উদ্যোক্তা তৈরির কাজ চলছে গ্রামেও

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

প্রকাশ : ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক
ama ami

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্নপূরণের যাত্রায় গ্রামেও উদ্যোক্তা তৈরির কাজ চলছে। যথাযথ পরিকল্পনা নিয়ে তরুণ-তরুণীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া গেলে তারা নিজেরাই কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে পারবেন। এতে গ্রামীণ অর্থনীতিতেও গতি সঞ্চার হবে। গতকাল বুধবার ঢাকার সিরডাপ ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স সেন্টারে বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (বার্ড), কুমিল্লা এবং বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব আইসিটি ইন ডেভেলপমেন্টের (বিআইআইডি) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত ‘আধুনিক নগর সুবিধা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে তরুণ উদ্যোক্তা সৃজন’ বিষয়ক সূচনা কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব মো. কামাল উদ্দিন তালুকদারের সভাপতিত্বে কর্মশালায় বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, কুমিল্লা বার্ডের মহাপরিচালক ড. এম মিজানুর রহমান, বিআইআইডির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শহীদ উদ্দিন আকবর।

মন্ত্রী গ্রামের ১৫ থেকে ৩৯ বছর বয়সী তুরণ-তরুণীদের উদ্ভাবনী ব্যবসা ধারণা ও প্রস্তাবসমূহ পরীক্ষা করে তা বাস্তবায়নে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহায়তার আশ^াস দেন। উদ্যোক্তা তৈরির এ উদ্যোগ সফল করতে মোবাইলসহ তথ্যপ্রযুক্তির অন্য উপকরণসমূহ সহজলভ্য করার ওপরও জোর দেন।

বিদ্যুৎ ও জ¦ালানির ক্ষেত্রে সাফল্যের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, প্রয়োজনীয় অবকাঠামো তৈরি করতে সময় লাগে, টাকা লাগে। তবে যথাযথ পরিকল্পনা নিয়ে তরুণ-তরুণীদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দেওয়া গেলে তারা যেমন নিজেদের কর্মসংস্থান নিজেরাই করতে পারপ্রণ; তেমনি গ্রামীণ অর্থনীতিতেও গতি সঞ্চার হবে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলক বলেন, শিক্ষিত জনগোষ্ঠীর জন্য মেধা ও প্রযুক্তিভিত্তিক কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে হবে। তরুণদের চাকরিমুখী না করে কর্মসংস্থানের জন্য উদ্যোক্তা তৈরি করতে হবে। তিনি সবগুলো উপজেলায় একটি করে ডিজিটাল সেন্টার চালু করতে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতা কামনা করেন।

কর্মশালায় সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধি ছাড়াও বিপুলসংখ্যক তরুণ-তরুণী অংশ নেন।

"