অমিত শাহের বাংলা তাস, মমতার কটাক্ষ

প্রকাশ : ১২ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

পার্থ মুখোপাধ্যায়

তৃণমূল কংগ্রেসের নাম কেন টিএমসি? টি অর্থাৎ তোষণ। বাংলাদেশের অনুপ্রবেশকারীদের তোষণ করেছে সরকার। এম অর্থাৎ মাফিয়া। বাংলার মানুষকে নির্যাতন করছে গুন্ডারা। সি অর্থাৎ চিটফান্ড। হাজার হাজার কোটি টাকা খেয়ে নিয়েছে চিটফান্ড। কিন্তু চিটফান্ডের পয়সা হজম করতে পারবেন না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এটা গরিবদের কষ্টের উপার্জন, তাদের মনো বেদনা টিএমসিকে বাংলার গরিব মানুষ ছাড়বে না। উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে দলীয় প্রার্থীর প্রচারে গিয়ে সরাসরি তৃণমূল নেত্রীকে লক্ষ্যের পাশাপাশি বাংলা ভাষার আবেগ উসকে নিশানা করেছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। বলেছেন, এক সময় মা-মাটি-মানুষ স্লোগান দিয়েছিলেন মমতা। মা থেকে মমতা চলে গিয়েছে। মাটি অন্প্রুবেশকারীদের বেচে দিয়েছেন। মানুষ, টিএমসির গুন্ডাদের দ্বারা অত্যাচারিত। প্রতিশ্রুতি দিতে এসেছেন, অসমের মতো বাংলাতেও এনআরসি আনবেন। তৃণমূল নেত্রীকে হুমকি দিয়ে বলেছেন, যত ক্ষমতা আছে, আটকে দেখাও, একেক জন অনুপ্রবেশকারীকে বাংলার খাঁড়িতে ফেলবেন।

অন্যদিকে, দার্জিলিং লোকসভা আসনে পাহাড়ে নির্বাচনী জনসভায় বিজেপি এবং মোদি সরকারকে তীব্র আক্রমণ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দার্জিলিংয়ের মোটরস্ট্যান্ডের সভা থেকে তৃণমূল নেত্রীর তোপ, বিজেপি পাঁচ বছরে কিছুই করেনি। প্রধানমন্ত্রী নপ্রন্দ্র মোদিকে কটাক্ষ করে মমতা বলেছেন, কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন কিন্তু চাকরি তো হয়ইনি উল্টে বহু লোক চাকরি খুইয়েছেন। অসমে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি হওয়ায় বহু মানুষ যে বিপদে পড়েছেন সেই কথা স্মরণ করিয়ে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হুশিয়ারি দিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গে কিছুতেই নাগরিকপঞ্জি করতে দেবেন না। নরেন্দ্র মোদিকে খোঁচা দিয়ে বলেছেন, আগে দিল্লি সামলান তারপর বাংলার কথা ভাববেন।

উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে প্রচারে গিয়ে কয়েক মাস আগে দাড়িভিটে গুলিতে নিহত দুই স্কুলছাত্রের মৃত্যু প্রসঙ্গ টেনে বাংলা ভাষার আবেগ উসকে নিশানা করেছেন অমিত শাহ। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি বলেছেন, রাজেশ ও তাপসের দোষ ছিল তারা উর্দুতে নয়, বাংলায় পড়তে চেয়েছিলেন। কী ভাষায় পড়তে চান আপনারা? সভা থেকে সমস্বরে আওয়াজ আসে বাংলা। অমিতের অভিযোগ, গোটা বাংলায় উর্দু চাপিয়ে দিতে চান মমতা। বিজেপি সভাপতি বলেছেন, মমতা দিদি যত অত্যাচার করার করে নিন ২৬ মে মৃত্যুঘণ্টা বাজবে। ২৩টি আসন বিজেপি জেতার পর আপনার দিন শেষ হবে। বাংলার শিল্প ধ্বংস করে দিয়েছেন মমতা, এখন পশ্চিমবঙ্গে শিল্প বলতে রয়েছে বোমা আর বন্দুক শিল্প। অমিত শাহ বলেছেন, মে মাসে পুরো দেশে নির্বাচন হতে চলেছে। কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী, গুজরাট থেকে কলকাতায় ঘুরে এসেছেন, যেখানেই গিয়েছেন, সব জায়গায় একটাই আওয়াজ আসছে, মোদি, মোদি। গোটা দেশ সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আগামী নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী হবেন নপ্রন্দ্র মোদি। উন্নতির জন্য গোটা দেশ চাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদিকে। আর তারপরই বলেছেন, বাংলায় দুটি কারণে মোদিকে চাই। দেশের উন্নতি করতে পারেন একমাত্র নরেন্দ্র মোদিই। আর মমতার সন্ত্রাস থেকে মোদিই বাঁচাতে পারেন। দেশের উন্নয়ন করতে হবে এবং বাংলাকে জঙ্গলরাজ থেকে মুক্তি দিতে পারেন একমাত্র নরেন্দ্র মোদি। দার্জিলিংয়ে বিজেপি প্রার্থীকে সমর্থন করছে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা। সেই বিষয়টি মাথায় রেখে জনসভার শুরুতেই অমিত বলেছেন, গোর্খাদের পাশে সব সময় আছেন নরেন্দ্র মোদি। একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, নাগরিকত্ব বিল নিয়ে গোর্খাদের চিন্তার কোনো কারণ নেই। তিনি বলেছেন, শরণার্থীদের ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। পাশাপাশি তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তোপ দেগে তার প্রশ্ন, অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে এত দরদ কেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের?

 

"