এনআইডি সেবা বিকেন্দ্রীকরণ হচ্ছে

প্রকাশ : ১৪ মে ২০১৯, ০০:০০

গাজী শাহনেওয়াজ

ছবিসহ জাতীয় পরিচয়পত্রের নাগরিক সেবা চূড়ান্তভাবে বিকেন্দ্রীকরণ করা হচ্ছে। এরই মধ্যে জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের (এনআইডি উইং) মৌখিক সম্মতি মিলেছে। প্রস্তাবটি চূড়ান্তকরণের জন্য নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অনুমতির জন্য উত্থাপন করা হচ্ছে। দু-একদিনের মধ্যে অনুমোদন সাপেক্ষে এই প্রক্রিয়ার গেজেট জারি করা হবে।

সম্প্রতি কমিশনের মাঠপর্যায়ের ৬৪ জেলা নির্বাচন অফিস থেকে হারানো কার্ডটি মুদ্রিত হওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। বর্তমানে জাতীয় পরিচয়পত্র বাহকরা এ সেবাটি সেখান থেকে পাচ্ছেন। এবার সংশোধিত কার্ডটির মুদ্রণ হবে সংশ্লিষ্ট অফিসগুলো থেকে। এর জন্য মুদ্রিত কার্ডের উপকরণ সামগ্রী ২০ লাখ ২০ হাজার পাউচ আঞ্চলিক ও জেলা নির্বাচন অফিস কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানোর বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত রয়েছে। এর মধ্যে প্রত্যেক আঞ্চলিক অফিসের জন্য ১০ হাজার এবং প্রতিটি জেলা নির্বাচন অফিসের অনুকূলে ৩০ হাজার পাউচ পাঠানো হবে। জানতে চাইলে ইসির যুগ্ম সচিব ও এনআইডি উইংয়ের পরিচালক (অপারেশন) মো. আবদুল বাতেন বলেন, দেশে জাতীয় পরিচয়পত্রধারী নাগরিকের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ১০ কোটি। এসব নাগরিকের পরিচয়পত্রে করণীয় নানা ধরনের ত্রুটি রয়েছে। এনআইডি সেবা বিকেন্দ্রীকরণ করার মতো সদিচ্ছা সত্ত্বেও এতদিন তা করা যায়নি। কারণ এর মধ্যে কেন্দ্রীয় সার্ভারের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ স্থাপন, আনুষঙ্গিক যন্ত্রাংশ সেটআপ এবং সক্ষমতা না থাকায় এই কার্য-সম্পাদন করার বিষয়টি বিলম্বিত হয়েছে। বর্তমানে পরীক্ষামূলকভাবে হারানো কার্ডটি মাঠ পর্যায়ে মুদ্রণের ক্ষমতাপ্রাপ্ত হন ইসির মাঠ অফিস। সেখানে তারা দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে। যারপরিপ্রেক্ষিতে সংশোধিত কার্ডটি মুদ্রণের জন্য তাদের কাছে হস্তান্তর করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। আশা করছি, শিগগিরই এর সমাধান হবে।

এ সংক্রান্ত কার্যবিবরণীতে পাওয়া তথ্যে দেখা গেছে, জাতীয় পরিচয়পত্র সংক্রান্ত সেবা মানুষের দৌড়গড়ায় পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে এরই মধ্যে জাতীয় পরিচয়পত্রের কার্যক্রম বিকেন্দ্রীকরণ করার প্রক্রিয়া এনআইডি উইং গ্রহণ করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় এনআইডি সংক্রান্ত কার্যক্রম জেলা ও আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস থেকে নিষ্পত্তির জন্য কার্যবণ্টনের গেজেট প্রকাশিত হয়েছে, যা বাস্তবায়নের জন্য প্রক্রিয়াধীন আছে। এছাড়া আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস থেকে হারানো কার্ড পুনঃমুদ্রণ চলমান রয়েছে।

বর্তমান দেশের ৬৪ জেলা নির্বাচন অফিস থেকে হারানো কার্ড মুদ্রণের জন্য কারিগরি কার্যক্রম সম্পাদন করা হয়েছে। বর্তমানে নাগরিকের ভুল আইডি কার্ড সংশোধনের পর মুদ্রণ করে কুরিয়ার কিংবা সংশ্লিষ্ট জেলা-উপজেলার বার্তাবাহকের সহায়তায় পৌঁছে দেওয়া হয়। এটি একটি জটিল ও সময়সাপেক্ষ ব্যাপর হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই আগামীতে সংশোধিত কার্ডটি ঢাকার নির্বাচন অফিস থেকে সংশোধন সাপেক্ষে তা ইলেকট্রনিক্যালি এ প্রুপ করা হবে। পরবর্তী জেলা নির্বাচন অফিস থেকে তা মুদ্রণপূর্বক কাটিং ও পরিচয়পত্র লেমিনেটিং করে বিতরণের উদ্দেশ্যে সংশ্লিষ্ট থানা ও উপজেলা নির্বাচন অফিসে পাঠানো হবে। এতে নাগরিকে হয়রানি কমবে, নাগরিক সেবাও মানুষের দৌরগড়ায় পৌঁছে যাবে।

এ সেবাটি সহজতর করার জন্য জেলা নির্বাচন অফিসে প্রিন্টার, লেমিনেটিং মেশিনসহ কিছু পাউচ ক্রয় করা হয়েছে। তবে হারানো ও সংশোধিত জাতীয় পরিচয়পত্র জেলা নির্বাচন অফিস থেকে মুদ্রণ ও লেমিনেটিং করা হলে বেশির ভাগ কাজ জেলা নির্বাচন অফিসেই সঙ্ঘটিত হবে।

তবে প্রবাসী ও বিশেষ বিশেষ সেবা এনআইডি উইং থেকে প্রদান অব্যাহত থাকবে যা নথিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১০ কোটি ৪২ লাখ নাগরিকের ডেটা সেন্টারে হারানো কার্ড সংশোধন, ভুল কার্ডের সংশোধন ও উত্তোলন ও বিতরণ সব চলত। এতে অনেকটা নাগরিক সেবা বিলম্বিত হতো। এখন ক্ষমতা ও কাজ বিকেন্দ্রীকরণ হওয়ায় এনআইডির বাহকদের সেবা পাওয়া সহজতর হবে।

 

"