কারাগারে খালেদার ব্যক্তিগত চকিৎসক চেয়ে আবেদন

প্রকাশ : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

আদালত প্রতিবেদক
ama ami

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভালো না বলে জানিয়ে কারাগারে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসককে এনে চিকিৎসা দেওয়ার আবেদন করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ঢাকার পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে অস্থায়ীভাবে স্থাপিত ৯ নম্বর বিশেষ জজ শেখ হাফিজুর রহমানের আদালতে নাইকো দুর্নীতি মামলার চার্জ শুনানি শেষে এই আবেদন জানান খালেদার আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার সমস্যাগুলো দিন দিন বাড়ছে। এজন্য তার চিকিৎসা প্রয়োজন। এদিকে নাইকো দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের পরবর্তী শুনানির জন্য ২০ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত।

এ দিন খালেদা জিয়াকে হুইল চেয়ারে করে দুপুর ১২টা ২৬ মিনিটে আদালতে আনা হয়। এরপর বিচারক ১২টা ২৮ মিনিট এজলাসে উঠে ২টা ৫ মিনিট পর্যন্ত বিচারকার্য পরিচালনা করেন। শুনানির পুরো সময় এজলাসে খালেদা জিয়া চুপ ছিলেন।

এরপর ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ ও শহীদুল ইসলামের আংশিক চার্জ শুনানি শেষে খালেদা জিয়ার আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার বলেন, গত সেপ্টেম্বর মাসে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা করা হয়েছিল। চিকিৎসা অসমাপ্ত অবস্থায় খালেদা জিয়াকে আবার কারাগারে আনা হয়েছে। তার চিকিৎসার বিষয়ে আমাদের একটি আবেদন রয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। তার সমস্যাগুলো দিন দিন বাড়ছে। খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসককে কারাগারে এনে তার চিকিৎসা করার প্রয়োজন। দয়া করে একটি চিকিৎসা বিষয়ে আদেশ দিন। এ বিষয়ে উচ্চ আদালতের আদেশ আছে। এ সময় উচ্চ আদালতের আদেশ জমা দেওয়ার কথা বলে এ বিষয়ে আদেশ পরে দেবেন বলে জানান বিচারক।

উল্লেখ্য, কানাডিয়ান কোম্পানি নাইকোর সঙ্গে অস্বচ্ছ চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রের বিপুল পরিমাণ আর্থিক ক্ষতিসাধন ও দুর্নীতির অভিযোগে খালেদা জিয়াসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দুদকের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর তেজগাঁও থানায় মামলাটি করেন। পরের বছর ৫ মে ওই মামলায় খালেদা জিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) জমা দেন দুদকের সহকারী পরিচালক এস এম সাহেদুর রহমান। অভিযোগপত্রে প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকার রাষ্ট্রীয় ক্ষতির অভিযোগ আনা হয়।

"