রোজা আত্মাকে পরিশুদ্ধ করে

প্রকাশ : ১২ মে ২০১৯, ০০:০০

মাহমুদ আহমদ

পবিত্র মাহে রমজানের রহমতের দশকের ষষ্ঠ দিন আমরা অতিবাহিত করছি। আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের ভালোবাসা লাভ করার সর্বোত্তম মাধ্যম হলো রোজা। কেননা রোজা শুধু আল্লাহতায়ালার সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যেই রাখা হয় আর এর পুরস্কারও স্বয়ং আল্লাহতায়ালাই দিয়ে থাকেন। রমজানের ফরজ রোজা বা অন্যান্য দিনের নফল রোজা, যে রোজাই হোক না কেন তা আমাদের আত্মার সংশোধনের কারণ হয়ে থাকে। বিশেষ করে পবিত্র মাহে রমজানের রোজা আমাদের পুরো বছরের দোষ-ত্রুটি ক্ষমার কারণ হয়। কেননা, মানুষ যখন আল্লাহতায়ালার জন্য জাগতিক আরাম-আয়েশ, চাওয়া-পাওয়া ইত্যাদি থেকে বিরত থাকে তখন সে তার নফসকে পুণ্যের ওপর প্রতিষ্ঠিত রাখতে অধিক শক্তি পায়। কিন্তু এ বিষয়টি স্মরণ রাখা উচিত, রোজার প্রকৃত উদ্দেশ্য কেবল উপবাস থাকাই নয়। যদি উপবাস থাকার ফলে জান্নাত পাওয়া যেত তাহলে প্রতিটি ব্যক্তি এ জান্নাত পাওয়ার চেষ্টা করত। কেননা উপবাস থেকে মৃত্যুবরণ করে নেওয়াটা তেমন কোনো কঠিন বিষয় নয় বরং কঠিন বিষয় হলো আধ্যাত্মিক ও চারিত্রিক পরিবর্তন সাধন করা।

আমরা প্রায় দেখি, মানুষ তার অধিকার আদায়ের জন্য আমরণ অনশন করে থাকে, দিনের পর দিন না খেয়ে থাকে। অতএব অনাহারে থাকা কোনো কঠিন বিষয় নয়। মানুষ ইচ্ছা করলে সারা দিন না খেয়ে কাটাতে পারে। কিন্তু না খেয়ে থাকায় আল্লাহর কাছে তার কোনো গুরুত্ব নেই আর এমনটি করাও পবিত্র রমজানের উদ্দেশ্য নয়। রোজার প্রকৃত উদ্দেশ্য হলো মানুষের নাফস অর্থাৎ আমাদের আত্মা যেন পবিত্র হয়। কেননা আল্লাহ পরম পবিত্র আর তিনি পবিত্র আত্মার অধিকারীদেরই ভালোবাসেন।

রোজা শারীরিক সুস্থতারও কারণ এবং আধ্যাত্মিক দিক থেকেও এর অনেক কল্যাণ রয়েছে। রোজার মাধ্যমে আমরা অনেক ধরনের মন্দ থেকে বাঁচতে পারি এবং উত্তম চরিত্রের অধিকারীও হতে পারি। তাই আমাদের উচিত হবে, রমজানের এ দিনগুলোতে কোনো ধরনের পাপ কাজ যেন না করি। এছাড়া শুধু রমজানে কেন বছরের প্রতিটি দিনই যেন রমজানের ন্যায় অতিবাহিত করি। রমজান থেকে আমরা এ অঙ্গীকার করব যে, আমরা কারো অধিকার হরণ করব না, কারো সঙ্গে ঝগড়া-বিবাদে লিপ্ত হব না, ব্যবসায় কাউকে ঠকাব না, অধিক মূল্য রাখব না। আমি যেখানে বা যে স্থানেই কাজই করি না কেন সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে করব এবং ব্যক্তিগত স্বার্থ না দেখে সবার জন্য মঙ্গল কামনা করব। আমরা যদি পবিত্র রমজানে এ ধরনের অঙ্গীকার করি তাহলে আমাদের রোজা প্রকৃতই আল্লাহর জন্য হবে এবং আমাদের আত্মার সংশোধনের কারণ হবে, আমিন।

লেখক: ইসলামী গবেষক ও কলামিস্ট

"