জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ গ্রেফতার

প্রকাশ : ১২ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

গোপন নথি প্রকাশ করে বিশ্বব্যাপী সাড়া ফেলা উইকিলিকসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে গ্রেফতার করেছে ব্রিটিশ পুলিশ। লন্ডনে ইকুয়েডর দূতাবাসে আশ্রয় নেওয়ার প্রায় সাত বছর পর গতকাল বৃহস্পতিবার অ্যাসাঞ্জকে গ্রেফতার করা হয়। খবর বিবিসির।

লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আদালতে আত্মসমর্পণ না করায় অ্যাসাঞ্জকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে যত দ্রত সম্ভব বিচারিক আদালতে হাজির করা হবে। এর আগে ইকুয়েডরের প্রেসিডেন্ট লেনিন মোরেনো জানান, বারবার আন্তর্জাতিক আইন ভঙ্গ করায় ইকুয়েডর জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের রাজনৈতিক আশ্রয় প্রত্যাহার করে নিয়েছে।

তবে উইকিলিকসের পক্ষ থেকে করা এক টুইটে দাবি করা হয়েছে, ‘আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘনের’ কথা বলে ইকুয়েডর অবৈধভাবে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের রাজনৈতিক আশ্রয় প্রত্যাহার করেছে। অ্যাসাঞ্জকে গ্রেফতারের পর এক টুইটে ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ বলেছেন, ‘আমি নিশ্চিত করতে পারি যে, জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ এখন পুলিশ হেফাজতে আছেন এবং ন্যায়সংগতভাবে যুক্তরাজ্যে বিচারের মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন।’

২০১২ সালের ১৯ জুন থেকে লন্ডনে ইকুয়েডর দূতাবাসে রাজনৈতিক আশ্রয়ে ছিলেন ৪৭ বছর বয়সী জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। সেখানে অ্যাসাঞ্জকে এক ধরনের বন্দি জীবনযাপন করতে হয়। ইকুয়েডর দূতাবাসে অবস্থানের সময় বাইরে বের হতে পারেননি তিনি। তার দাবি ছিল, দূতাবাস থেকে বের হলে তাকে যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেওয়া হতে পারে, যাতে মার্কিন কর্তৃপক্ষ উইকিলিকসের সম্পর্কিত কার্যক্রম নিয়ে তাকে প্রশ্ন করতে পারে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মার্কিন দূতাবাসের গোপন তারবার্তা প্রকাশ করে বিশ্বজুড়ে হইচই ফেলে দেন অস্ট্রেলিয়ার এই নাগরিক। সেই গোপন তারবার্তায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মার্কিন কূটনীতিকদের নানা তথ্য ফাঁস হয়ে যায়।

 

"