মুজিবনগর দিবস আজ

বাঙালির প্রথম রাষ্ট্র কাঠামো গড়ার দিন

প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক ও মেহেরপুর প্রতিনিধি

আজ ১৭ এপ্রিল, ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস। ১৯৭১ সালের এ দিনে মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনার জন্য জনগণের নির্বাচিত সংসদের নেতৃত্বের সরকার পুরো বিশ্বের সামনে আত্মপ্রকাশ করে। সেই সঙ্গে বৈদ্যনাথতলার নামকরণ হয় মুজিবনগর। ওই দিনই স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রের (স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রটি আমাদের ওই মুহূর্তের সংবিধান আর বাস্তবে সংবিধানের মাতৃজনন কোষ) মাধ্যমে আমাদের রাষ্ট্রীয় কাঠামো ঘোষণা করা হয়। ওই রাষ্ট্রীয় কাঠামোর শীর্ষবিন্দু বা আমাদের রাষ্ট্রপতি হিসেবে ঘোষণা করা হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। কয়েক হাজার বছরের ইতিহাসে, ওই দিনই বাঙালি তার প্রথম স্বাধীন রাষ্ট্রকাঠামো গড়ে তোলে এবং ওই রাষ্ট্রের রাষ্ট্রপ্রধান হন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। আর সৈয়দ নজরুল ইসলামকে উপরাষ্ট্রপতি, তাজউদ্দীন আহমদকে প্রধানমন্ত্রী, এম মনসুর আলীকে অর্থমন্ত্রী এবং এ এইচ এম কামরুজ্জামানকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়। এম এ জি ওসমানী প্রধান সেনাপতির দায়িত্ব পান।

তাই এই বিশেষ দিন আর আম্রকানন চিরস্বরণীয় হয়ে থাকবে বাঙালির হৃদয়ে। আর মুজিবনগরের শপথগ্রহণের স্থানটিকে পর্যটনবান্ধব করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী। এদিকে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উদযাপন উপলক্ষে মুজিবনগর উপজেলায় আজ সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব এস এম আরিফ-উর-রহমান স্বাক্ষরিক কর্মসূচিতে বলা হয়েছে মুজিবনগর দিবসটি পালনে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় ও মেহেরপুর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। এ সবের মধ্যে রয়েছে আজ সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে মুজিবনগর মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিসৌধে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল ৯টায় মুজিবনগর মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিকেন্দ্রে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিজিবি, পুলিশ বাহিনী, আনসার, বিএনসিসি, বয়স্কাউট, গার্লস গাইডসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীদের গার্ড অব অনার প্রদান ও কুচকাওয়াজ প্রদর্শন। সকাল ১০টায় মুজিবনগর স্মৃতিসৌধের পাদদেশে শেখ হাসিনা মঞ্চের সামনে গীতিনাট্য ‘বদলে যাও, বদলে দাও’। বেলা পৌনে ১১টায় মুজিবনগর শেখ হাসিনা মঞ্চে হবে আলোচনা। বিকাল ৫টায় মুজিবনগর মুক্তিযুদ্ধ কমপ্লেক্স চত্বরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

জেলা প্রশাসক মো. আতাউল গণি জানান, এবারের মুজিবনগর দিবসে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও শিল্প মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি আমির হোসেন আমু। দলের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মোশারফ হোসেনের সভাপতিত্বে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ এমপি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুুর রহমান, খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মামুন স্বপন এমপি, কেন্দ্রীয় সদস্য এস এম কামালসহ খুলনা ও রাজশাহী বিভাগের এমপিরা আলোচনা সভায় উপস্থিত থাকবেন।

এদিকে দিনটি এলে ব্যস্ত হয়ে ওঠেন শ্রমিকেরা অথচ সারা বছর অযতেœ পড়ে থাকে ঐতিহাসিক এ স্থানটি। এখানে সারা বছর দূর-দূরান্ত থেকে দর্শনার্থীরা ঘুরতে এলেও থাকা খাওয়া ও বিশ্রামের ভালো ব্যবস্থা নেই। স্থানটিকে পর্যটনবান্ধক এলাকা হিসেবে গড়ে তোলার দাবি দর্শনার্থীদের।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, ১ হাজার কোটি বরাদ্দসহ স্থায়ী জনবল নিয়োগের জন্য কাঠামো চূড়ান্তকরণের পর্যায়ে রয়েছে।

মেহেরপুরের জেলা প্রশাসক মো. আতাউল গণি বলেন, এ সম্পর্কিত বিষয়ে পরিকল্পনা আমরা মন্ত্রণালয়ে উত্থাপন করছি। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় এটিকে একনেকে উত্থাপন করবে। একনেক থেকে এগুলো পাস হয়ে এলে আমরা প্রয়োজনীয় কর্মসূচি হাতে নেব।

দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করবে। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে এবং বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসেও দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে অনুরূপ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হবে।

 

"