বৃষ্টিতে জটিল সমীকরণে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ

প্রকাশ : ১২ জুন ২০১৯, ০০:০০

আরিফ সোহেল

খলনায়ক বৃষ্টি¯œাত ব্রিস্টল; খলনায়ক ব্রিস্টলের বৃষ্টির। ওই বৃষ্টিনামক খলনায়কের কাছেই হেরে গেল বাংলাদেশ। প- হলো বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ। এই অনাহূত বৃষ্টিতে ভেসে যেতে বসেছে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্বপ্নও। সেমিফাইনালের রূপরেখা উঁকি দিচ্ছে শঙ্কার কালো মেঘ। স্বপ্ন বাঁচাতে সামনের ৫ ম্যাচেই জয় অনেকটাই অনিবার্য হয়ে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ। যা কাগজে-কলমে লেখা গেলেও; বাস্তবে মহাজটিল কাজ। অথচ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় পেলে বিশ্বকাপের স্বপ্নটা একটু সহজ-সরল বলয়েই থাকত। বৃষ্টির কবলে পড়ে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ সমীকরণ আরো জটিল হয়ে গেল।

গতকাল স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টা ১ মিনিট। দুই ফিল্ড আম্পায়ার আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়ে দিলেনÑ ‘বৃষ্টির কারণে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ পরিত্যক্ত।’ তার মানে; আইসিসি নিয়ম অনুযায়ী ১ পয়েন্ট করে পেল বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা। এর আগেও বৃষ্টির কারণে এর আগে শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান এবং দক্ষিণ আফ্রিকা-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচ বাতিল হয়েছিল।

বৃষ্টির কারণে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ পরিত্যক্ত। সংখ্যাতাত্ত্বিক পরিসংখ্যানে দুই দলেরই বিশ্বকাপ স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখার দুরূহ হয়ে পড়ল। শ্রীলঙ্কার ৪ ম্যাচে পয়েন্ট ৪ পয়েন্ট। সমান ম্যাচে বাংলাদেশের ৩। এই ম্যাচকে ঘিরে বাংলাদেশের স্বপ্নই অবারিত পথরেখায় ছুটছিল। কিন্তু তা ভেসে গেল বৃষ্টিতে।

টানা ২ দিনের বৃষ্টি শেষে ব্রিস্টলে আলো ঝলমল রোদেই বাংলাদেশ পরশু অনুশীলন করেছিল। তখন মনেই হয়নি আবহাওয়াবিদের আভাস। কিন্তু গতকাল ম্যাচ শুরুর আগ থেকেই বৃষ্টির রসিকতা শুরু হয়। কখনো থেকে থেকে বৃষ্টি; কখনো অঝরে। ফলে ফ্লিড আম্পায়ারা দুই দফা সময় নির্ধারণ করেও মাঠে আসতে পারেননি। আর যখন ছাতি মাথায় আসলেন; ততক্ষণে ম্যাচের যবানিকা নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল।

হারয়ে বৃষ্টি! এই বৃষ্টির জন্য আবেদন-নিবেদন কম হয়। কখনো বৃষ্টির কৃষকদের মাথায় হাত দিতে হয়। কখনো নাভিশ্বাস ওঠা গরম থেকে নিষ্কৃতি পেতেও বৃষ্টি বন্দনা হয়। বাধা হয় গানওÑ ‘আর বৃষ্টি ঝেপে ধান দেব মেপে।’ আবার বৃষ্টি থামার জন্যও কম হয়নি। অবিরাম বৃষ্টিতে নাকাল হওয়ার বন্দি জীবন থেকে মুক্তি পেতে দোয়া-মোনাজাতের গল্প কম হয়নি। কিন্তু বৃষ্টি শোনে কার কথা। ¯্রােতের মতোই বৃষ্টি নিজ ইচ্ছায় আসে, থামেও নিজের মতোই। তবে ইংলিশ আবহাওয়াবিদরা কিন্তু আগাম জানিয়েছিলেনÑ বৃষ্টির কবলে পড়তে পারে বিশ্বকাপের ৫টি ম্যাচ। এরই মধ্যে তার নমুনা ভালোভাবেই অনুভূত হচ্ছে। ভেসে গেছে ৩টি ম্যাচ। ব্যাহত হয়েছে শ্রীলঙ্কা-আফগান ম্যাচ। কার্টেল ওভারে শেষ হয়েছে ম্যাচটি। বিস্ময়করভাবে শ্রীলঙ্কার ৩টি ম্যাচই বৃষ্টির কবলে পড়েছে।

ক্যাটাগরিক্যারি বাংলাদেশের কার্ডিফ এবং ব্রিস্টলের ম্যাচের পূর্বাভাস ছিল বৃষ্টিবিঘœ হওয়ার। কার্ডিফ বৃষ্টির কবল থেকে বাঁচলেও বাংলাদেশ বাঁচেনি ইংলিশদের ব্যাটের আগ্রাসন থেকে। কিন্তু ব্রিস্টল বৃষ্টি থেকে রক্ষা পায়নি। এই অনাহূত বৃষ্টির কারণে ব্রিস্টলের প্রেস বক্সেও মিডিয়ার প্রতিনিধিরা রিপোর্ট বাদ দিয়ে বৃষ্টির গানে মজেছিলেন। কি আর করা বৃষ্টি যখন সব ভাসিয়ে নিচ্ছিল; তখন ‘কাজ নেই তো খই ভাজার অবস্থা।’ গানের কলিতে প্রেস বক্স উদ্বেলিত হলেও; কষ্টের সাগরে হাবুডুবু খাচ্ছেন ক্রিকেটভক্তরা।

সকাল থেকে বৃষ্টি বিড়ম্বনা। ফলে ক্রিকেটার দুপুর পর্যন্ত হোটেলেই আয়াশে সময় কাটিয়েছেন। এই পরিত্যক্ত ম্যাচের সাকিব এবং মালিঙ্গার গল্প একটু বলতেই হচ্ছে। সাকিবকে নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল। টসও হয়নি; ফলে একাদশও ঘোষিত হয়নি। সাকিবের খেলা; না খেলার গল্পটা ভেস্তেই গেল। দলে পরিবর্তনের গল্পটিও অজানাই থেকে গেল। তবে লাসিথ মালিঙ্গা কিন্তু তার কথা রেখেছেন। শাশুড়ির শেষকৃত্যে অংশ নিতে গতকালই উড়ে গেছেন শ্রীলঙ্কায়।

 

"