ঋণনির্ভর বাজেটে প্রত্যাশা পূরণ হয়নি

আমীর খসরু

প্রকাশ : ১৪ জুন ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, এটি একটি ঋণনির্ভর বাজেট।

গতকাল বৃহস্পতিবার বাজেট পেশের দুই ঘণ্টার মাথায় রাজধানীর একটি হোটেলে তিনি সাংবাদিকদের নিজের ব্যক্তিগত প্রতিক্রিয়ার কথা জানান। দলগতভাবে বিএনপির পক্ষ থেকে আজ শুক্রবার আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানানোর কথা রয়েছে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু বলেন, এ বাজেটে মানুষের প্রত্যাশা পূরণ হয়নি। দেশের সামষ্টিক অর্থনীতি নষ্ট হয়ে গেছে। ধনী ও সুবিধাভোগী শ্রেণির কথা চিন্তা করেই এই বাজেট প্রস্তাব করা হয়েছে। এতে সাধারণ মানুষের কোনো উপকার হবে না। প্রস্তাবিত বাজেটের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের ওপর নতুনভাবে ঋণ ও করের বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে। জাতীয় নির্বাচনে যেমন জনগণের প্রত্যাশা পূরণ হয়নি, এ বাজেটেও জনগণের প্রত্যাশা পূরণ হয়নি।

নতুন অর্থবছরের প্রস্তাবিত এ বাজেটের কারণে অর্থনীতি পুরোপুরি ঋণনির্ভর হয়ে পড়বে বলে দাবি করে সাবেক এই বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, এই ঋণ শোধ দিতে দেশের মানুষের ওপর সরাসরি প্রভাব পড়বে। নাগরিকদের ভুগতে হবে চরমভাবে। তিনি বলেন, যে বাজেট আওয়ামী লীগ সরকার দিয়েছে, যে অর্থনৈতিক কর্মকান্ড দেশে চলছে, এটা একটি শ্রেণির সুযোগ-সুবিধার জন্য মাত্র। জনগণকে বাইরে রেখে যেমন নির্বাচন করেছে, তেমনি অর্থনীতিতেও জনগণকে বাইরে রেখেই বাজেট দিয়েছে।

আমীর খসরু বলেন, সুশাসনের অভাবে দেশের সামষ্টিক অর্থনীতি বাধাগ্রস্ত। ব্যক্তি খাতের বিনিয়োগ বন্ধ, শেয়ারবাজারে অস্থিরতা, ব্যাংকে তারল্য সংকট। ঋণনির্ভর অর্থনীতির দিকে নিয়ে যাচ্ছে সরকার। রফতানির চেয়ে আমদানি বেশি হচ্ছে। যে প্রবৃদ্ধির কথা বলা হচ্ছে, সার্ভের সঙ্গে তার কোনো মিল নেই। তিনি বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বেশি বেকার বাংলাদেশে। প্রবৃদ্ধির যে কথা বলা হচ্ছে, তার সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন আছে। যেভাবে জনগণ একাদশ সংসদ নির্বাচন গ্রহণ করেনি, তেমনি এই বাজেটও গ্রহণ করবে না বলে দাবি করেন তিনি।

বিএনপির দায়িত্বশীল একাধিক সূত্র বলছে, সংসদে বাজেট অধিবেশনের পর দলীয় এমপিরা কথা বলতে পারেন সংবাদমাধ্যমে। এ ছাড়া দলের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে আজ শুক্রবার বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ সিনিয়র নেতারা প্রতিক্রিয়া জানাবেন।

 

"