়ে আছে। শুধু এবারই নয় গত পাঁচ বছর ধরে পাসের হারে মেয়েরা ধারাবাহিকভাবে এগিয়ে রয়েছে। তবে গতবারের মতোই বেশি জিপিএ ৫ পেয়েছে ছাত্ররা। শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বুধবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এবারের উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।

এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার ৭৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছেন, জিপিএ ৫ পেয়েছেন ৪৭ হাজার ২৮৬ জন। উচ্চ মাধ্যমিকে এবার ৭ লাখ ৩ হাজার ছাত্র এবং ৬ লাখ ৩৩ হাজার ৬২৯ জন ছাত্রী পরীক্ষায় বসেন। এর মধ্যে ৫ লাখ ৩ হাজার ৮২৮ জন ছাত্র এবং ৪ লাখ ৮৪ হাজার ৩৩৪ জন ছাত্রী পাস করেছেন। ছাত্রীদের পাসের হার যেখানে ৭৬ দশমিক ৪৪ শতাংশ, সেখানে ছাত্রদের মধ্যে পাস করেছে ৭১ দশমিক ৬৭ শতাংশ। অন্যদিকে জিপিএ ৫ পাওয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২৪ হাজার ৫৬৭ জন ছাত্র এবং ২২ হাজার ৭১০ জন ছাত্রী। অর্থাৎ ছাত্রীদের চেয়ে ১ হাজার ৮৬৬ জন বেশি ছাত্র পূর্ণাঙ্গ জিপিএ পেয়েছে। গতবারও পাসের হারে ছাত্রীরা এগিয়ে ছিল। ছাত্রীদের ৬৯ দশমিক ৭২ শতাংশ এবং ছাত্রদের ৬৩ দশমিক ৮৮ শতাংশ পাস করেছিল। তবে ছাত্রীদের চেয়ে ১ হাজার ৯০০ জন বেশি ছাত্র পূর্ণাঙ্গ জিপিএ ৫ পেয়েছিল।

এবার বরিশালে, রংপুর ও বগুড়ায় পাশের হারে এবং জিপিএ ৫ প্রাপ্তিতে গত বছরের তুলনায় ভালো করেছে। চট্টগ্রাম কলেজ, হাজী মুহম্মদ মহসীন কলেজ ও সরকারি সিটি কলেজ ভালো করেছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো রিপোর্টÑ

চট্টগ্রাম : ২০১৯ সালের উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষায় চট্টগ্রামে শিক্ষা বোর্ডে গড় পাসের হার ৬২.১৯ শতাংশ। গত বছর পাসের হার ছিল ৬২.৭৩ শতাংশ।

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ মাহবুব হাসান বলেন, চট্টগ্রামে মোট জিপিএ পেয়েছে ২ হাজার ৮৬০ জন। গত বছর জিপিএ ৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৬১৩ জন।

মো. মাহবুব হাসান বলেন, এ বছর চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ৯৮ হাজার ৯২৬ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে পাস করেছে ৬১ হাজার ৫২৩ জন। উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের মধ্যে মোট ২ হাজার ৮৬০ জন পরীক্ষার্থী জিপিএ ৫ পেয়েছে। বরাবরের মতো এবারও সবচেয়ে বেশি জিপিএ ৫ পেয়েছে চট্টগ্রাম কলেজের শিক্ষার্থীরা। এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে ৫৫৫ জন জিপিএ ৫ পেয়ে তালিকায় সবার ওপরে জায়গা করে নিয়েছে। দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে সরকারি হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ এবং সরকারি সিটি কলেজের নাম।

সিটি কলেজের ফলাফলে কয়েক ধাপ উন্নতি

এবার চট্টগ্রাম সরকারি সিটি কলেজ থেকে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩২১ জন শিক্ষার্থী। গত বছরের ফলাফলের চেয়ে তুলনায় এটা চারগুণেরও বেশি। পাসের হার ৮৯.০৪ শতাংশ। চট্টগ্রাম উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার বোর্ডের ফলাফলে এবার তৃতীয় স্থানে রয়েছে ঐতিহ্যবাহী এ কলেজ। জিপিএ পদ্ধতি চালু হওয়ার পর এটাই সিটি কলেজের সবচেয়ে ভালো ফলাফল।

বরিশাল বোর্ডে বেড়েছে জিপিএ ও পাসের হার

বরিশাল : এবারে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ও জিপিএ ৫ গেল বছরের তুলনায় বেড়েছে। ফল বিশ্লেষণ করে জানা যায়, ২০১৫ সালে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ছিল ৭০ দশমিক ০৬ শতাংশ, ২০১৬ সালে দশমিক ০৬ শতাংশ বেড়ে দাঁড়ায় ৭০ দশমিক ১৩ শতাংশে। সেখান থেকে দশমিক ১১ শতাংশ বেড়ে ২০১৭ সালে পাসের হার দাঁড়ায় ৭০ দশমিক ২৪ শতাংশে। ২০১৭ সালের দশমিক ৩১ শতাংশ বেড়ে ২০১৮ সালে পাসের হার দাঁড়ায় ৭০ দশমিক ৫৫ শতাংশে। আর এবারে পাসের হার দশমিক ১০ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭০ দশমিক ৬৫ শতাংশে।

গত বছরের তুলনায় এবার জিপিএ ৫ প্রায় দ্বিগুণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ২০১টিতে। গত বছর জিপিএ ৫ পেয়েছিলেন ৬৭০ জন। এ বছর বিজ্ঞান বিভাগে ৮৩৫ জন, মানবিক বিভাগে ২৮০ জন ও বাণিজ্য বিভাগে ৮৬ জন জিপিএ ৫ পেয়েছেন। এ বছর ৩৩০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ১১৮টি সেন্টারে ৬৩ হাজার ৫৩৮ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছেন ৪৪ হাজার ৮৮৭ জন। যার মধ্যে ছাত্রী ২১ হাজার ২৫৮ জন এবং ছাত্র ২৩ হাজার ৬২৯ জন। এছাড়া মেয়েরা জিপিএ ৫ পেয়েছেন ৭৩৫ জন। ছেলেরা জিপিএ ৫ পেয়েছেন ৪৬৬ জন। পাসের হার ও জিপিএ এগিয়ে মেয়েরা।

কুমিল্লা বোর্ডে পাসের হার ৭৭.৭৪

কুমিল্লা : কুমিল্লা বোর্ডে এবার পাসের হার শতকরা ৭৭.৭৪ জন। গত এক যুগে কুমিল্লা বোর্ডের ফলাফলে এবারই সর্বোচ্চ। এর আগে ২০০৮ সালে শতকরা পাসের হার ছিল ৭৭.৩৩। চলতি বছর কুমিল্লা বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ৩৭৫ জন, যা গত ৫ বছরে সর্বোচ্চ। কুমিল্লা বোর্ডের অধীনে এ বছর ৬টি জেলার ৩৮৬টি কলেজের ৯৪ হাজার ৩৬০ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেয় এবং ৭৩ হাজার ৩৫৮ জন পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়। পাসের শতকরা হার বিজ্ঞান বিভাগে ৮৮.৬৪ শতাংশ।

এ বছর ইংরেজিতে পাসের হার ৮৫.৩৩ শতাংশ ও আইসিটিতে ৯৪.২৮শতাংশ।

পুলিশ লাইনস ও কালেক্টরেট স্কুল অ্যান্ড কলেজে শতভাগ পাস

রংপুর : রংপুর নগরীর বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মতো এবারে এইচএসসি পরীক্ষায় শতভাগ পাস করেছে পুলিশ লাইনস স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও কালেক্টরেট স্কুল অ্যান্ড কলেজের পরীক্ষার্থী। এবারে এইচএসসিতে মোট পরীক্ষার্থী ৮৩৭ জন এর মধ্যে সবাই পাস করেছে। পাসকৃত শিক্ষার্থীর মধ্যে মোট জিপিএ ৫ পেয়েছে ৬৩৭ জন, এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ৫৭০ জনের মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৫৬৩ জন, বাণিজ্য বিভাগ থেকে ১২৩ জনের মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩১ জন এবং মানবিক বিভাগ থেকে ১৪৪ জনের মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪৩ জন।

সাফল্যের ধারা অব্যাহত রেখেছে বগুড়ার শিক্ষার্থীরা

বগুড়া : বগুড়া থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৮১.১৮ ভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। বগুড়া ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজ থেকে ৭৬১ জন শিক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। এর মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩৮২ জন শিক্ষার্থী। বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজে থেকে এবার ১৫২৬ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ১৫১৮ জন। জিপিএ ৫ পেয়েছে ৮৬১ জন। বগুড়া সরকারি মুজিবুর রহমান মহিলা কলেজ থেকে ১৪২৬ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ১৩৮৪ জন পাস করেছে, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১১৫ জন। সরকারি শাহ্ সুলতান কলেজ থেকে ১৬৭৫ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ১৬২২ জন পাস করেছে, জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৯৫ জন শিক্ষার্থী। বগুড়া বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ৩০১ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। পাস করেছেন ৩০১। জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৪৫ জন শিক্ষার্থী। বগুড়া মহিলা কলেজ থেকে ২০৬ জন। পাস করেছে ১৫৩ জন। জিপিএ ৫ পায়নি কেউ। বগুড়া সরকারি কলেজ থেকে ৮৪৩ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৮৩০ জন। জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৩ জন শিক্ষার্থী।

বগুড়া পুলিশ লাইনস স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ শাহাদৎ আলম ঝুনু জানান, ১৫৪ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। পাস করেছে শতভাগ। জিপিএ ৫ পেয়েছ ১৭ জন শিক্ষার্থী।

বগুড়া আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ এ টি এম মোস্তফা কামাল জানান, ৩৯২ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। পাস করেছে শতভাগ। জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৩৫ জন শিক্ষার্থী।

"