ভোটকেন্দ্র থেকে খবর সম্প্রচার করা যাবে : সিইসি

ড. কামালের ওপর হামলার ঘটনা দুঃখজনক

প্রকাশ : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

আগামী ৩০ ডিসেম্বর ভোটের দিনে বেসরকারি টিভি চ্যানেলসহ সব গণমাধ্যম ভোটকেন্দ্র থেকে সরাসরি সম্প্রচারের মাধ্যমে ভোটের চিত্র ও খবর দেখাতে পারবেন বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। ভোটকক্ষের ছবিও তোলা যাবে। তবে ভিডিও ধারণ করা যাবে না। এ ছাড়া মিরপুরে বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের চেয়ারম্যান ড. কামাল হোসেনের ওপর হামলার ঘটনা দুঃখজনক বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার। নির্বাচনে দায়িত্ব পালনে সেনাবাহিনীও প্রয়োজন হলে গ্রেফতার করতে পারবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। তিনি বলেন, সেনাবাহিনীকে বিচারিক ক্ষমতা দেওয়া হবে না। তবে, তারা গ্রেফতার করতে পারবে। তাদের সেই ক্ষমতা দেওয়া আছে। আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে গতবাল শনিবার সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে সিইসি এসব কথা বলেন এবং এ মন্তব্য করেন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ভোটের দিন ভোটকেন্দ্রের ভেতর থেকে সংবাদমাধ্যমকর্মীরা সরাসরি সম্প্রচারের মাধ্যমে ভোটের চিত্র দেশবাসীকে দেখাতে পারবেন। তবে, নিয়ন্ত্রিত থাকবে ভোটকক্ষের অভ্যন্তর। কারণ এখানে ছবি তোলা গেলেও ভিডিও ধারণ করে তা প্রকাশ করা যাবে না। আর বুথের গোপন কক্ষে প্রবেশ সবার জন্য থাকবে নিষিদ্ধ। সিইসি আরো বলেন, ভোটকেন্দ্রের ভেতরে একসঙ্গে অনেক লোক যেতে পারবেন না। বেশিক্ষণ অবস্থান করা যাবে না। বিদেশি পর্যবেক্ষকদের বেলায়ও এ নির্দেশনা থাকবে।

এক প্রসঙ্গে কে এম নুরুল হুদা বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেনের ওপর হামলার ঘটনাটি দুঃখজনক। তিনি রাষ্ট্রের সিনিয়র সিটিজেন, প্রখ্যাত মানুষ। তার সঙ্গে এমন ঘটনা কাম্য নয়, যোগ করেন সিইসি।

এ সময় প্রধান নির্বাচন কমিশনার আরো বলেন, তার (কামাল হোসেন) ওপর হামলার ঘটনায় ফৌজদারি অপরাধ হয়েছে। যেভাবে ব্যবস্থা হয়, সেটা হবে। হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে তারাও একটি আবেদন করেছে। আমরা নির্বাচনী তদন্ত কমিটির কাছে বিষয়টি পাঠাব। তারা যেভাবে রিপোর্ট দেবে, সেভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে মিরপুরে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ফেরার পথে ড. কামাল হোসেনের গাড়িবহরে হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শনিবার দুপুরে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের একটি প্রতিনিধিদল ইসিতে গিয়ে ব্যবস্থা নিতে আবেদন জমা দেয়।

 

"