বাস থেকে যাত্রী ফেলে গাড়ি চালিয়ে হত্যা

প্রকাশ : ১০ জুন ২০১৯, ০০:০০

গাজীপুর প্রতিনিধি

ভাড়া নিয়ে বাগবিতন্ডার জেরে বাস থেকে ফেলে তার ওপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে সালাউদ্দিন (৩৬) নামে এক যাত্রীকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল বোরবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে গাজীপুর সদর উপজেলার বাঘেরবাজার এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে এ ঘটনা ঘটে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। বাসটি জব্দ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

নিহত সালাউদ্দিন ঢাকার আলুবাজার এলাকার মৃত শাহাবউদ্দিনের ছেলে। তিনি বাঘেরবাজার এলাকার আতাউর রহমানের বাড়িতে স্ত্রীসহ ভাড়া থেকে স্থানীয় একটি কারখানার গাড়ি চালাতেন।

মাওনা হাইওয়ে থানার ওসি দেলোয়ার হুসেন জানান, সকাল ৭টার দিকে সালাউদ্দিন ময়মনসিংহের ফুলপুর থেকে আলম এশিয়ার একটি বাসে চড়েন। একপর্যায়ে নিজে চালক পরিচয় দিয়ে তাকে সম্মান দেখিয়ে ভাড়া কিছু কম রাখার জন্য কন্টাক্টরকে অনুরোধ করেন। এ নিয়ে বাসের কন্টাক্টর ও হেলপারের সঙ্গে তার বাগবিতন্ডা হয়। পরে সালাউদ্দিন বাসের ভাড়া পরিশোধ করেন। এ সময় বাসের কন্টাক্টর ও হেলপার বাঘেরবাজার গিয়ে তাকে সম্মান দেখানো হবে বলে হুমকি দেয়। বাসের কন্টাক্টর-হেলপারের সঙ্গে বাগবিতন্ডা হয়েছে এবং তারা তাকে (সালাউদ্দিনকে) অপমান করতে পারে ভেবে সালাউদ্দিন তার ভাই জামাল উদ্দিনকে মোবাইল ফোনে জানিয়ে বাঘেরবাজার বাসস্ট্যান্ডে আসতে বলেন।

ওসি আরো বলেন, বাঘেরবাজার ওই গাড়ি থামলে দুই যাত্রী নামার পর সালাউদ্দিন নামতে গেলে বাসের কন্টাক্টর ও হেলপার তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। পরে সালাউদ্দিনের স্ত্রীকে বাস থেকে না নামিয়ে চালক বাসটি নিয়ে চলে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় সালাউদ্দিন ও তার ভাই জামাল উদ্দিন বাসের সামনে গিয়ে দাঁড়িয়ে বাসটি গতিরোধ করার চেষ্টা করেন। চালক বাস না থামিয়ে সালাউদ্দিনকে পিষ্ট করে এলাকা ত্যাগ করে। এতে ঘটনাস্থলেই সালাউদ্দিন মারা যান। কিছুদূর যাওয়ার পর ওই সড়কের আমতলা এলাকায় সালাউদ্দিনের স্ত্রীকে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। আরো কিছুদূর গিয়ে বাসটি মহাসড়কের পাশে রেখে চালক, কন্টাক্টর ও হেলপার পালিয়ে যায়।

 

"