নির্বাচন বর্জন : পুনঃতফসিল দাবি পাঁচ প্যানেলের

প্রকাশ : ১২ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন বর্জন করেছে পাঁচ প্যানেলের প্রার্থীরা। তারা পুনঃতফসিল দাবিতে প্রধান নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে লিখিত আবেদন জানিয়েছেন। ওই পাঁচটি প্যানেল হল প্রগতিশীল বাম ঐক্য, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, স্বাধিকার স্বতন্ত্র পরিষদ, স্বতন্ত্র জোট ও বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন। পাশাপাশি মঙ্গলবার (আজ) ক্যাম্পাসে ক্লাস বর্জন করে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছেন নেতারা। গতকাল সোমবার বিকেলে প্রধান নির্বাচন কর্মকর্তা অধ্যাপক ড. এস এম মাহফুজুর রহমানের কাছে লিখিত অভিযোগ জানান এ প্যানেলগুলোর প্রতিনিধিরা।

অভিযোগে বলা হয়েছে, ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচনে ভোট প্রদানে বাধা দান, অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে না দেওয়া, কারচুপি, প্রার্থীদের ওপর ন্যক্কারজনক হামলা, ভোট বাক্স নিয়ে লুকোচুরি, ভোট দেওয়ার পরও লাইনে দাঁড়িয়ে কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি করাসহ বিভিন্ন রকম অনিয়ম হয়েছে। এসব ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে আমরা প্রগতিশীল ছাত্র জোট, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, স্বাধিকার স্বতন্ত্র পরিষদ, স্বতন্ত্র জোট ও বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনসহ অধিকাংশ প্রার্থীরাই নির্বাচন বর্জন করেছি।

ওই লিখিত অভিযোগে স্বাক্ষরকারীরা হলেন প্রগতিশীল ছাত্র জোটের সহ-সভাপতি পদ প্রার্থী লিটন নন্দী, স্বাধিকার স্বতন্ত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক পদ প্রার্থী এ আর এম আনিসুর রহমান, একই পদে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের প্রার্থী উম্মে হাবিবা বেনজির, স্বতন্ত্র জোটের সহ-সভাপতি প্রার্থী অরণি সেমন্তি খান ও বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী রাশেদ খান।

পরে দুপুরের দিকে মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয় ছাত্রদল। এ সময় ছাত্রদলের ভিপি প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান, জিএস প্রার্থী আনিসুর রহমান খন্দকার অনিকসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন। মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ডাকসু নির্বাচনের কোনো সুষ্ঠু পরিবেশ নেই। এভাবে কোনো নির্বাচন হতে পারে না। আমরা এ নির্বাচন বর্জন করছি।

এর আগে লিটন নন্দীর নেতৃত্বে ৪টি প্যানেলের প্রার্থীরা দুপুর ২টায় নির্বাচন প্রত্যাখ্যানের ঘোষণা দিয়ে ভিসি ভবনে অবস্থান নিতে যান। ছাত্রদলের নেতাকর্মীরাও পৃথক বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ভিসি ভবনে অবস্থান নিতে যান। সেখানে পুলিশের বাধা পেয়ে বাসভবনের সামনে অবস্থান নেন ছাত্রনেতারা।

সেখানে বিকাল ৫টায় ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচন বাতিলের দাবিতে মঙ্গলবার ধর্মঘট ও বিক্ষোভের কর্মসূচি ঘোষণা করেন বাম সংগঠনগুলোর প্যানেলের ভিপি প্রার্থী লিটন নন্দী। তিনি বলেন, ‘নির্বাচন বর্জনকারী সব দলের ও প্যানেলের প্রতিনিধিদের পক্ষ থেকে বলছি, ফল বাতিল ও ভিসির পদত্যাগের দাবিতে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় রাজু ভাস্কর্যে ক্লাস বর্জন করে বিক্ষোভ হবে।’

তিনি বলেন, ‘ডাকসু নির্বাচন যদি বাতিল করা না হয় এবং আজ (সোমবার) রাতের মধ্যে ফল ঘোষণা করা হয় তাহলে আগামীকালের (মঙ্গলবার) কর্মসূচি বহাল থাকবে। আপনারা এটাকে ছাত্র ধর্মঘট হিসেবে নেবেন না। সবাই ক্যাম্পাসে আসবেন কিন্তু ক্লাসে যাবেন না।’

 

"