সেমিনারে প্রবন্ধ

বাংলাদেশে ভোগ্যপণ্যের দাম ৭০ শতাংশ বেশি

প্রকাশ : ১০ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

আন্তর্জাতিক বাণিজ্য, কমনওয়েলথ সচিবালয়ের সাবেক প্রধান ড. আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, ‘আন্তর্জাতিক বাজারদরের তুলনায় বাংলাদেশে নিম্ন ও মধ্যবর্তী ভোক্তাদের ভোগ্যপণ্য কিনতে ৭০ শতাংশ বেশি মূল্য গুনতে হয়। এক্ষেত্রে প্রতিযোগিতা কমিশন যদি সঠিকভাবে কাজ করে বিশ্ববাজারের সঙ্গে দেশের পণ্যমূল্যের ব্যবধান কমাতে পারত তাহলে দারিদ্র্য ও অতি দারিদ্র্যের সংখ্যা যে হারে কমছে সেটা আরো ত্বরান্বিত হতো। ঢাকার সিরডাপ মিলনায়তনে গতকাল শনিবার বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশন আয়োজিত ‘টেকসই অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নে বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের ভূমিকা’ শীর্ষক সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে এ কথা বলেন তিনি।

আবদুর রাজ্জাক বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারমূল্য পরিষদের প্রতিবেদনে দেখা গেছে, আন্তর্জাতিক বাজারদরের তুলনায় বাংলাদেশে ভোগ্যপণ্যের মূল্য ৭০ শতাংশ বেশি হওয়ায় নিম্ন ও মধ্যবর্তী ভোক্তাদের ওপর সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়ে। এটি দেশের দারিদ্র্য হ্রাসের অন্যতম প্রতিবন্ধকতা।

সেমিনারে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেন, দেশে পণ্যের মূল্য বেশি হওয়ায় সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ আরো বেশি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ইজ অব ডুয়িং বিজনেস সূচকে বাংলাদেশ অনেক তলানি থাকার কারণে আশানুরূপ বিদেশি বিনিয়োগ আসছে না। কারণ পণ্য বিক্রি করে যে পরিমাণ লাভ করা সম্ভব ব্যবসা শুরু করতেই প্রায় সে পরিমাণ ব্যয় করতে হয়।

এফবিসিসিআই সভাপতি মো. শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন) বলেন, আমরা ২০৪১ সাল নাগাদ উন্নত দেশে পরিণত হতে চাই। সেজন্য দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নেওয়া হলেও স্বল্পমেয়াদি ভালোমানের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়নি। এক্ষেত্রে সরকারকে আরো গুরুত্ব দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

কমিশনের চেয়ারপারসন মো. ইকবাল খান চৌধুরীর সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্শি। আরো বক্তব্য দেন বাণিজ্য সচিব মো. মফিজুল ইসলাম।

 

"